Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : সোমবার, ১০ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৯ অক্টোবর, ২০১৬ ২১:৫০
ফের শাওন-মাহির রসায়ন
শামছুল হক রাসেল
ফের শাওন-মাহির রসায়ন
মাহীয়া মাহি, মেহের আফরোজ শাওন

‘২০০৮ সালে হুমায়ূন আহমেদের “নক্ষত্রের রাত” ছবিটির শুটিং শুরু করেছিলাম। কিন্তু যে কোনো কারণেই হোক তা আর দুই দিনের বেশি ক্যামেরাবন্দী করতে পারিনি।

৮ বছর পর আবার শুরু করতে যাচ্ছি। ’ নিজের নির্মিতব্য ছবি নক্ষত্রের রাত নিয়ে বাংলাদেশ প্রতিদিনকে এমনটাই জানালেন মেহের আফরোজ শাওন। গত শনিবার ‘ফেয়ার অ্যান্ড লাভলী ম্যান-চ্যানেল আই হিরো, পাওয়ার্ড বাই বাংলাদেশ আর্মি’ অনুষ্ঠানের গ্র্যান্ড ফিনালের মঞ্চে এই নক্ষত্রের রাত উপন্যাস অবলম্বনে ছবি নির্মাণের ঘোষণা দেওয়া হয়। এটি প্রযোজনা করবে ইমপ্রেস টেলিফিল্ম আর পরিচালনায় রয়েছেন মেহের আফরোজ শাওন। জানানো হয় এবারের প্রতিযোগিতায় যিনি বিজয়ী হবেন তিনি মাহির বিপরীতে এই ছবিতে অভিনয় করবেন। শিগগিরই এর চিত্র ধারণ শুরু হবে। আর প্রাথমিক লোকেশন নির্ধারণ করা হয় ঢাকার কয়েকটি স্পটকে। প্রতিযোগিতায় বিজয়ী হন বাঁধন। অর্থাৎ মাহিয়া মাহির বিপরীতে এখানে দেখা যাবে তাকে। অন্যদিকে শাওনের পরিচালনায় এটি হতে যাচ্ছে মাহির দ্বিতীয় ছবি। এর আগে মাহি অভিনয় করেছিলেন তার ‘কৃষ্ণপক্ষ’ ছবিতে। সেখানে তার নায়ক ছিলেন রিয়াজ। অর্থাৎ ফের শাওন ও মাহির রসায়ন দেখা যাবে বড় পর্দায়। বাংলাদেশ প্রতিদিনকে শাওন বলেন, ‘সবকিছু ঠিক থাকলে ডিসেম্বরের শেষে অথবা জানুয়ারিতে ছবিটির ক্যামেরা অন করব। মজার কথা হলো, এই নক্ষত্রের রাত উপন্যাস অবলম্বনে ২০০৮ সালে শুটিংও করা হয়েছিল দুই দিন। তখন নূহাশ চলচ্চিত্রের ব্যানারে ছবিটি নির্মাণের সিদ্ধান্ত হয়। কিন্তু যে কোনো কারণেই হোক ক্যামেরার অনগোয়িং হয়নি। ৮ বছর পর আবার নির্মাণে যাচ্ছে এ ছবিটি। ’ সেই সময়ে কে কে ছিলেন এমনটা জানতে চাইলে শাওন বলেন, ‘ফেরদৌস, জাহিদ হাসান ভাই এবং আমি। প্রধান চরিত্রে আমরা এই তিনজনই ছিলাম। ’ তাহলে বাঁধনের পর আমরা আরও একজন নায়ক পাচ্ছি এই তো?... ‘দেখুন, আরেকজন নায়ক কে হবে সেটা এখনই বলতে চাচ্ছি না। একটু না হয় সারপ্রাইজ থাকুক। তবে এটা বলতে পারি যে, রানিং অর্থাৎ ইতিমধ্যে কাজ করে চলেছে

এমন কাউকে নেওয়ার ইচ্ছা রয়েছে। বাকিটা না হয় সময় এলে বোঝা যাবে। ’ কৃষ্ণপক্ষের পর আবারও মাহিকে পাচ্ছি আপনার ছবিতে, তাকেই কেন?... ‘হাঁ হাঁ হাঁ... এমন তো কোনো নিয়ম নেই যে, পরপর দুই ছবিতে নেওয়া যাবে না। নিশ্চয়ই তার সঙ্গে রসায়ন ভালো পেয়েছি বলেই এ সিদ্ধান্ত। অভিনেত্রী হিসেবে অবশ্যই মাহি তুলনাহীন। কৃষ্ণপক্ষের মতো ছবিতে সে নিজেকে চরিত্রের সঙ্গে পুরোপুরি মানিয়ে নিয়েছে। তাছাড়া বাঁধন এখানে পুরোপুরি নতুন। নায়িকাও যদি নতুন হয় তাহলে গোটা ইউনিটে কাজের ক্ষেত্রে কিছুটা পিছুটান থেকে যায়। কারণ দর্শকের কথাও আমাকে ভাবতে হবে। সবমিলিয়ে একটা ভালো প্যাকেজ হবে বলে আমি মনে করি। ’ হুমায়ূন আহমেদের গল্পের বাইরে পরিচালনায় ইচ্ছা আছে কি?...‘দেখুন আমি অনেক নাটক বানিয়েছি হুমায়ূন আহমেদের গল্পে। আর ছবি বানিয়েছি একটা। সত্যি কথা বলতে কি, তার গল্পের ভাণ্ডার এত বিশাল যে, নতুন গল্পে যাওয়ার প্রয়োজনই পড়বে না। তার মানে এই নয় যে, আমি নতুন গল্পে বা অন্যের গল্পে কাজ করতে চাই না। অবশ্যই চাই। তবে সেটাও হতে হবে মনের মতো। কারণ নিজের আইডেনটিটি কে না চায়। ’

এই পাতার আরো খবর
up-arrow