Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ অক্টোবর, ২০১৭

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ অক্টোবর, ২০১৭
প্রকাশ : শনিবার, ২৫ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২৪ জুন, ২০১৬ ২৩:৩২
সন্ত্রাসবিরোধী সহযোগিতা বাড়াবে ঢাকা-ওয়াশিংটন
প্রতিদিন ডেস্ক

সন্ত্রাসবিরোধী কার্যক্রমে ঢাকা এবং ওয়াশিংটনের মধ্যকার সহযোগিতা আরও বৃদ্ধির ব্যাপারে ঐকমত্যে পৌঁছেছে এ দুটি দেশ। ওয়াশিংটন ডিসির স্বরাষ্ট্র বিভাগে আয়োজিত বাংলাদেশ-যুক্তরাষ্ট্রের পঞ্চম অংশীদারিত্ব মূলক দুই দিনব্যাপী বৈঠকের প্রথম দিন বৃহস্পতিবার এই সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

বাংলাদেশ দূতাবাস থেকে প্রেরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি জানানো হয়।

নিরাপত্তা সহযোগিতা, উন্নয়ন ও শাসনগত সহযোগিতা এবং বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সহযোগিতা— এ তিনটি বিষয়ের ওয়ার্কিং গ্রুপ বৈঠকে মিলিত হয়। দ্বিপক্ষীয়, আঞ্চলিক ও বৈশ্বিক পারস্পরিক স্বার্থ নানা বিষয়ে গভীর আলোচনা হয়। উভয় দেশের প্রতিনিধিরা সন্ত্রাস এবং সহিংস চরমপন্থার বিরুদ্ধে সক্ষমতা বাড়ানোর মাধ্যমে সহযোগিতা আরও বৃদ্ধি করতে রাজি হয়। বিদ্যমান এবং নতুন নতুন ক্ষেত্রে সহযোগিতার ক্ষেত্রের বিস্তার এবং তা চলমান রাখার প্রয়োজনীয়তার বিষয়ে জোর দেয় উভয় দেশ। জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা মিশনে প্রায় তিন দশক ধরে বাংলাদেশের মূল্যবান অবদানের ভূয়সী প্রশংসা করে যুক্তরাষ্ট্র। বাংলাদেশও বিগত সাড়ে চার দশক ধরে কৃষি, উচ্চশিক্ষা, জলবায়ু পরিবর্তন এবং স্বাস্থ্যসহ আর্থ-সামাজিক নানা ক্ষেত্রে ইউএসএআইডির সহযোগিতার প্রশংসা করে। মিয়ানমারের অনিবন্ধিত নাগরিকের একটি বিশাল সংখ্যককে কয়েক দশক ধরে জায়গা দেওয়ার জন্য বাংলাদেশের প্রশংসা করে যুক্তরাষ্ট্র। বাংলাদেশি অভিবাসীদের এ দেশের সম্ভাবনাময় খাতগুলোতে বিনিয়োগের মাধ্যমে আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে অবদান রাখতে উৎসাহিত করতে সম্মত হয় উভয়পক্ষ।

বাংলাদেশের ব্লু ইকোনমি বা সামুদ্রিক অর্থনীতিতে সহায়তার আগ্রহ দেখায় যুক্তরাষ্ট্র। এ ছাড়াও আরএমজি খাতে সহযোগিতা অব্যাহত রাখারও কথা বলে তারা। পররাষ্ট্র সচিব মো. শহিদুল হক ‘বাংলাদেশ বাই ২০৩০/৩৫ : চ্যালেঞ্জেস অ্যান্ড প্রোসপেক্টস’ নামের একটি প্রেজেন্টেশন সেখানে তুলে ধরেন।

up-arrow