Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : সোমবার, ১১ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১০ জুলাই, ২০১৬ ২৩:৫৯
জঙ্গি মোকাবিলায় সংলাপ প্রয়োজন
নিজস্ব প্রতিবেদক, রংপুর
জঙ্গি মোকাবিলায় সংলাপ প্রয়োজন

জঙ্গি তত্পরতা মোকাবিলায় সংলাপের প্রয়োজন বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ। গতকাল দুপুরে রংপুর নগরীতে নিজ বাসভবন পল্লী নিবাসে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, সরকারকে খুঁজে বের করতে হবে কীভাবে তারা সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করবেন এবং এ যুদ্ধে জয়ী হবেন। এরশাদ বলেন, ইন্টেলিজেন্ট ইজ ফিইলিউর। গুলশানের মতো জায়গায় এত অস্ত্র নিয়ে কয়েকটা ছেলে আসল আমরা খবর পেলাম না, ইন্টেলিজেন্ট খবর পেল না; এটা হতে পারে না। ইন্টেলিজেন্ট ইজ ফেইলিউর। জঙ্গি তত্পরতা মোকাবিলায় সংলাপের প্রয়োজন বলে মনে করেন তিন দিনের সফরে রংপুরে আসা সাবেক এই সামরিক শাসক। তিনি বলেন, জঙ্গিদের টার্গেট বিদেশি নাগরিক ও অন্য ধর্মের মানুষ। সরকার বিদেশিদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে না পারলে দেশি-বিদেশি উদ্যোক্তারা আসবে না। গুলশান ট্র্যাজেডিতে বিদেশিরা আস্থা হারিয়ে ফেলবে। দেশের অর্থনীতিতে এ ঘটনার প্রভাব পড়বে। এরশাদ বলেন, জঙ্গিদের কাছে কোনো ধর্মের মানুষই আজ নিরাপদ নয়। নিশ্চিন্তে ধর্মীয় অনুষ্ঠান পালন করতেও শঙ্কা। কখন কোথায় কোন ঘটনা ঘটবে সেটা আল্লাহ ছাড়া কেউ বলতে পারে না। দেশের মানুষ চরম উদ্বেগ-উৎকণ্ঠায় দিন কাটাচ্ছে। তিনি বলেন, আমরা বৈদেশিক সাহায্য চাই না। আমরা গর্বিত জাতি। যুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করেছি। তাই সন্ত্রাসীরা যে দেশেরই হোক না কেন আমরা ঐক্যবদ্ধভাবে তা মোকাবিলা করব। আমরা কোনো বিদেশি হস্তক্ষেপ চাই না। সন্ত্রাস ও জঙ্গি দমনে যা যা করার আমরা নিজেরাই করব। অন্যের কোনো সহযোগিতা প্রয়োজন নেই। তাই উদ্ভূত পরিস্থিতিতে সব রাজনৈতিক দলের অংশগ্রহণে সংলাপের প্রয়োজন জরুরি। সবাই একসঙ্গে বসলে বিশ্ববাসী দেখবে জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে তারা এক কাতারে সামিল হয়েছে। এরশাদ বলেন, উপযুক্ত কর্মসংস্থানের সুযোগ না থাকায় দেশের শিক্ষিত যুবকরা আজ বিপথগামী হয়ে উঠছে। অর্থের লোভে অনেক যুবক জঙ্গি সংগঠনে যুক্ত হয়ে দেশে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড চালাচ্ছে। তারা অন্যকে মারছে, নিজেরাও মরছে। এদের ফেরাতে হবে। পরিবারের সন্তানরা কোথায় যায়, কি করে তার খোঁজ রাখার জন্য অভিভাবকদের প্রতিও আহ্বান জানান এরশাদ। এ সময় এরশাদের ব্যক্তিগত সহকারী খালেদ আখতার, জেলা জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক মোফাজ্জল হোসেন মাস্টার, সদস্য সচিব হোসেন মকবুল শাহরিয়ার আসিফ, মহানগর আহ্বায়ক মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow