Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শনিবার, ৪ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপডেট : ৩ জুন, ২০১৬ ২৩:২৮
মার্কিন প্রতিবেদন
সন্ত্রাসবাদের ঝুঁকিতে বাংলাদেশ
প্রতিদিন ডেস্ক

মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের ‘বৈশ্বিক সন্ত্রাসবাদ প্রতিবেদন-২০১৫’-এ বাংলাদেশ সম্পর্কে বলা হয়েছে, বৈশ্বিক সন্ত্রাসবাদের পটপরিবর্তনের মধ্যে বাংলাদেশ সন্ত্রাসবাদের বড় ঝুঁকিতে রয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘২০১৪ সালের তুলনায় ২০১৫ সালে বাংলাদেশ বহুমাত্রিক সন্ত্রাসী আক্রমণের শিকার হয়েছে। বিদেশি, সংখ্যালঘু, পুলিশ, ধর্মনিরপেক্ষ ব্লগার এবং প্রকাশকদের হত্যাকাণ্ডের পর আন্তর্জাতিক জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেট (আইএস) এবং আল-কায়েদার নাম এসেছে। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই এ দুটি আন্তর্জাতিক জঙ্গি    সংগঠন হামলার দায় স্বীকার করে বিবৃতি দিয়েছে। যদিও বাংলাদেশ সরকার দেশে জঙ্গি সংগঠনগুলোর উপস্থিতির কথা অস্বীকার করেছে বারবার। প্রতিটি হত্যাকাণ্ডের পর সরকার রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ এবং স্থানীয় সন্ত্রাসী সংগঠনের ওপর দায় চাপিয়েছে।’ প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, যুদ্ধ নেই এমন কয়েকটি দেশ রয়েছে— যারা সন্ত্রাসবাদের উচ্চ ঝুঁকিতে রয়েছে। দেশগুলো হলো— অ্যাঙ্গোলা, বাংলাদেশ, বুরুন্ডি, সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিক, আইভরি কোস্ট, ইথিওপিয়া, ইরান, ইসরায়েল, মালি, মেক্সিকো, মিয়ানমার, শ্রীলঙ্কা ও উগান্ডা। বিশ্বের দেশে দেশে অধিকাংশ প্রাণহানির জন্য জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেটস (আইএস), আল-কায়েদা, বোকো হারাম ও তালেবান দায়ী। এদিকে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, বিভিন্ন দেশে চরমপন্থিরা দেশে বিরাজমান হতাশাকে ব্যবহার করছে। সন্ত্রাসবাদী সংগঠনগুলোর মধ্যে মধ্যপ্রাচ্যের জঙ্গিসংগঠন আইএসের হুমকি সবচেয়ে বড়। মধ্যপ্রাচ্য, আফ্রিকা ও এশিয়াজুড়ে সহযোগী ও সমর্থকদের দৃষ্টি কাড়তে সক্ষম হয়েছে গ্রুপটি। ইরাক ও সিরিয়ায় ভূখণ্ড হারালেও লিবিয়া ও মিসরে শক্তিমত্তা বেড়েছে তাদের।




up-arrow