Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : শুক্রবার, ১ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৩০ জুন, ২০১৬ ২৩:৪১
ক্রসফায়ারে র‌্যাবের চেয়ে এগিয়ে পুলিশ
আইন ও সালিশ কেন্দ্রের প্রতিবেদন
নিজস্ব প্রতিবেদক
ক্রসফায়ারে র‌্যাবের চেয়ে এগিয়ে পুলিশ

ক্রসফায়ারে র‌্যাবের চেয়ে এগিয়ে পুলিশ। গত ছয় মাসে ‘ক্রসফায়ারে’ ৬২ জন মারা গেছেন, এর মধ্যে ৩৭ জনের মৃত্যুতে পুলিশ জড়িত। ৩৭ জনের মধ্যে ৩০ জন থানা পুলিশের ‘ক্রসফায়ারে’ মারা গেছেন। আর ডিবি পুলিশের ‘ক্রসফায়ারে’ নিহত হয়েছেন সাতজন। র‌্যাবের ‘ক্রসফায়ারে’ ২৪ জন এবং বিজিবির ‘ক্রসফায়ারে’ একজন নিহত হয়েছেন। এই সময়ে পুলিশের ‘নির্যাতনে’ পাঁচজন, ডিবি পুলিশের ‘নির্যাতনে’ একজন, পুলিশের গুলিতে পাঁচজন ও বিজিবির গুলিতে একজন মারা যান। গতকাল প্রকাশিত মানবাধিকার সংগঠন আইন ও সালিশ কেন্দ্রের (আসক) এক পরিসংখ্যানে উঠে এসেছে এসব তথ্য।

প্রতিবেদনে থানা হাজতে ‘অসুস্থ’ হয়ে চারজন এবং ‘রহস্যজনকভাবে’ একজনের মৃত্যুর তথ্যও উঠে আসে। ২০০৪ সালে র‌্যাব গঠনের পর পুলিশের এই বিশেষ বাহিনীর অভিযানে কথিত বন্দুকযুদ্ধে বা ক্রসফায়ারে নিহতের ঘটনাগুলো নিয়ে মানবাধিকার সংগঠনগুলো সোচ্চার। বিচারবহির্ভূত এই হত্যাকাণ্ড নিয়ে সমালোচনার মধ্যেই জঙ্গি ও সন্ত্রাসী দমনে পুলিশের সাঁড়াশি অভিযানের মধ্যে কয়েকজন কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত হন।

আসক বলছে, গত ছয় মাসে সাদা পোশাকে এসে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পরিচয়ে ৫০ জনকে তুলে নেওয়া হয়। এর মধ্যে ছয়জনের লাশ পরে পাওয়া যায়, দুজন ফেরত আসে, চারজনকে গ্রেফতার দেখানো হয়। অন্যদের কোনো খবর মেলেনি। ছয় ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সহিংসতার ৬৯৩টি ঘটনায় ১৪২ জন নিহত এবং ৯ হাজার ৮৫ জন আহত হন। এর বাইরে রাজনৈতিক সহিংসতার ১১৮টি ঘটনায় ১২ জন নিহত এবং এক হাজার ২০৫ জন আহত হন।

বাংলাদেশ মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থা (বিএমবিএস) : গতকাল বিএমবিএস তাদের এক প্রতিবেদন প্রকাশ করে। এতে তারা বলছে, জুন মাসে ক্রসফায়ারে মৃত্যু হয় ২০ জনের। এর মধ্যে পুলিশের ক্রসফায়ারে নিহত হয় ১৬ জন, র‌্যাব কর্তৃক নিহত চারজন। ১৮ জুন মাদারীপুরে শিক্ষক হত্যাচেষ্টার মামলার অভিযুক্ত গোলাম ফাইজুল্লাহ ফাহিম পুলিশ রিমান্ডে থাকা অবস্থায় বন্দুকযুদ্ধে নিহত হন। পুলিশ, র‌্যাব ও যৌথ বাহিনীর সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে যেখানে জানুয়ারি থেকে মে পর্যন্ত পাঁচ মাসে ৩৩ জন নিহত হয়, সেখানে জুন মাসেই নিহত হয় ২০ জন।

জুন মাসে দেশের সামগ্রিক মানবাধিকার পরিস্থিতি আশানুরূপ নয় বলে মনে করে মানবাধিকার প্রতিষ্ঠান বিএসবিএস। জুন মাসে ক্রসফায়ারে নিহতের ঘটনা ছিল উদ্বেগজনক, যা মানবাধিকারের সুস্পষ্ট লঙ্ঘন ও আইনের শাসনের পরিপন্থী।

up-arrow