Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৪ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৩ জুলাই, ২০১৬ ২৩:৪২
সন্ত্রাসবাদের জন্য দায়ী গণতন্ত্রহীনতা
নিজস্ব প্রতিবেদক
সন্ত্রাসবাদের জন্য দায়ী গণতন্ত্রহীনতা

ক্রসফায়ার বা বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের ‘প্রতিশোধস্পৃহা’ থেকেই মানুষ সন্ত্রাসবাদী কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়ছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন। তিনি বলেন, চরমভাবে নির্যাতিত মানুষের প্রতিবাদের ভাষাই আজ সন্ত্রাসবাদে রূপ নিচ্ছে।

আর এর জন্য দায়ী দেশের ‘গণতন্ত্রহীনতা’। গতকাল জাতীয় প্রেসক্লাবে পুলিশের     নির্যাতনে জামালপুরের মুক্তিযোদ্ধা আবদুল বারীকে হত্যার প্রতিবাদে জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দলের এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন। মুক্তিযোদ্ধা দলের সভাপতি ইসতিয়াক আজিজ উলফাতের সভাপতিত্বে গণস্বাস্থ্য হাসপাতালের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, কল্যাণ পার্টির মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম প্রমুখ বক্তৃতা করেন। ড. মোশাররফ বলেন, সারা দেশে সাঁড়াশি অভিযানের নামে ১৩ হাজার নিরপরাধ মানুষকে নির্যাতন করা হয়েছে। সন্ত্রাসবাদের জন্য যাদের গ্রেফতার করা হয়েছে, কিছুদিন পরে তাদেরই খুন অথবা ক্রসফায়ারে মারা হচ্ছে। আর এ কারণেই সন্ত্রাসবাদের উত্থান হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, জঙ্গিবাদ সৃষ্টি করেছে এই সরকার। জঙ্গিবাদকে উসকেও দিচ্ছে তারা। গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে হামলার ব্যাপারে তিনি বলেন, যে গুলশানে এত নিরাপত্তা, সেখানে কীভাবে এত অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে জঙ্গিরা নির্বিঘ্নে প্রবেশ করল? এ ছাড়া হামলা করার পর যৌথবাহিনী সরাসরি অভিযান না চালিয়ে সারা রাত অপেক্ষা করল কেন? তিনি বলেন, কাগজ-কলমে বাকশাল না থাকলেও দেশে আজ অলিখিতভাবে বাকশাল চলছে। রক্ষীবাহিনীর হাতে আজ মানুষ মরছে না, তবে একই কায়দায় র‌্যাব-পুলিশের হাতে মানুষ মরছে। বাংলাদেশের নাগরিক এমনকি বিদেশি নাগরিকরাও এই সরকারের অধীনে নিরাপদে নেই।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow