Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : মঙ্গলবার, ৭ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৬ জুন, ২০১৬ ২৩:৩৪
গ্রামে সন্ত্রাস ঢুকিয়েছে সরকার
ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি
গ্রামে সন্ত্রাস ঢুকিয়েছে সরকার

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অভিযোগ করেন, ‘দলীয় প্রতীকে ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচন দিয়ে সরকার তৃণমূল পর্যায়ে সন্ত্রাস ঢুকিয়ে দিয়েছে। বিভক্ত করে ফেলা হয়েছে গ্রামের মানুষ ও সমাজকে।’ গতকাল দুপুরে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার নারগুন ও বেগুনবাড়ীতে ইউপি নির্বাচন ঘিরে সহিংসতায় ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শনের সময় তিনি এসব কথা বলেন। মির্জা ফখরুল অভিযোগ করেন, ‘ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগ গায়ের জোরেও ভোট চুরি করে তাদের পক্ষে ফলাফল নিয়ে গেছে। তারা শুধু এখানেই ক্ষান্ত হয়নি। পরবর্তী সময়ে তাদের সন্ত্রাসীরা প্রতিপক্ষ বিএনপির নেতা-কর্মীদের ওপর হামলা চালিয়েছে। তাদের বাসা-ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে আক্রমণ করে ভাঙচুর করেছে। আমরা এর তীব্র নিন্দা জানাই।’ বিএনপি মহাসচিবের অভিযোগ, ‘এবারের ইউপি নির্বাচনের মধ্য দিয়ে আবার প্রমাণিত হয়েছে, আওয়ামী লীগের অধীনে ও বর্তমান নির্বাচন কমিশনের পরিচালনায় কোনো নির্বাচনই সুষ্ঠু হতে পারে না। আসলে এই দল গণতন্ত্রে বিশ্বাস করে না। তারা বিশ্বাস করে, এ  দেশ শাসনের অধিকার শুধু তাদেরই আছে। অন্য কোনো দল এ দেশ পরিচালনার অধিকার রাখে না। এবার তারা গণতন্ত্রের একটা লেবাস পরে বাকশালের মতো একদলীয় শাসনব্যবস্থা প্রবর্তন করতে যাচ্ছে।’ দেশের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি সম্পর্কে বিএনপির এই নেতা বলেন, দেশে সন্ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করা হয়েছে। প্রতিদিন দেশের মানুষ খুন হচ্ছে। একজন এসপির স্ত্রীকে প্রকাশ্যে খুন করা হয়েছে। এমন সন্ত্রাসের মধ্য দিয়ে তারা দেশকে ধ্বংসের দিকে ঠেলে দিচ্ছে। তিনি আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীদের প্রতি অনুরোধ করে বলেন, সন্ত্রাসের রাস্তা পরিহার করে শান্তিপূর্ণ পরিবেশ তৈরি করুন। অন্যথায় জনগণই আপনাদের দাঁতভাঙা জবাব দেবে। প্রস্তাবিত বাজেট সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘এটা দুর্ভাগ্য যে, বাংলাদেশ একটা লুটপাটের স্বর্গরাজ্যে পরিণত হয়েছে। গত বছরের তুলনায় এবারের বাজেটের পরিধি ৩০ ভাগ বাড়ানো হয়েছে। কিন্তু তারা কীভাবে বাজেটের অর্থ সংগ্রহ করে বাজেট বাস্তবায়ন করবে, সে সম্পর্কে কোনো নির্দেশনা নেই। এ বাজেট বাড়ানোর প্রধান লক্ষ্য হলো সরকারি অর্থ ব্যয় করে দুর্নীতি ও লুটপাট করা।’

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

up-arrow