Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ২১ জানুয়ারি, ২০১৭

প্রকাশ : শনিবার, ১৬ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৫ জুলাই, ২০১৬ ২৩:৫৭
দেশের মানুষ জঙ্গিবাদকে প্রশ্রয় দেয় না
বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক
দেশের মানুষ জঙ্গিবাদকে প্রশ্রয় দেয় না

বাংলাদেশের মানুষ জঙ্গিবাদ-সাম্প্রদায়িকতাকে প্রশ্রয় দেয় না বলে মন্তব্য করেছেন অ্যাডভোকেট সুলতানা কামাল। গতকাল বিকালে শাহবাগ জাতীয় জাদুঘরের সামনে আয়োজিত নাগরিক সমাবেশে বক্তব্য দানকালে তিনি এ মন্তব্য করেন। গণজাগরণ মঞ্চের ব্যানারে ‘সাম্প্রদায়িকতা ও জঙ্গিবাদমুক্ত নিরাপদ বাংলাদেশ চাই’ শীর্ষক ওই নাগরিক সমাবেশের আয়োজন করা হয়। সমাবেশ শেষে একটি পতাকা মিছিল বের করেন মঞ্চের নেতা-কর্মীরা। মিছিলটি শাহবাগ থেকে শুরু হয়ে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার ঘুরে পুনরায় শাহবাগে গিয়ে শেষ হয়। অ্যাডভোকেট সুলতানা কামাল বলেন, বিভিন্ন হামলায় আমরা স্বামী হারাচ্ছি, সন্তান হারা হচ্ছি। এ রকম আতঙ্কের মধ্যে বেঁচে থাকার জন্য তো মুক্তিযুদ্ধ করিনি। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা নিয়ে যে বাংলাদেশ সেই দেশের মানুষ জঙ্গিবাদ ও সাম্প্রদায়িকতাকে প্রশ্রয় দেয় না। তিনি বলেন, আমি বিশ্বাস করি এ দেশে জঙ্গিবাদ, সাম্প্রদায়িকতা মাথাচাড়া দিতে পারে না। আজ বসে থাকার দিন নয়। সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে জঙ্গিবাদ প্রতিহত করতে হবে। সভাপতির বক্তব্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক অধ্যাপক অজয় রায় বলেন, গত কয়েক মাসে সন্ত্রাসের একটি নতুন মাত্রা সৃষ্টি হয়েছে। কী উদ্দেশে তা হচ্ছে আমরা কেউ জানি না। যারা এসব করছে তারা ইসলামকে ব্যবহার করছে। কিন্তু আমি যতটুকু জেনেছি, ইসলাম বিনা কারণে কারও ওপর অস্ত্র চালানো বা হত্যা করার বৈধতা দেয় না। গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ডা. ইমরান এইচ সরকার বলেন, জঙ্গিবাদের উত্থানের ফলে বর্তমানে দেশ যে অবস্থায় এসে দাঁড়িয়েছে, এতে শুধু নাগরিক সমাবেশ বা মানববন্ধন করার মাধ্যমে এ থেকে পরিত্রাণ পাওয়া সম্ভব নয়। জঙ্গিরা রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছে। তাই আমাদের পাল্টাযুদ্ধের মাধ্যমে তাদের প্রতিহত করতে হবে। জঙ্গিবাদমুক্ত নিরাপদ বাংলাদেশ গড়তে সাম্প্রদায়িকতা ও জঙ্গিবাদ প্রতিরোধে তিন দিনের কর্মসূচি ঘোষণা দেয় গণজাগরণ মঞ্চ। কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে— আগামী সোমবার ‘প্রতিরোধ ঘরে ঘরে’ নামে শাহবাগসহ সারা দেশে একযোগে জঙ্গিবাদ প্রতিরোধে গণসংযোগ, ২০ জুলাই দেশের বিভিন্ন জেলায় বিক্ষোভ মিছিল এবং ২২ জুলাই শাহবাগে গণমিছিল। সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন মানবাধিকার কর্মী খুশি কবীর, ভাস্কর রাসা, ছাত্র ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় সভাপতি লাকী আক্তার প্রমুখ।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow