Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, রবিবার, ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : সোমবার, ১১ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১০ জুলাই, ২০১৬ ২৩:৫১
শোলাকিয়ায় জঙ্গি হামলা
আতঙ্ক কাটেনি, চার দিন পর মামলা
কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি

কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়ায় জঙ্গি হামলার চার দিন পর গতকাল সদর মডেল থানায় মামলা হয়েছে। পাকুন্দিয়া থানার পরিদর্শক মোহাম্মদ সামসুদ্দীন বাদী হয়ে মামলাটি করেন। তিনি ঈদের দিন শোলাকিয়ার ঘটনাস্থলে দায়িত্ব পালন করছিলেন।

মামলায় চিহ্নিত দুজনসহ অজ্ঞাতনামা আরও কয়েকজনকে আসামি করা হয়েছে। এ দুজন হলেন দিনাজপুর জেলার ঘোড়াঘাট উপজেলার রানীগঞ্জের আবদুল হাইয়ের ছেলে শরীফুল ইসলাম ওরফে শফিউল ইসলাম ওরফে সাইফুল ইসলাম এবং কিশোরগঞ্জ শহরের পশ্চিম তারাপাশা এলাকার আবদুস সাত্তারের ছেলে জাহিদুল হক তানিম। এর মধ্যে শরীফুল র‌্যাবের হাতে এবং জাহিদুল পুলিশের হাতে আটক রয়েছেন। সন্ত্রাসবিরোধী আইনে মামলাটি করা হয়েছে। মামলা তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে কিশোরগঞ্জ সদর মডেল থানার পরিদর্শক মোহাম্মদ মুর্শেদ জামানকে। জানতে চাইলে তিনি বলেন, যত দ্রুত সম্ভব মামলাটির তদন্তকাজ শেষ করা হবে।

এদিকে শোলাকিয়ায় জঙ্গি হামলার ঘটনার চার দিন পরও আতঙ্ক কাটেনি এলাকাবাসীর। আতঙ্কে অনেকেই বিশেষ কাজ ছাড়া ঘর থেকে বের হচ্ছেন না।

ঘটনার পর থেকে স্থানীয় আজিমউদ্দিন উচ্চবিদ্যালয়ে পুলিশ মোতায়েন থাকায় গতকাল স্কুলে ছুটি দেওয়া হয়েছে। ঈদের পর গতকালই প্রথম স্কুল খুলেছিল। জঙ্গি হামলার কারণে লেখাপড়া ব্যাহত হওয়ার কথা জানিয়েছে স্কুলটির শিক্ষার্থীরা। অন্যদিকে বন্দুকযুদ্ধের সময় নিহত ঝরনা রানীর শ্রাদ্ধানুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে তার বাড়িতে। ঝরনার স্বামী গৌরাঙ্গ নাথ ভৌমিক জানান, স্বাভাবিক মৃত্যু হলে ধর্মীয় নিয়মানুযায়ী ১১ দিনের মাথায় শ্রাদ্ধানুষ্ঠান করা হতো। যেহেতু এটা অস্বাভাবিক মৃত্যু, সে কারণে চার দিনের মাথায় শ্রাদ্ধানুষ্ঠান করা হয়েছে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow