Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : ২ অক্টোবর, ২০১৬ ১৪:৪৯
মিসক্যারেজের মতো দুর্ভাগ্য তাড়া করেছে যেসব বলিউডি তারকাদের…
অনলাইন ডেস্ক
মিসক্যারেজের মতো দুর্ভাগ্য তাড়া করেছে যেসব বলিউডি তারকাদের…

একটি নারীর জন্য মা হওয়ার খবর সব থেকে আনন্দের। কিন্তু প্রেগন্যান্ট হওয়ার পর বিভিন্ন কারণের জন্য মিসক্যারেজ হয়ে যায় বহু নারীর। এই দুঃখজনক পরিস্থিতির মধ্যে বহু তারকাদেরও পড়তে হয়েছে।  

বলিউডের এমন অনেক তারকা রয়েছে যারা এই পরিস্থিতিতে পরেছেন। জানুন সেইসব সেলিব্রিটিদের কথা-

 

 

 

কাজল : 


বিয়ের এক বছরের মাথায় ২০০১ সালে কাজল প্রেগনেন্ট হন। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত সেই বাচ্চা Ectoscopic Pregnancy হওয়ার কারণে নষ্ট হয়ে যায়। অবশ্য এর এক বছর পরে কাজল ও অজয়ের প্রথম সন্তান কন্যা নাইশার জন্ম নেয়। এর কয়েক বছর পরে আরও একটি ছেলের জন্ম হয়।

 

শিল্পা শেঠি : 


রাজ কুন্দ্রার সঙ্গে বিয়ে হওয়ার কয়েক মাস পরেই শোনা যাই শিল্পা অন্তঃস্বত্ত্বা। কিন্তু এই বাচ্চার মিস ক্যারেজ হয়ে যায়। শোনা যায় প্রথম ট্রায়্মেস্টারেই এই বাচ্চাকে হারান উনি। তাই পরের বার প্রেগন্যান্ট হওয়ার পর দ্বিতীয় ট্রায়্মেস্টারে পা দেওয়ার আগে উনি প্রেগন্যন্সির কথা কাউকে জানান নি। ২১ মে ২০১২ সালে পুত্র ভিয়ান জন্মায়।

 

কিরণ রাও : 


আমির খানের সঙ্গে বিয়ের পর ২০০৯ সালে কিরণ প্রেগন্যান্ট হন। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত সেই বাচ্চা নষ্ট হয়ে যায়। আমির এই খবর নিজস্ব ব্লগে লিখে জানিয়েছিলেন সবাইকে। পরে ২০১১ সালে আই ভি এফ সারোগেসির মাধ্যমে আজাদ রাও খান জন্মায়।

 

নাতাশা ফারদিন খান : 


২০১২ সালে ফারদিন টুইট করে সবাইকে জানান তার স্ত্রী নাতাশা প্রেগন্যান্ট এবং যমজ বাচ্চা জন্মাবে তাদের বাড়িতে। কিন্তু এর কিছুদিনের মধ্যে মিস ক্যারেজ হয়ে যায় নাতাশার। এক বছর পরে ২০১৩ সালে একটা বাচ্চা মেয়ের জন্ম দেন নাতাশা।

 

ডিম্পি গাঙ্গুলী : 


২০১০ এ ছোট পর্দার রিয়েলিটি শো থেকে রাহুল মহাজন ও ডিম্পি গাঙ্গুলীর বিয়ে হয়। ২০১১ সালে ডিম্পি প্রেগন্যান্ট হন। কিন্তু প্রথম ট্রায়্মেস্টারে থাকাকালীন তার বাচ্চা নষ্ট হয়ে যায়। পরে অবশ্য রাহুলের সঙ্গে ডিম্পির বিবাহ বিচ্ছেদ হয়ে যায় এবং গতবছরে তিনি দ্বিতীয়বার বিয়ের পিঁড়িতে বসেন। কয়েকমাস আগে তার একটা কন্যা সন্তান ও জন্মেছে।

 

সায়রা বানু : 


বলিউডের বর্ষীয়ান অভিনেতা দীলিপ কুমার তার আত্মজীবনী 'দ্য সাবস্ট্যান্স অ্যান্ড দ্য শ্যাডো' বইটতে এই ঘটনার কথা উল্লেখ করেছেন। এই বই থেকে জানা যায় ১৯৭২ সালে তার স্ত্রী সায়রা অন্তঃস্বত্ত্বা হন। কিন্তু ৮ মাসের প্রেগনেন্সির সময় রক্ত চাপের সমস্যা থাকার ফলে মিসক্যারেজ হয়ে যায় তার। এর পরে আর কোনদিন মা হতে পারেননি উনি।

 

বিডি প্রতিদিন/২ অক্টোবর ২০১৬/হিমেল

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow