Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : রবিবার, ৩ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৩ জুলাই, ২০১৬ ০০:০১
সাতক্ষীরা কিশোরগঞ্জে দুই পুরোহিতকে হত্যার চেষ্টা
প্রতিদিন ডেস্ক

ঝিনাইদহে মন্দিরের হিন্দু সেবায়েতকে হত্যার এক দিন পর এবার সাতক্ষীরা সদর উপজেলার শ্রী শ্রী ব্রহ্মরাজপুর রাধাগোবিন্দ মন্দিরের পুরোহিত ভবসিন্ধু বরকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এ সময় মন্দিরের      পাহারায় থাকা দুই গ্রামপুলিশকে বেঁধে রাখে তারা। পুলিশ রক্তাক্ত জখম অবস্থায় পুরোহিতকে উদ্ধার করে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। পুরোহিতের ঘাড়ে, বুকে ও হাতেসহ শরীরের মোট চারটি স্থানে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা চালানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। তবে ছয় ঘণ্টা সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়ার পর আহত পুরোহিত ভবসিন্ধু বরের অবস্থার অবনতি হলে বেলা পৌনে ১১টায় তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় হেলিকপ্টারযোগে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে নেওয়া হয়।

এ সময় সাতক্ষীরার জেলা প্রশাসক আবুল কাশেম মো. মহিউদ্দিন, পুলিশ সুপার চৌধুরী মঞ্জুরুল কবির পিপিএম বার, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) এ এফ এম এহতেশামুল হক, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শাহ আবদুস সাদীসহ প্রশাসনের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। এর আগে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে আহত ভবসিন্ধু বরকে নিতে হেলিকপ্টারটি ঢাকা থেকে সাতক্ষীরা স্টেডিয়ামে পৌঁছায়।

এর আগে ভোর সাড়ে ৬টার দিকে পুরোহিত ভবসিন্ধু বরের খোঁজখবর নিতে খুলনা থেকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ছুটে আসেন পুলিশের খুলনা বিভাগের ডিআইজি এস এম মনিরুজ্জামান মনি। সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে চিকিৎসা নেওয়া আহত পুরহিতের অবস্থা আশঙ্কাজনক দেখে তাত্ক্ষণিক উন্নত চিকিৎসাসেবার জন্য তিনি সরকারের উচ্চপর্যায়ে কথা বলেন এবং দ্রুত চিকিৎসাসেবা প্রদানের জন্য হেলিকপ্টারের ব্যবস্থা করেন। সাতক্ষীরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এমদাদ শেখ এ খবর নিশ্চিত করেছেন। তবে পুরোহিতের ওপর হামলার ঘটনায় পুলিশ এখনো কাউকে আটক করতে পারেনি।

পুরোহিতের স্ত্রী সুমিত্রা বর ও সাতক্ষীরা সদর থানার ওসি এমদাদ শেখ বলেন, ‘আজ (শনিবার) ভোর রাত সাড়ে ৩টার দিকে পাঁচ-ছয়জন দুর্বৃত্ত মন্দিরের পাহারায় নিয়োজিত দুই চৌকিদার বাবু ও ইউনুসের কাছ থেকে মোবাইল ও টর্চলাইট কেড়ে নিয়ে মারধর করে তাদের রশি দিয়ে বেঁধে ফেলে। পরে তারা মন্দিরের একটি দরজা ভেঙে ঘরে ঢুকে পুরোহিত ভবসিন্ধুকে উপর্যুপরি কুপিয়ে রক্তাক্ত অবস্থায় মৃত ভেবে ফেলে রেখে চলে যায়। ’ এ সময় পুরোহিত ভবসিন্ধু বরের স্ত্রী সুমিত্রা ও ছেলে জগন্নাথ বরের আর্তচিৎকারে এলাকাবাসী ঘটনাস্থলে এসে পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ আহত অবস্থায় পুরোহিত ভবসিন্ধু বরকে (৫০) উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসে। আহত পুরোহিতের ছেলে স্থানীয় ব্রহ্মরাজপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির ছাত্র জগন্নাথ বর বলেন, ‘রাতে ওরা বাবাকে ছুরি দিয়ে ও লাঠি দিয়ে খুব পিটাচ্ছিল। মা বলছিল তোমরা কারা। আমার স্বামীকে মারপিট করছ কেন। তখন লোকগুলো বলে, জানতে হবে না। জানতে গেলে জান থাকবে না। পরে বাবাকে মাটিতে ফেলে রেখে ঘরবাড়ি ও মন্দির তছনছ করে সোনা-গয়না নিয়ে তারা পালিয়ে যায়। ’ ব্রহ্মরাজপুর ইউপি চেয়ারম্যান মো. শহিদুল ইসলাম জানান, পুরোহিত ভবসিন্ধুর বাড়ি সাতক্ষীরা সদর উপজেলার বাজুয়াডাঙ্গা গ্রামে। তিনি ওই গ্রামের হাজারি লাল বরের ছেলে। মন্দিরের একটি কক্ষে স্ত্রী সুমিত্রা বর ও আট বছরের ছেলে জগন্নাথ বরকে নিয়ে থাকতেন তিনি। তাদের সামনেই তাকে কুপিয়ে আহত করে দুর্বৃত্তরা।

