Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : শনিবার, ২৩ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২২ জুলাই, ২০১৬ ২৩:৫২
ইন্টারনেটে কোরআনের বিকৃত তথ্য দিয়ে অনেকে বিপথগামী করতে পারে
—বায়তুল মোকাররম পেশ ইমাম
নিজস্ব প্রতিবেদক

ইসলামিক ফাউন্ডেশনের (ইফা) নির্দেশনা অনুযায়ী জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমসহ রাজধানী এবং সারা দেশের মসজিদগুলোতে মুসল্লিদের উদ্দেশে জঙ্গিবাদবিরোধী খুতবা পাঠ করেছেন খতিব এবং ইমামরা। প্রতি সপ্তাহেই এমন খুতবা সব মসজিদে সরবরাহ করবে ইফা। জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের পেশ ইমাম হাফেজ মাওলানা মুহাম্মদ এহসানুল হক মুসল্লিদের উদ্দেশে বলেন, আপনাদের সন্তানদের দিকে বিশেষভাবে মনোযোগী ও সাবধান থাকুন। তাদের বিষয়ে সজাগ থাকবেন, আপনার চোখ ফাঁকি দিয়ে আপনার সন্তানকে সন্ত্রাসীরা যেন কেড়ে নিতে না পারে। সন্তানকে সুন্দর চরিত্রের শিক্ষা দিন। তিনি ইন্টারনেটে কোরআন-হাদিস চর্চা না করে এ সম্পর্কিত জ্ঞান অর্জনে আলেম সমাজের সাহায্য নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। এখানে অনেকে ভুল বা বিকৃত তথ্য দিয়ে বিপদগামী করতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেন তিনি।

অভিভাবক এবং তরুণ সমাজকে উদ্দেশ করে দেওয়া বয়ানে তিনি আরও বলেন, কোরআনের সঠিক শিক্ষার অভাবে, কোরআনের আলোকে না চলার কারণে তরুণ সমাজ আজ বিপদের পথে চলে যাচ্ছে। পরিবারের সদস্যদের মধ্যে কোরআন শিক্ষার অভাবে সন্তানরা ভুল পথে চলে যাচ্ছে। প্রত্যেক মানুষের দায়িত্ব জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে অবস্থান নেওয়া, সচেতন হওয়া। প্রত্যেকের দায়িত্ব প্রশাসনকে সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে সহায়তা করা। অশান্তির কার্যকলাপ করে ইসলামের নাম নিয়ে ইসলামের ক্ষতি করা হচ্ছে। নিরপরাধ মানুষকে হত্যা করা জঘন্য অপরাধ। একই সঙ্গে আত্মহত্যাও গর্হিত ও গুনাহের কাজ। বয়ানে আরও বলেন, অশান্তি সৃষ্টির জন্য সন্ত্রাসী কার্যকলাপ করা হচ্ছে। হামলাকারীরা সংখ্যায় কম, তাদের ভয়ে পিছিয়ে থাকা যাবে না। সম্মিলিতভাবে এসব অপশক্তির বিরুদ্ধে অবস্থান নিতে হবে। তিনি বলেন, আমাদের সন্তানদের, যুবকদের সব সন্ত্রাসী কার্যক্রম থেকে বেঁচে থাকতে হবে। ফিতনা-সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ ও বিশৃঙ্খলা ইসলামে সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ। জুমার নামাজের সময় বায়তুল মোকাররমে প্রবেশের তিনটি পথে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন ছিল। মসজিদে প্রবেশের উত্তর ও দক্ষিণ গেটে আর্চওয়ে বসানো হয়। মুসল্লিদেরও দেহ তল্লাশি করা হয়।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow