Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, শনিবার, ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : রবিবার, ২৪ জুলাই, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২৩ জুলাই, ২০১৬ ২৩:১২
স্বল্প মধ্য ও দীর্ঘমেয়াদি ব্যবস্থা নিতে হবে
—ড. খলীকুজ্জমান
স্বল্প মধ্য ও দীর্ঘমেয়াদি ব্যবস্থা নিতে হবে

দেশে জঙ্গিবাদী চক্রান্ত শুধু অর্থনীতির বিরুদ্ধে নয়, পুরো রাজনীতির বিপক্ষে গভীর ষড়যন্ত্র হিসেবেই দেখছেন পল্লী কর্মসহায়ক ফাউন্ডেশন— পিকেএসএফ ও ঢাকা স্কুল অব ইকোনমিক্সের চেয়ারম্যান প্রখ্যাত অর্থনীতিবিদ ড. কাজী খলীকুজ্জমান আহমদ। তিনি বলেন, আমাদের মুক্তিযুদ্ধের বিরোধিতাকারী দেশি-বিদেশি সেই সব চক্রান্তকারী বাংলাদেশকে সুষ্ঠু দেশ হয়ে গড়ে উঠতে দিতে চায় না। তাই জঙ্গিবাদ প্রতিরোধ ও প্রতিকারে স্বল্প, মধ্যম এবং দীর্ঘমেয়াদি ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। এ লক্ষ্য অর্জনে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার পক্ষের সব রাজনৈতিক ও সামাজিক শক্তির সমন্বিত প্রচেষ্টা জরুরি। আন্তর্জাতিক জঙ্গিবাদ শুধু অস্ত্রের মাধ্যমে দমন সম্ভব নয় উল্লেখ করে তিনি গতকাল বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, বাংলাদেশে মানুষের জঙ্গিবাদে সংযুক্তির উৎস দিন দিন ব্যাপকতর হচ্ছে। যারা জঙ্গিবাদে দীক্ষা নিয়েছে তাদেরকে চিহ্নিত করা দরকার। তাদের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নেওয়া জরুরি। প্রয়োজনে কঠোর ব্যবস্থা। এই কাজটি মূলত রাষ্ট্রের। তাই কখন কোথায় কী ঘটতে পারে সে সম্বন্ধে গোয়েন্দাদের যেমন তথ্য সংগ্রহ করতে হবে, তেমনি প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী যথাযথ আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনার বাংলাদেশে ধর্মান্ধতা ও জঙ্গিবাদের স্থান থাকতে পারে না।

  ড. কাজী খলীকুজ্জমান আহমদ বলেন, গুলশানের ক্যাফেতে ও শোলাকিয়ায় হামলার আগে কয়েক মাসের মধ্যে বাংলাদেশে বেশ কয়েকটি লক্ষ্যভুক্ত ব্যক্তির ওপর হত্যা চালায় জঙ্গিরা। দেশকে অস্থিতিশীল করা এবং আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে দেশকে হেয় প্রতিপন্ন করে তোলাই ছিল এসব হত্যাকাণ্ডের উদ্দেশ্য। তারপর ব্যক্তি হত্যা নয়, অনেককে হত্যার ঘটনা ঘটায় জঙ্গিরা গুলশানে। শোলাকিয়ায় ঈদের জামাতে ব্যাপক হত্যার মাধ্যমে জনমনে ভয়ভীতি এবং আন্তর্জাতিক সংকট সৃষ্টি করাই এ ক্ষেত্রে উদ্দেশ্য বলে প্রতীয়মান হয়।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow