Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শুক্রবার, ২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২২:৫৪
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রসহ দুই জঙ্গি গ্রেফতার
নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

চট্টগ্রামের বাকলিয়া থানাধীন কে বি আমান আলী রোডের এক মেস থেকে আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের সদস্য সন্দেহে দুই যুবককে বেশ কিছু জিহাদি বইসহ আটক করেছে নগর গোয়েন্দা পুলিশ। আটকদের একজন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) আইনের ছাত্র।

গতকাল দুপুরে নগর গোয়েন্দা পুলিশের উপকমিশনার (উত্তর) পরিতোষ ঘোষ সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান।

আটকরা হলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের স্নাতকোত্তর (এলএলএম) পর্বের ছাত্র নিজাম উদ্দিন (২৫) ও গার্মেন্টস শ্রমিক রোকন উদ্দিন (২৪)। বুধবার দুপুরে কে বি আমান আলী রোডের বড় মিয়ার মসজিদের দ্বিতীয় তলার মেসের ৪ নম্বর কক্ষ থেকে তাদের আটক করা হয়। এ সময় তাদের বেশ কয়েকজন সহযোগী পালিয়ে যায়। কক্ষে তল্লাশি চালিয়ে দুটি মোবাইল সেট ও ১৩টি জিহাদি বই উদ্ধার করা হয়।

এ ব্যাপারে বাকলিয়া থানায় মামলা করা হয়েছে। আটক নিজাম সাতকানিয়ার সোনাকানিয়া ইউনিয়নের আহম্মদ কবিরের ছেলে। তিনি নগরীর বড় মিয়ার মসজিদের ওই মেসে থাকতেন। আর রোকন বাঁশখালীর বৈলগাঁও ইউনিয়নের মৃত জামাল উদ্দিনের ছেলে। তিনি কালুরঘাটে মুনস্টার পেইন্টস ফ্যাক্টরি কলোনির একটি বাসায় ভাড়া থাকেন।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, মূলত পরিকল্পনা ও সাংগঠনিক কর্মকাণ্ড বেগবান করতে গোপনে বৈঠক করছিল আনসারুল্লাহর সদস্যরা। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে দুটি মোবাইল সেট ও ১৩টি জিহাদি বইসহ হাতেনাতে দুজনকে গ্রেফতার করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা জানিয়েছেন, গ্রেফতার হওয়া ধর্মান্তরিত জঙ্গি মুসহাব ইবনে উমায়ের (সাবেক পিকলু দাশ) তাদের জঙ্গি কর্মকাণ্ডে প্রলুব্ধ করে আনসারুল্লাহ বাংলা টিমে অন্তর্ভুক্ত করেছেন। উমায়েরের সঙ্গে একাধিকবার গোপন বৈঠকও করে তারা। নগর গোয়েন্দা পুলিশের উপকমিশনার পরিতোষ ঘোষ বলেন, নিজাম সাতকানিয়া সরকারি কলেজে ইন্টারমিডিয়েটে পড়ার সময় শিবির করতেন। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়ার পর তিনি শিবির-নিয়ন্ত্রিত শাহ আমানত হলে থাকতেন। ওই সময়টায় জাকির নায়েকের বই, ভাষণ, ওয়াজ শুনে তিনি জঙ্গি সংগঠন আনসারুল্লাহ বাংলা টিমে যোগ দিতে উদ্বুদ্ধ হন। আর রোকন পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত লেখাপড়া করেছেন। চান্দগাঁওয়ে একটি গার্মেন্টেসে কাজ করেন তিনি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তিনি খুবই অ্যাকটিভ। ফেসবুকের মাধ্যমেই তিনি জঙ্গিদের সঙ্গে তথ্য আদান-প্রদান ও যোগাযোগ রক্ষা করতেন।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow