Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : রবিবার, ১৭ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৬ জুলাই, ২০১৬ ২৩:৪০
চলমান পরিস্থিতি জাতীয় দুর্যোগ
নিজস্ব প্রতিবেদক
চলমান পরিস্থিতি জাতীয় দুর্যোগ

দেশে অব্যাহত জঙ্গি হামলা, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ দমনে এবার জাতীয় ঐক্য প্রতিষ্ঠার ডাক দিয়েছে গণফোরাম। এজন্য জামায়াত বাদে সব রাজনৈতিক দলের কাছে গণফোরামের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে চিঠি যাচ্ছে আজ। গতকাল জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে অনুষ্ঠিত গণফোরামের কেন্দ্রীয় কমিটির জরুরি সভায় চিঠি পাঠানোর এ সিদ্ধান্ত হয়। এর আগে সংবাদ সম্মেলনে দেশের বর্তমান অবস্থাকে ‘জাতীয় দুর্যোগ’ অভিহিত করে গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন বলেন, জাতীয় দুর্যোগ মোকাবিলায় জাতীয় ঐক্যের কোনো বিকল্প নেই। তিনি বলেন, ঈদের আগে গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারি ও ঈদের দিন দেশের বৃহত্তম ঈদগাহ শোলাকিয়ায় জঙ্গি হামলা হয়েছে। এরপর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশে আরও ভয়াবহ জঙ্গি হামলার আশঙ্কা ব্যক্ত করেছেন। দেশের শান্তিপ্রিয় নাগরিকদের সঙ্গে সঙ্গে রাজনীতিবিদ হিসেবে বিষয়টি আমাকেও উদ্বিগ্ন করে তুলেছে। উদ্ভূত এ দুর্যোগ কার্যকরভাবে মোকাবিলা করার জন্য আজ আমাদের সবাইকে সম্মিলিত উদ্যোগ নিতে হবে। তিনি এজন্য জামায়াত ছাড়া সব রাজনৈতক দলের সঙ্গে সংলাপে বসার আহ্বান জানান। সংবাদ সম্মেলনে জনগণকে এ সম্পর্কে সজাগ করে তোলার ওপর গুরুত্বারোপ করা হয়।

ড. কামাল হোসেন আরও বলেন, আমি কোরআন পড়েছি, হাদিস পড়েছি, ইসলামের ইতিহাস পড়েছি, নবী করিম (সা.)-এর জীবনী পড়েছি— কোথাও নিরীহ মানুষকে হত্যার সমর্থনে একটি লাইনও খুঁজে পাইনি। তাহলে ইসলামের নামে আজ কেন জঙ্গিরা নিরীহ মানুষকে হত্যা করছে? এর প্রকৃত কারণ এবং তাদের অস্ত্র ও অর্থের উৎস গভীরভাবে অনুসন্ধান করে বের করতে হবে। প্রয়োজনে আন্তর্জাতিক সহযোগিতা নিতে হবে। ড. কামাল বলেন, দেশে অব্যাহত জঙ্গি হামলার হুমকি আজ জনজীবনে এক অনিশ্চয়তা ও নিরাপত্তাহীন পরিবেশ সৃষ্টি করেছে। জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস সম্পর্কে সে ভীতি ও আতঙ্ক দূর করতে প্রথমে জনগণের আস্থা ফিরিয়ে আনার জন্য তদন্তের অগ্রগতি জনসম্মুখে প্রকাশ করতে হবে। একই সঙ্গে নির্দলীয়ভাবে আইনের প্রয়োগ নিশ্চিত করে দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠাসহ রাষ্ট্র ও সমাজে কার্যকর গণতন্ত্র নিশ্চিত করার জন্য তিনি ১২ দফা প্রস্তাব তুলে ধরেন। এতে নিরপরাধ ব্যক্তিদের কারগার থেকে মুক্তি, বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড বন্ধ করে নিরপেক্ষ নির্বাচন ও জনপ্রতিনিধিত্বশীল সরকার গঠন করার দাবি জানানো হয়। একই সঙ্গে বিচার বিভাগ ও নির্বাচন কমিশনসহ রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানের নিরপেক্ষ ভূমিকা, জনপ্রশাসনের নিরপেক্ষ ভূমিকা নিশ্চিত করাসহ দুর্নীতিমুক্ত পুলিশ ও জনপ্রশাসন গড়ে তোলার আহ্বান জানান।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow