Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ২২ জানুয়ারি, ২০১৭

প্রকাশ : বুধবার, ২৯ জুন, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২৮ জুন, ২০১৬ ২৩:৩৯
আইনের শাসন প্রশ্ন নয় গুলিবিদ্ধ
নিজস্ব প্রতিবেদক
আইনের শাসন প্রশ্ন নয় গুলিবিদ্ধ

জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, সুশাসন আজ প্রশ্নবিদ্ধ নয়, সুশাসন আজ গুলিবিদ্ধ। তিনি  দেশকে চলমান কঠিন অবস্থা থেকে উদ্ধার করার জন্য সবাইকে নিয়ে জাতীয় সংলাপ করার আহ্বান জানিয়েছেন। এরশাদ গতকাল জাতীয় সংসদে প্রস্তাবিত বাজেটের ওপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়ে এ আহ্বান জানান। এ সময় সংসদে সংসদনেতা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ উপস্থিত ছিলেন। হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ করব, যে রাজনীতিবিদরা সন্ত্রাসে বিশ্বাস করে না, জ্বালাও-পোড়াও রাজনীতিতে বিশ্বাস করে না তাদের সবাইকে নিয়ে জাতীয় সংলাপের আয়োজন করুন। আলোচনা করে কঠিন সংকট থেকে দেশকে উদ্ধারের ব্যবস্থা করুন। দেশের বর্তমান পরিস্থিতিকে ‘কঠিন’ বলে অভিহিত করে সরকারের উদ্দেশে তিনি বলেন, আসুন দেশকে এই অবস্থা থেকে পরিত্রাণ দেওয়ার জন্য সবাই মিলে ঐকমত্য হই।

এরশাদ আরও বলেন, আজ বিবেকের দায়ে অনেক কথা বলতে হচ্ছে। লোকজন কি নিরাপদে কর্মস্থলে আসতে পারে। মা কি তার সন্তানকে নিরাপদে স্কুলে পাঠাতে পারেন? হিন্দু পুরোহিত, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক কেউ কি নিরাপদ বোধ করছেন? প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত নিজেই নিজের প্রশ্নের জবাব দিয়ে বলেন, আমরা কেউ নিরাপদে নেই। দেশের কেউই নিরাপদে নেই। সন্ধ্যার পর ছেলে বাড়িতে না ফিরলে শঙ্কিত হয়ে পড়েন বাবা-মা। এভাবে বেশি দিন চলতে পারে না। তিনি বলেন, পত্রিকায় দেখলাম তনুর মা প্রশ্ন করেছেন গরিব বলে কি আমরা বিচার পাব না? সাগর-রুনির হত্যার কি বিচার হয়েছে? তাহলে তারা কি বিচার পাবে না। একটি গুপ্ত হত্যারও কি বিচার হয়েছে? এমন নজির আপনি দেখাতে পারবেন? যে সমাজে একজন এসপির স্ত্রীও নিরাপদ নয়, সেখানে সাধারণ মানুষের কি অবস্থা হতে পারে। জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান দেশে গুপ্তহত্যার পরিসংখ্যান তুলে ধরে বলেন, গত মার্চ হতে এ পর্যন্ত ১৩ জন গুপ্তহত্যার শিকার হয়েছে। এ দায়িত্ব কি সরকারকে নিতে হবে না? অন্যদিকে ২০০৪ সাল থেকে আজ পর্যন্ত বন্দুকযুদ্ধে ১ হাজার ৭১৫ জন নিহত হয়েছে। এসব কি সুশাসনের ইঙ্গিত বহন করে? আমি সেদিন বলেছিলাম এসব সন্তানহারা মায়ের চোখের পানিতে আমরা ভেসে যাব। তিনি বলেন, ক্রসফায়ার চালু করেছিল বিএনপি। ২০০৪ সালে প্রথম ক্রসফায়ার চালু করা হয়, কেন করেছিল? কারণ এদেশে আইনের শাসন ছিল না, আইনের শাসন ছিল না বলেই বিচারহীনতার সংস্কৃতি শুরু হয়েছিল। ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট প্রকাশ্য দিবালোকে আওয়ামী লীগের সমাবেশে গ্রেনেড হামলা করে সাধারণ মানুষকে হত্যা করা হয়েছে, যাদের বিচার এখনো হয়নি। সেই বিচারহীনতার সংস্কৃতি আমরা এখনো বহন করে চলছি। প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত এরশাদ বলেন, আমাদের প্রধান বিচারপতি একটি অনুষ্ঠানে বলেছিলেন আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা না হলে এ দেশে বিনিয়োগ হবে না। যখন দেশের প্রধান বিচারপতি আইনের শাসন সম্পর্কে প্রশ্ন তোলেন তখন সাধারণ মানুষের আইন পাওয়ার উপায় থাকে না। মানুষ চোখে অন্ধকার দেখে। সরকারের সব উন্নয়ন কর্মকাণ্ড প্রতিনিয়ত ম্লান হয়ে যাচ্ছে। সুশাসন আর উন্নয়ন অঙ্গাঙ্গীভাবে জড়িত। সুশাসন ছাড়া উন্নয়নের সুবাতাস জনগণ পায় না। এরশাদ প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, আপনি অনেক ভালো কাজ করছেন। পদ্মা সেতু করছেন, মেট্রোরেল করছেন এসব খুব ভালো কাজ। কিন্তু আপনি ক্ষমতা বিকেন্দ্রীকরণের জন্য প্রাদেশিক সরকার চালু করুন। দেখবেন আপনার চাপ অনেক কমে গেছে। দেশে উন্নয়নের গতি বেড়ে গেছে। আমি উপজেলা পরিষদ চালু করেছিলাম, এটি এখন সুফল দিচ্ছে। আপনি প্রাদেশিক পরিষদ চালু করুন, দেখবেন জনগণ আপনাকে চিরদিন মনে রাখবে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow