Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ২২:৫০
ইন্টারভিউ : বন্যা মির্জা
কখনই শুনতে চাইনি আমি একজন মডেল
কখনই শুনতে চাইনি আমি একজন মডেল
bd-pratidin

অভিনেত্রী বন্যা মির্জা। মূলত টিভি নাটকে অভিনয় করে  জনপ্রিয়তা অর্জন করেন। মঞ্চ ও উপস্থাপনায়ও তিনি রয়েছেন সরব। অল্প কিছু চলচ্চিত্রে  অভিনয় করেছেন। সাম্প্রতিক ব্যস্ততা ও সমসাময়িক বিষয় নিয়ে তার সঙ্গে কথা বলেছেন— পান্থ আফজাল

 

♦ কেমন আছেন? আপনাকে কেন আগের মতো নাটকে তেমন করে দেখা যায় না?

জি, ভালো আছি। আসলে এখন আমাদের কাজ করার তেমন সুযোগ নেই। আমি যে চরিত্রে কাজ করব তেমন করে পরিচালকরা ভাবতে পারেন না। তেমন করে কোনো গল্প, চরিত্র সৃষ্টিও হচ্ছে না। আর যারা নাটক বানাচ্ছেন, তারা তেমন দক্ষ নন। তারা আমাদের সঙ্গে ডিল করবেন কীভাবে? আমাদের চরিত্র তো সময় ও পরিস্থিতে শিফট করবে। এমন চরিত্র থাকবে যেখানে আমরা মনের মতো অভিনয় করতে পারি। সেই সুযোগ কোথায়?

 

♦ ঈদের সময় কিছু টিভি আয়োজনে আপনাকে দেখা গিয়েছিল। এগুলো ছাড়া নতুন কোনো কাজ করছেন কি?

ঈদে মোহন খানের সাত পর্বের একটি ধারাবাহিকে কাজ করেছিলাম। আর গাজী টিভিতে ঈদের দিন থেকে সাত দিনে সাতটি বিশেষ অনুষ্ঠান প্রচার হয়েছিল। দুই দিন আগে চলচ্চিত্র নির্মাতা ফখরুল আবেদীনের হাউজের একটি টেলিফিল্মে কাজ করেছি। এই টেলিফিল্মে আমার সঙ্গে আরও ছিলেন শ্যামল মাওলা, সোহানা সাবা আর একজন নতুন মেয়ে।

 

♦ অন্য আর কী কাজে ব্যস্ত রয়েছেন?

আমি এখন ফুলটাইম একটি প্রতিষ্ঠানের মার্কেটিং ও ব্র্যান্ড কনসালট্যান্ট প্রধান হিসেবে ৩ বছর ধরে কাজ করছি। আর বছরে ৩-৪টা নাটকে অভিনয় আর উপস্থাপনা করছি।

 

♦ কিছু টিভি শোতে আপনি উপস্থাপনা করছেন। উপস্থাপনা করতে কেমন লাগে?

অভিনয়ের পর আমি উপস্থাপনাকেই অনেক উপভোগ করি। আগেও কিছু টেলিভিশনের অনুষ্ঠানে উপস্থাপনা করেছি। গত ৭ মাস ধরে নিউজ টোয়েন্টিফোর চ্যানেলে সোশ্যাল শো ‘পরিচিত সব গল্পেরা’ এর উপস্থাপনা করছি। এটি নিয়মিত অনুষ্ঠান। গ্রন্থনা ও পরিকল্পনায় রয়েছেন সামিয়া রহমান।

 

♦ সামনে কোনো ফিল্মে আপনাকে দেখা যাবে কি?

আগে ৫-৬টি ফিল্মে কাজ করেছি, তবে কমার্শিয়াল ছবি নয়। আর আমি কমার্শিয়াল ছবিতে কাজ করতে স্বাছন্দ্যবোধ করি না। সরকারি অনুদানের ‘ওমর ফারুকের মা’ শিরোনামের একটি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রে আমি অভিনয় করছি। নির্মাতা এম এম জাহিদুর রহমান বিপ্লব। ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে এটির শুটিং শুরু হবে।

 

♦ নির্মাতা হিসেবে আপনাকে কবে দেখতে পাব?

এখনই নির্মাণ নিয়ে ভাবছি না। এটা আলাদা দক্ষতার বিষয়। খুবই কঠিন কাজ। একটি প্রোডাকশনের দেখভাল থেকে শুরু করে যাবতীয় সবকিছু পরিচালককেই দেখতে হয়; যেটা আমার জন্য দুরূহ ব্যাপার। সবকিছু শিখে নামতে হয়।

 

♦ এখন তো বিজ্ঞাপনেও কাজ করছেন?

আগে কখনই বিজ্ঞাপনে কাজ করতে চাইনি। কারণ কখনই শুনতে চাইনি যে, আমি একজন মডেল। তবে এখন করছি। ২-৩টি বিজ্ঞাপনের মধ্যে তেলের দুটি বিজ্ঞাপন ও একটি রবির কাজ করেছি। 

 

♦ কিছুদিন আগে চারজন ধ্রুপদী এর মধ্যে আপনাকে মঞ্চে দেখা গেল...

এটি দেশ নাটকের ‘নিত্যপুরাণ’ মঞ্চ নাটক। এবারই আমি, মনি আপু, নাজনীন চুমকী আর সুষমা চারজন ধ্রুপদী হিসেবে কাজ করেছি। প্রায় ২৫ বছর ধরে মঞ্চে কাজ করছি। এখনো নিয়মিত মঞ্চে কাজ করছি।

 

♦ প্রায় দেড় বছর হয়ে গেল অভিনয়শিল্পী সংঘের সঙ্গে যুক্ত আছেন। কতটুকু আশা পূরণ হয়েছে?

দেড় বছর ধরে এই সংঘের অনুষ্ঠান সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছি। আমি তো বলব এই অল্প সময়ে অভিনয়শিল্পী সংঘ প্রচুর কাজ করেছে। শুরুটা আমরা করে দিয়েছি, পরবর্তীতে যারা আসবেন অনেক কিছু তৈরি অবস্থায়ই পাবেন। আমি সাধুবাদ জানাই নাসিম ভাই, সাচ্চু ভাই, জর্জ ভাই, সুইটি আপু, পাভেল ভাই, রওনক, তানিয়া আপু, তুষ্টি, ঊর্মিলাসহ কমিটির সবাইকে সুন্দরভাবে কার্যক্রম পরিচালনার জন্য।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow