Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : সোমবার, ২৪ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ২৩ অক্টোবর, ২০১৬ ২২:৫৯
হারিয়ে গেছে প্রাইভেট স্টুডিও
চলচ্চিত্র নির্মাণে প্রতিষ্ঠিত ছয়টি স্টুডিওই বিলুপ্ত হয়েছে
হারিয়ে গেছে প্রাইভেট স্টুডিও
টিকাটুলির রোজ গার্ডেনে ছিল বেঙ্গল স্টুডিও

দেশে এখন চলচ্চিত্র নির্মাণের জন্য একটিও প্রাইভেট স্টুডিও নেই। ৩০টির মতো ছোটখাটো স্টুডিও গড়ে উঠলেও তাতে পূর্ণাঙ্গ চলচ্চিত্র নির্মাণের সুযোগ-সুবিধা নেই। অথচ ঢাকায় চলচ্চিত্র নির্মাণ শুরুর আগেই এখানে স্টুডিও নির্মাণ শুরু হয়। চলচ্চিত্র তৈরি করতে গেলে এর জন্য প্রাথমিক প্রয়োজন হয় ল্যাবরেটরি ও স্টুডিওর। প্রখ্যাত চলচ্চিত্র সাংবাদিক অনুপম হায়াৎ বলেন, ১৯৪৯ সালের জানুয়ারি মাসে ঢাকায় প্রথম প্রাইভেট স্টুডিওর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়। এটি ছিল ক্যাপ্টেন এসএএইচ জায়েদীর ‘জায়েদী স্টুডিও’। স্টুডিওটি অবশ্য আর  প্রতিষ্ঠা পায়নি। ১৯৫১ সালে ঢাকায় ‘ন্যাশনাল স্টুডিও অ্যান্ড সিনে ল্যাবরেটরি’ নামে আরেকটি প্রতিষ্ঠানের জন্ম হয়। তবে এর কার্যক্রমও পূর্ণাঙ্গ রূপ পায়নি। পরে এভাবে অবশ্য আরও কয়েকটি স্টুডিও নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়া সত্ত্বেও নানা প্রতিকূলতায় সেগুলোও আর আলোর মুখ দেখেনি। ১৯৫৭ সালে সরকারি উদ্যোগে ঢাকায় এফডিসি প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর বেশ কয়েকটি প্রাইভেট স্টুডিও গড়ে ওঠে। এর মধ্যে ষাটের দশকে প্রথম প্রতিষ্ঠিত হয় ইস্টার্ন থিয়েটার। এ স্টুডিওটির ইতিহাস বিস্তারিত জানা যায়নি। ষাট থেকে আশির দশক পর্যন্ত ঢাকায় যেসব প্রাইভেট ফিল্ম স্টুডিও গড়ে ওঠে সেগুলোর চিত্র তুলে ধরেছেন— আলাউদ্দীন মাজিদ

 

বারী স্টুডিও

চলচ্চিত্র ব্যবসায়ী এমএ বারী ও মালিক মাজিদ কারওয়ানবাজার ও ফার্মগেট এলাকার পূর্ব তেজতুরী বাজারে স্থাপন করেন ‘বারী স্টুডিও’। এমএ বারী মগবাজার এলাকায় ষাটের দশকের শুরুতে ইস্টার্ন থিয়েটার নামে একটি স্টুডিও স্থাপন করেন। ১৯৬৮-এর দিকে সরকারি নির্দেশে এ স্টুডিও বন্ধ হয়ে গেলে ১৯৭০ সালে বারী স্টুডিও স্থাপন করেন। ষাট থেকে আশির দশক পর্যন্ত প্রায় ২০০ ছবির নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হয় এখানে। চলচ্চিত্র নির্মাণে ভাটা ও ব্যবসা পরিবর্তনের কারণে ১৯৯০ সালে বারী স্টুডিও বন্ধ করে দেওয়া হয়।

 

পপুলার স্টুডিও

তৃতীয় বেসরকারি চলচ্চিত্র স্টুডিও পপুলার স্টুডিও লিমিটেড ঢাকার অদূরে নারায়ণগঞ্জ জেলার ফতুল্লার পাগলা এলাকায় স্থাপিত হয়। দেশের তিনজন বিশিষ্ট অগ্রগামী চলচ্চিত্রকর্মী আবদুল জব্বার খান, এ আউয়াল ও মোশাররফ হোসেন চৌধুরী ১৯৬৫ সালে এ স্টুডিও প্রতিষ্ঠা করেন। ১৬ বিঘা জমির ওপর বিরাট পুকুর, বাড়ি, বাগান, গাছগাছালি নিয়ে স্টুডিওটি গড়ে ওঠে। আশির দশকের শেষ দিকে এটি বন্ধ হয়ে যায়।

 

ঢাকা স্টুডিও

ষাটের দশকে ঢাকার তৎকালীন জিন্নাহ এভিনিউ বর্তমানে বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে প্রতিষ্ঠিত হয় ‘ঢাকা স্টুডিও’। চলচ্চিত্র প্রযোজক মালিক মাজিদ এটি প্রতিষ্ঠা করেন। এখানে প্রায় একশর মতো ছবি নির্মাণ হয়। আশির দশকের শেষ দিকে এটি বন্ধ করে দেন মালিক পক্ষ।

 

বেঙ্গল স্টুডিও

১৯৬৯ সালে চলচ্চিত্র ব্যবসায়ী বজলুর রহমানসহ আরও কয়েকজন মিলে পুরান ঢাকার টিকাটুলির কে এম দাস লেনের রোজ গার্ডেনে স্থাপন করেন বেঙ্গল মোশান পিকচার্স স্টুডিও লিমিটেড। আট বিঘা জমির ওপর পুরনো জমিদার বাড়ি, বিশাল পুকুর ও বাগান শোভিত করে গড়ে তোলা হয় স্টুডিওটি। ১৯৭২ সালে বজলুর রহমান একক মালিকানা গ্রহণ করেন। এখানেও শতাধিক ছবি নির্মাণ হয়। এটিও নব্বই দশকের শুরুতে বন্ধ হয়ে যায়।

 

নিউ স্টার স্টুডিও

সত্তর দশকে তেজতুরী বাজার এলাকায় গড়ে ওঠে নিউ স্টার স্টুডিও। এখানেও বহু ছবির নির্মাণ কাজ হয়। স্টুডিওটি একেবারে বিলুপ্ত না হলেও বর্তমানে এখানে শুধু লাইট ভাড়া দেওয়া হয়।

 

টেকনিশিয়ান স্টুডিও

চলচ্চিত্র পরিচালক ও প্রযোজক জয়নুদ্দিন আহমেদ সত্তর দশকে জিগাতলায় নির্মাণ করেন টেকনিশিয়ান স্টুডিও। এখানেও বহু ছবি নির্মাণ হয়েছে। বর্তমানে এখানে শুধু লাইট ভাড়া দেওয়া হয়।

ঢাকায় প্রায় ৩০টির মতো প্রাইভেট স্টুডিও রয়েছে। এর মধ্যে কলাবাগানে একটি প্রায় স্বয়ংসম্পূর্ণ স্টুডিও থাকলেও অন্যগুলোর কোনোটিই পূর্ণাঙ্গ ফিল্ম স্টুডিও নয়।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow