Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : শুক্রবার, ১৫ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৪ জুলাই, ২০১৬ ২৩:১১
ইসলামের নামে জঙ্গিবাদ অশুভ সংকেত
মুহাম্মদ সেলিম, চট্টগ্রাম
ইসলামের নামে জঙ্গিবাদ অশুভ সংকেত
আল্লামা হাফেজ মুহাম্মদ তৈয়ব

ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান ও বিদেশিদের ওপর হামলা, ইসলামের নাম ব্যবহার করে বিভিন্ন স্থানে একের পর এক টার্গেট কিলিংকে দেশের জন্য অশুভ সংকেত বলে মনে করছেন তা’লীমুল কোরআন কমপ্লেক্স, চট্টগ্রামের চেয়ারম্যান আল্লামা হাফেজ মুহাম্মদ তৈয়ব। দেশের বর্তমান পরিস্থিতি, জঙ্গিবাদসহ নানা বিষয়ে গতকাল বাংলাদেশ প্রতিদিনের সঙ্গে কথা বলেছেন চট্টগ্রাম প্রাইভেট মাদ্রাসা অ্যাসোসিয়েশনের এই সভাপতি।

আল্লামা তৈয়ব বলেন, ‘দেশের বাইরে থেকে আসা বিদেশিরা আমাদের অতিথি। বিদেশিদের ওপর হামলা ইসলাম সমর্থন করে না। ’ তিনি বলেন, অতিথিদের জান-মালের নিরাপত্তা দেওয়া প্রত্যেক মুসলমানের ইমানি দায়িত্ব। তিনি মহানবী হজরত

মুহাম্মদ  (সা.)-এর উদ্ধৃতি দিয়ে বলেন, ‘যদি কোনো মুসলমান অমুসলিম নাগরিকের ওপর নিপীড়ন চালায়, অধিকার খর্ব করে এবং জোরপূর্বক কোনো কিছু ছিনিয়ে নেয়, তাহলে মহানবী কিয়ামতের দিন ওই মুসলিমের বিপক্ষে অবস্থান নেবেন। বিদায় হজেও মহানবী সংখ্যাগরিষ্ঠ মুসলিমদের দেশে সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে বলেছেন। ’ মদিনার মসজিদে নববী, শোলাকিয়ায় ঈদ জামাতসহ দেশ-বিদেশে বিভিন্ন মসজিদে জঙ্গি হামলার বিষয়ে এই বুজুর্গ বলেন, মুসলমান মেরে ইসলাম কায়েম করার বিষয়টা অনেকটা হাস্যকর। বোমা হামলা করে যদি মুসলমানকেই হত্যা করা হয়, তাহলে কাদের নিয়ে তারা ইসলামী রাষ্ট্র গড়ার স্বপ্ন দেখছে! গুলশানে যখন হামলা হয়েছে, তখন মুসলমানরা সবাই ইবাদতে ব্যস্ত। ইবাদতের সময় তারা কেন মানুষ হত্যা করেছে এ বিষয়টা অবশ্যই চিন্তা করা দরকার। আল কোরআন ফাউন্ডেশন বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান আল্লামা তৈয়ব জঙ্গি সংগঠনগুলোর তৎপরতা নিয়ে বলেন, কেউ আল্লাহর নাম নিয়ে মদ পান করলে যেমন এটাকে ইসলামী মদ বলা যাবে না, ঠিক একইভাবে আল্লাহর নাম নিয়ে কেউ হত্যা করলে এটাকে জিহাদ বলা যাবে না। ইসলাম কখনো নিরপরাধ ব্যক্তিকে হত্যার হুকুম দেয়নি। যাদের হাতে মক্কা-মদিনা, মসজিদ, মুসলমান নিরাপদ নয়, তাদের দিয়ে কখনো ইসলাম কায়েম হবে না। বরং তাদের কার্যক্রমের কারণে ইসলাম ধ্বংস হবে। তিনি বলেন, তাদের কার্যক্রমের কারণে সারা বিশ্বে আজ মুসলমান ইমেজ সংকটে ভুগছে। আল্লামা তৈয়ব জিহাদের আসল সংজ্ঞা দিয়ে বলেন, কাউকে বিনা কারণে হত্যা, সমাজে ভীতিকর পরিস্থিতি তৈরি, সন্ত্রাস ও নৈরাজ্যের নাম কখনো জিহাদ হতে পারে না। ইসলামে জিহাদ বলতে বোঝানো হয়েছে অন্যায়, আগ্রাসন ও সন্ত্রাস-নৈরাজ্যের বিরুদ্ধে অবস্থান। কিন্তু বর্তমানে জিহাদের ভুল ব্যাখ্যা করে মানুষকে ভুল পথে ধাবিত করছে সংঘবদ্ধ দেশি-বিদেশি চক্র। দেশের আলেম সমাজকেই সংঘবদ্ধ এ চক্রের বিরুদ্ধে অবস্থান নিতে হবে। দ্বারে দ্বারে ইসলামের সঠিক শিক্ষা পৌঁছে দিতে হবে। স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশের বিভিন্ন স্থানে জঙ্গিবাদবিরোধী সভা-সেমিনার করতে হবে। এসব সভা-সেমিনারে ইসলামের সার্বিক বিধি-বিধান তুলে ধরতে হবে। কিশোরগঞ্জের সুপরিচিত শোলাকিয়া ঈদগাহের ইমাম ফরিদ উদ্দীন মাসউদের উদ্যোগে জঙ্গিবাদ বিষয়ে এক লাখের ওপরে আলেমের দেওয়া ফতোয়াকে সমর্থন দিয়ে তিনি বলেন, ‘দেশের সব আলেমের স্বাক্ষর নিয়ে এ ফতোয়া দিলে আরও ভালো হতো। ফতোয়াটি আরও গ্রহণযোগ্য হতো। ’

এই পাতার আরো খবর
up-arrow