Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ২৩ অক্টোবর, ২০১৭

ঢাকা, সোমবার, ২৩ অক্টোবর, ২০১৭
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ১২ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১২ জুলাই, ২০১৬ ০০:০১
যোগাযোগ খাতে কোনো প্রকল্প থেমে নেই : কাদের
নিজস্ব প্রতিবেদক
যোগাযোগ খাতে কোনো প্রকল্প থেমে নেই : কাদের

সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সাম্প্রতিক সময়ে জঙ্গি হামলায় দেশের যোগাযোগ খাতে কোনো প্রভাব পড়বে না। গুলশান ও শোলাকিয়ায় জঙ্গি হামলার পরেও কোনো প্রকল্পই থেমে নেই।

সারা দেশের যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নের আমরা আন্তরিকভাবে কাজ করছি। এজন্য আগামী ঈদুল আজহা পর্যন্ত মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের ছুটি ও বিদেশ সফর বাতিল করা হয়েছে। গতকাল সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে ঈদুল ফিতর পরবর্তী পর্যালোচনা শেষে প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি এসব কথা বলেন। ওবায়দুল কাদের বলেন, পদ্মা সেতু, মেট্রোরেলসহ সব প্রকল্প চলমান রয়েছে। আমাদের মেট্রোরেল-৬ এর নির্মাণকাজ চলছে। গুলশান হামলায় নিহত জাপানিরা মেট্রোরেল লাইন-১ ও ৫ এর সম্ভাব্যতা যাচাইকারী ছিলেন। এ দলের প্রধান আহত অবস্থায় জাপানে ফিরে  গেছেন। তিনি জাপানের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সেখানকার সাংবাদিকদের জানিয়েছেন সুস্থ হয়েই তিনি বাংলাদেশে কাজে যোগ দেবেন। তিনি আরও বলেন, মেট্রোরেল প্রকল্পের জাপানি প্রকল্প প্রধান রবিবার সচিবালয়ে এসে আমার সঙ্গে বৈঠক করেছেন। তারা আমাদের বলেছেন বাংলাদেশের মেট্রোরেল প্রকল্প সম্পর্কে জাপান সরকার খুব আন্তরিক। অল্প সময়ের মধ্যেই নিহত জাপানি ব্যক্তিদের জাগায় নতুন লোক নিয়োগ দিয়ে কাজ শুরু করবে জাইকা। এ ছাড়া সরকারের যেসব প্রকল্পে বিদেশিরা কর্মরত রয়েছেন তাদের বাসস্থান ও যাতায়াত ব্যবস্থায় সর্বোচ্চ নিরাপত্তার ব্যবস্থা নিশ্চয়তা দিয়েছে সরকার। ওবায়দুল কাদের বলেন, আগামী পবিত্র ঈদুল আজহা পর্যন্ত সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের বিদেশ যাত্রাসহ সব ধরনের ছুটি বাতিল করা হয়েছে। আমি কাউকে বিদেশ যেতে দেব না। দেশে অনেক কাজ পড়ে আছে। কাজ করেন। আমি আপনাদের কাছে কমিশন চাই না। পার্সেন্টেজ চাই না। কেবল কাজ চাই। আমি গত এক বছরে একদিনও ছুটি নেইনি। মেট্রোরেলের কাজের জন্য জাইকার সঙ্গে বৈঠক করতে জাপান গিয়েছিলাম। এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের কাজের ঠিকাদারের সঙ্গে আলোচনা করতে ব্যাংককে গিয়েছিলাম। আর গিয়েছিলাম ম্যানিলায় আমাদের উন্নয়ন অংশীদার এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের (এডিবি) সঙ্গে চুক্তি করতে। গত সাত বছরে যুক্তরাজ্য-যুক্তরাষ্ট্রে যাইনি। অতএব কাজ করুন। সেতুমন্ত্রী বলেন, এবারের ঈদে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে যানজটের জন্য কর্মকর্তাদের গাফিলতি দায়ী। এত টাকা খরচ করে নবীনগর-চন্দ্রা মহাসড়ক চার লেন বানিয়ে কী লাভ হয়েছে? একটু বৃষ্টি হলেই চার লেন খানাখন্দকে ভরে যায়। এ অবস্থার জন্য দায়ী সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতেও সচিবকে নির্দেশ দিয়েছি। এদিকে মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ইতিমধ্যে পদ্মা সেতু ৩৬ শতাংশ কাজের অগ্রতির পাশাপাশি ১৮টি পাইলিংয়ের কাজ শেষ হয়েছে। পদ্মা সেতু নির্মাণ কাজে নিয়োজিত ও জাইকার মেট্রোরেলে কর্মরতসহ বিদেশিদের নিরাপত্তা ব্যবস্থাও ব্যাপক জোরদার করা হয়েছে। কোনো বিদেশি কোথাও যেতে চাইলে সার্বিক নিরাপত্তা দেওয়া হবে। তিনি গত রবিবার দুপুরে মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলার ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কের নিমতলা নামক স্থানে বিআরটিএর ভ্রাম্যমাণ আদালতের কার্যক্রম পরিদর্শ কালে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন। মোটরসাইকেলে ৩ জন আরোহণের নিষেধাজ্ঞার কথা জানিয়ে মন্ত্রী আরও বলেন, হেলমেট ছাড়া মোটরসাইকেলে আরোহণ করা যাবে না। দুজনের বেশি আরোহণ করলে আইনগত কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। বিআরটিএর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দেবাশীষ রায়ের নেতৃত্বে সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত ভ্রাম্যমাণ আদালতের টিমটি ২৩টি যানবাহনের বিরুদ্ধে মামলা, ১১ হাজার ১০০ টাকা জরিমানা ও ব্যাটারিচালিত দুটি অটোরিকশা জব্দ করে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow