Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, রবিবার, ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : ১৩ আগস্ট, ২০১৭ ০১:৪২ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ১৩ আগস্ট, ২০১৭ ০২:২৫
এই ছবিকে শিক্ষামূলকই বা বলি কী করে!
তসলিমা নাসরিন
এই ছবিকে শিক্ষামূলকই বা বলি কী করে!

'টয়লেট, এক প্রেম কাহিনী' ছবিটা দেখলাম আজ। প্রায় আশি ভাগ লোক যে দেশে মাঠে জংগলে পেচ্ছাব পায়খানা করে, সে দেশে টয়লেট ব্যবহার করার পক্ষে একখানা চলচ্চিত্র নির্মাণ করা হয়েছে! সাধু উদ্যোগ। চলচ্চিত্রে চেষ্টা করা হয়েছে টয়লেট ব্যবহার করার ব্যাপারে মানুষকে সচেতন করতে। অর্থহীন নর্তন- কুর্দন আর মারামারির ছবির চেয়ে এসব শিক্ষামূলক ছবি ঢের ভালো।

তবে ছবিটিতে মূলত যা বলা হয়েছে তা হলো, মেয়েরা পাবলিকের সামনে ন্যাংটো হয়ে পেচ্ছাব পায়খানা করতে বসে, এটা অত্যন্ত লজ্জার ব্যাপার। মেয়েদের লজ্জা নিবারণ করতেই টয়লেটের প্রয়োজন অনুভব করে মানুষ। অতএব টয়লেট বানানো হয় গ্রামে। কিন্তু টয়লেট যে একই রকম জরুরি পুরুষের জন্য সে কথা বলা হয় না। এটি যে সবার স্বাস্থ্যের জন্য দরকার তাও বলা হয় না। মেয়েদের যত্র তত্র ন্যাংটো হওয়া বন্ধ করতেই টয়লেটের ব্যাপারে মানুষ রায় দিয়েছে।

পুরুষ ন্যাংটো হলে ক্ষতি নেই, মেয়েদের ন্যাংটো হলে ক্ষতি আছে - এই জ্ঞান মাথায় নিয়ে কেউ টয়লেট বানাচ্ছে দেখলে অস্বস্তি হয়।

মানুষ তো মাঠে ঘাটে পায়খানা করে পরিবেশকে যে দুষিত করছে, সে ব্যাপারে কিছু শিখলো না। এই শিক্ষাটাই যদি দেওয়া না হয়, তবে এই ছবিকে শিক্ষামূলকই বা বলি কী করে!

(লেখকের ফেসবুক থেকে সংগৃহীত)

আপনার মন্তব্য

up-arrow