Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : মঙ্গলবার, ১৯ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৮ জুলাই, ২০১৬ ২৩:১৫
দেশজুড়ে জঙ্গি বিরোধী অভিযান
নিজস্ব প্রতিবেদক, বগুড়া ও জামালপুর প্রতিনিধি

রাজধানীর গুলশান ও  কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়ায় ভয়াবহ জঙ্গি হামলা এবং বিভিন্ন স্থানে ফের হামলার আশঙ্কা মাথায় রেখে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী দেশজুড়ে জঙ্গিবিরোধী অভিযান শুরু করেছে। এরই অংশ হিসেবে গতকাল বগুড়া ও জামালপুরে যমুনা নদীর চরাঞ্চলে পুলিশ, বিজিবি ও র‍্যাবের সমন্বয়ে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় ৩টি চাপাতি, ৩টি ছুরি, অস্ত্র রাখার ব্যাগ, বেশ কিছু তারের কুণ্ডলী এবং জিহাদি বই উদ্ধার করা হয়।

সূত্র জানায়, শোলাকিয়া হামলায় অংশগ্রহণকারী গ্রেফতারকৃত শফিউল ইসলাম যমুনা নদীর দুর্গম চরাঞ্চলে ছিল। সেখানে প্রশিক্ষণ শেষে শফিউল শোলাকিয়ায় হামলায় অংশ নেয়। এ তথ্যের ভিত্তিতে গতকাল বগুড়ার ধুনট ও সারিয়াকান্দি উপজেলার দুর্গম চরাঞ্চলে পুলিশ, বিজিবি ও র‍্যাবের সমন্বয়ে গঠিত যৌথবাহিনী বিশেষ অভিযান শুরু করে। এ অভিযানে জঙ্গি আটক বা কোনো আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার না হলেও বেশ কিছু ধারালো অস্ত্র ও জিহাদি বই উদ্ধার করা হয়। এর আগে বগুড়ার ধুনট উপজেলায় রবিবার মধ্যরাত থেকে এবং সারিয়াকান্দিতে গতকাল ভোর রাত থেকে অভিযান চালানো হয়। অভিযানের সময় এলাকার নারী ও পুরুষদের সঙ্গে মতবিনিময় করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।

অভিযান শেষে বিকাল ৪টায় সারিয়াকান্দির টেংরাকুড়া চরের শাহজালাল বাজারে প্রেস ব্রিফিংয়ে র‍্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ বলেন, বগুড়ার সারিয়াকান্দি ও ধুনট উপজেলায় অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে কিছু সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে। অভিযানকালে সারিয়াকান্দির চর ঘাঘুয়ার জঙ্গিদের পরিত্যক্ত আস্তানা থেকে ৩টি চাপাতি, ৩টি ছুরি, অস্ত্র রাখার ব্যাগ, বেশ কিছু তারের কুণ্ডলী এবং জিহাদি বই উদ্ধার করা হয়েছে। জঙ্গিদের সম্পর্কে নতুন কিছু তথ্য পাওয়া গেছে। যমুনা নদীর দুর্গম চরগুলোতে র‍্যাব, পুলিশ, বিজিবিসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের নজরদারি বাড়ানো হবে। কোনো সন্দেহভাজন ব্যক্তিকে দেখা মাত্র তিনি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে সংবাদ দেওয়ার জন্য এলাকাবাসীর প্রতি আহ্বান জানান। রবিবার মধ্যরাত থেকে সোমবার বিকাল পর্যন্ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ধুনটের নিমগাছী ইউনিয়নের ধামাচামা, নাংলু, বেড়েরবাড়ী, নান্দিয়ারপাড়া, মাঝবাড়ী, ফরিদপুর ও জয়শিংসহ আশপাশের গ্রামে তল্লাশি চালায়। তল্লাশিকালে ৫টি চাপাতি, ১১টি জিহাদি বই উদ্ধার করে যৌথবাহিনী। অভিযান শেষে গতকাল দুপুরে ধুনট উপজেলার নিমগাছী ইউনিয়নের সোনাহাটা উচ্চবিদ্যালয় মাঠে যৌথবাহিনীর পক্ষে র‍্যাব-৫ (রাজশাহী) এর অধিনায়ক লে. কর্নেল মাহবুব আলম সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন।

এদিকে, জামালপুর প্রতিনিধি জানান, জামালপুরে যমুনা নদীর বিভিন্ন দুর্গম চরে গতকাল বিকালে অভিযান চালায় যৌথবাহিনী। এ অভিযানে বেশ কিছু জিহাদি বই, ৩টি চাপাতি, ৩টি ছুরি, এক কয়েল ইলেকট্রিক তার ও এসএমজির ম্যাগাজিন রাখার একটি ব্যাগ উদ্ধার করা হয়। এ সময় র‍্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ ছাড়াও র‍্যাবের অতিরিক্ত মহাপরিচালক কর্নেল আনোয়ার লতিফ খান, পরিচালক (গোয়েন্দা) লে. কর্নেল আবুল কালাম আজাদ, মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার মুফতি মাহমুদ খান ও র‍্যাব-১২ পরিচালক শাহাবুদ্দিন খান উপস্থিত ছিলেন।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow