Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : বুধবার, ১২ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১১ অক্টোবর, ২০১৬ ২২:৫৯
আলাপন...
আমার চরিত্রের নাম আলো
২১ অক্টোবর মুক্তি পাচ্ছে এস এ হক অলিক পরিচালিত ‘এক পৃথিবী প্রেম’। এই চলচ্চিত্রের নায়িকা আইরিন। চলচ্চিত্রটি নিয়ে তার সঙ্গে আলাপচারিতা—
পান্থ আফজাল
আমার চরিত্রের নাম আলো

আগুনের একটি দৃশ্য করতে গিয়ে আমি আর শর্মিলী আন্টি দুর্ঘটনায় পড়ি। ঠাণ্ডার সময় শুটিং হয়েছিল। চারদিকে কুয়াশায় ভরা। সব বাড়িতে আগুন দিয়ে দেওয়া হলো। ওর মধ্য থেকে আমি শর্মিলী আন্টিকে বাঁচাব

 

‘এক পৃথিবী প্রেমে’ আপনার চরিত্র সম্পর্কে জানতে চাই?

আমার চরিত্রের নাম আলো। অনাথ একটি মেয়ে। যে কিনা বেড়ে উঠেছে এক বৃদ্ধাশ্রমে। এই বৃদ্ধাশ্রমে যারা থাকেন তাদের দেখাশোনা করে থাকে অনাথ মেয়েটি।

 

নতুন মুখ আসিফের সঙ্গে আপনার বোঝাপড়াটা কেমন ছিল?

আমরা খুবই ফ্রেন্ডলি। আসলে আমাদের দুজনের ভিতরে নিজেদের বুঝতে পারার ব্যাপারটা ছিল। বিশ্বাস ছিল, ভালো কিছু করতে পারব। দুজনের মধ্যে রসায়নটা চমৎকার ছিল।

 

এই চলচ্চিত্রে কাজ করতে গিয়ে কোনো মজার ঘটনা মনে পড়ে কি?

আগুনের একটি দৃশ্য করতে গিয়ে আমি আর শর্মিলী আন্টি দুর্ঘটনায় পড়ি। ঠাণ্ডার সময় শুটিং হয়েছিল। চারদিকে কুয়াশায় ভরা ছিল। সব বাড়িতে আগুন দিয়ে দেওয়া হলো। ওর মধ্য থেকে আমি শর্মিলী আন্টিকে বাঁচাব—এমন দৃশ্য ছিল। কিন্তু একপর্যায়ে আমরা দুজনে ধপাস করে পড়ে যাই। আমি আর আন্টি প্রচণ্ড আঘাত পেয়েছিলাম তখন। অনেকক্ষণ শুটিং অফ ছিল।

 

’এক পৃথিবী প্রেম’চলচ্চিত্রে এমন কী রয়েছে যার জন্য দর্শক হলমুখী হবে?

প্রথমত সামাজিক একটি গল্প। একটা ভালো মেসেজ আছে। আমরা বাবা-মাকে বৃদ্ধাশ্রমে পাঠিয়ে দেই। অর্থাৎ যে কোনো চলচ্চিত্র দর্শকদের একটি গুরুত্বপূর্ণ তথ্য ডেলিভারি করে। সেই হিসেবে এটির মধ্যেও সামাজিক দায়বদ্ধতার একটা জায়গা আপনি সহজেই অনুমান করতে পারবেন। অন্যদিকে, এটি রোমান্টিক ধরনের, ভিন্ন আঙ্গিকের একটি চলচ্চিত্র।

 

চলচ্চিত্রটি নিয়ে দর্শকদের কাছে প্রত্যাশা কি?

যেহেতু এই চলচ্চিত্রের গল্প, স্টোরি লাইন আপ, মেকিং সব কিছুই গতানুগতিক ধারার বাইরে। একটু অন্যরকম। আমি নিজেকে যদি দর্শক হিসেবে দেখি, এর গল্প আলাদা, পরিচালনায় রয়েছে মুনশিয়ানা, ভিন্ন আঙ্গিকে এই চলচ্চিত্রের প্লট ও কারেক্টার সাজানো। কারণ বৃদ্ধাশ্রম নিয়ে এমন চলচ্চিত্র ভাবনা সত্যিই অসাধারণ লাগবে দর্শকদের। এখানে কিন্তু চারজন কিংবদন্তি কাজ করেছেন। শর্মিলী আন্টিও কাজ করেছেন। এ ছাড়াও এস এ হক অলিকের মতো একজন স্বনামধন্য পরিচালকের সঙ্গে কাজ করেছি। সঙ্গে আসিফ নতুন মুখ হলেও অনেক চেষ্টা করেছে দর্শকদের জন্য ভালো কিছু দেওয়ার। আমরা আশাবাদী, দর্শক আমাদের ভালোভাবেই গ্রহণ করবে। দর্শকরা পুরো ‘এক পৃথিবী প্রেম’-এর টিমকে সাপোর্ট দিবে।

 

আপনার অন্যসব কাজের কথা জানতে চাই।

রিলিজের অপেক্ষায় রয়েছে আকাশ আচার্য পরিচালিত সাইমন সাদিকের সঙ্গে ‘মায়াবিনী’, সাইফ চন্দন পরিচালিত এবং আনিসুর রহমান মিলন অভিনীত ‘টার্গেট’, সৈয়দ ওয়াহিদুজ্জামান ডায়মন্ড পরিচালিত ‘বাষ্পস্নান’। যেখানে সহশিল্পী হিসেবে আছেন কলকাতার সমদর্শি দত্ত। কায়েস আরজু অভিনীত ‘এই তুমি সেই তুমি’। এই চলচ্চিত্রগুলো খুব শিগগিরই দেখতে পারবেন।   

এই পাতার আরো খবর
up-arrow