এদিকে পুরোহিত ভবসিন্ধু বরকে কুপিয়ে হত্যাচেষ্টার ঘটনায় পুলিশের খুলনা বিভাগের ডিআইজি এস এম মনিরুজ্জামান বিপিএম বাংলাদেশ প্রতিদিনকে জানান, পুরোহিতের ঘাড়ে, বুকে ও হাতে ধারালো অস্ত্র দিয়ে হত্যার উদ্দেশে কুপিয়েছে দুর্বৃত্তরা। সন্ত্রাসীদের ধরতে অভিযান শুরু করেছে পুলিশ। পুরোহিত ভবসিন্ধু বরকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা বিষয়ে তদন্ত করা হবে। এদিকে বেলা ১১টার দিকে সাতক্ষীরা জেলা আওয়ামী লীগের একটি প্রতিনিধিদল ঘটনাস্থল রাধাগোবিন্দ মন্দির পরিদর্শন করেছে।

কিশোরগঞ্জ : কিশোরগঞ্জে এক সেবায়েতের ওপর সন্ত্রাসী হামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। শহরের নগুয়া এলাকার বিবেকানন্দ পাঠাগারের সেবায়েত পলাশ চক্রবর্তীর (৪৬) ওপর শুক্রবার রাত ১টার দিকে এ হামলার ঘটনা ঘটে বলে তিনি অভিযোগ করেছেন। সেবায়েত পলাশ জানান, রাত ১টার দিকে বাসার গেটে শব্দ হলে প্রথমে তিনি কুকুরের শব্দ মনে করেন। পরে শাবল নিয়ে বের হলে এক সন্ত্রাসী চাপাতি দিয়ে তার ওপর হামলা চালায়। তিনি শাবল দিয়ে হামলা প্রতিহত করেন। একপর্যায়ে তার সঙ্গে হামলাকারীর ধস্তাধস্তি হয় বলে তিনি জানান। এক ফাঁকে হামলাকারী চলে যায়। এতে সেবায়েত তার একটি হাতে সামান্য আঘাত পেয়েছেন বলে জানান। এ ব্যাপারে সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মীর মোশারফ হোসেন বলেন, পুলিশকে জানানো হয়েছে পরদিন (শনিবার) বেলা সাড়ে ১১টায়। খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে তিনিসহ পুলিশের আরও কয়েকজন কর্মকর্তা ও ডিবি পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক পুলিশ কর্মকর্তা ঘটনাটিকে রহস্যজনক বলে জানান।

বরগুনা : বরগুনা পৌর শহরের কড়ইতলা কালিবাড়ী এলাকায় রাধাগোবিন্দ মন্দিরের পুরোহিত রামপ্রসাদ চক্রবর্তী সঞ্জয়কে চিঠি দিয়ে হত্যার হুমকি দিয়েছে ‘পুরোহিত হত্যা সংগঠন’ নামের একটি সংগঠন। গতকাল সকালে এ হুমকির চিঠিটি রাধাগোবিন্দ মন্দিরের ভেতর পড়ে থাকতে দেখতে পান ওই পুরোহিত। ওই চিঠিতে বিষয়টি কাউকে জানালে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তাকে মেরে ফেলার কথাও বলা হয়েছে। চিঠিতে বলা হয়েছে, ‘পুরোহিত, তোর মৃত্যু আমাদের হাতে। তোর মাথা নেব, এই আমাদের ইচ্ছা। আমরা এখন কিলিং মিশনে আছি বরগুনা জেলায়। কাউকে কিছু বললে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তোর মৃত্যু হবে। ’ চিঠি পাওয়ার পর হুমকিদাতাদের ভয়ে বিষয়টি চেপে যেতে চান পুরোহিত। পরে স্থানীয়দের পরামর্শে বিষয়টি বরগুনা সদর থানা ও পুলিশ সুপার বিজয় বসাককে অবহিত করেন তিনি। তবে এ ঘটনায় পুরোহিতের পক্ষ থেকে কোনো মামলা হয়নি। পুরোহিত রামপ্রসাদ চক্রবর্তী বলেন, ‘চিঠি পাওয়ার পর থেকে আমি পরিবার-পরিজন নিয়ে আতঙ্কে আছি। আমার দুই ছেলে ও স্ত্রী সবাই এ মন্দিরের পাশে থাকে। এখন প্রতিটি মুহূর্ত আমাদের আতঙ্কের মধ্যে কাটছে। ’ এ বিষয়ে বরগুনার পুলিশ সুপার বিজয় বসাক বলেন, ‘ঘটনাটি তারা আমাকে মৌখিকভাবে জানিয়েছে। ইতিমধ্যে আমি মন্দির এলাকায় নিরাপত্তা জোরদার করেছি। বিষয়টি সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে তদন্ত করা হচ্ছে। ’

up-arrow