Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : সোমবার, ৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২৩:০২
কানাডায় বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত জঙ্গির বিচার শুরু
প্রতিদিন ডেস্ক

কানাডার আদালতে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত কানাডিয়ান নাগরিক কাদির আবদুলের বিচার শুরু হয়েছে। জঙ্গি সংশ্লিষ্টতার অভিযোগে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

জানা গেছে, সঙ্গীসহ সিরিয়া যাওয়ার পথে তুরস্কে আটক হয়ে ফেরত আসা বাংলাদেশি এই তরুণকে গত শুক্রবার অন্টারিও কোর্ট অব জাস্টিসের আদালতে হাজির করা হয়। তার কাছে থাকা একটি এ আর-১৫ সেমি অটোমেটিক রাইফেল ‘ভেঙে ফেলে দেওয়ার’ দায়ে তার বাবার বিরুদ্ধেও অভিযোগ গঠন করেছে পুলিশ। আগামী ২৩ সেপ্টেম্বর তাদের পুনরায় আদালতে হাজির করা হবে। সূত্র : নতুনদেশ ডটকম গুলশান ও শোলাকিয়ায় জঙ্গি হামলার মূলপরিকল্পনাকারী হিসেবে পরিচিত বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত কানাডিয়ান নাগরিক তামিম চৌধুরী পুলিশের অভিযানে নিহত হওয়ার ঘটনা নিয়ে আলোচনার মধ্যেই একজন বাংলাদেশি কানাডিয়ান নাগরিক কানাডার আদালতে বিচারের সম্মুখীন হচ্ছেন। জানা গেছে, কাদির আবদুল সিরিয়ার উদ্দেশে টরেন্টো ত্যাগ করে গত মার্চ মাসে। ৩১ মার্চ তিনি তুরস্কের আদানা শহরে গ্রেফতার হন। স্যামুয়েল এভিলস নামে আরেক কানাডিয়ানসহ সিরিয়ায় যাওয়ার পথে তুর্কি প্রশাসন তাদের গ্রেফতার করে বলে সরকারি সূত্রে জানানো হয়। দুই সপ্তাহ তুরস্কে আটক থাকার পর তাদের কানাডা ফেরত পাঠানো হলে গত ১৫ এপ্রিল কানাডা পুলিশ তাদের টরেন্টো পিয়ারসন এয়ারপোর্টে গ্রেফতার করে। গত ১৫ জুলাই কাদির পুলিশের শর্ত মেনে নিয়ে ‘পিচবন্ড’ এ সম্মত হয়। পিচবন্ডের শর্ত অনুসারে তিনি পাসপোর্ট এবং আগ্নেয়াস্ত্র  রাখার  অধিকার হারান এবং সুপারভাইজরের উপস্থিতি ছাড়া ইন্টারনেট ব্যবহারে তার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়। পিচবন্ডের শর্তানুসারে কাদির আবদুল আগ্নেয়াস্ত্র রাখার অধিকার হারালেও তার কাছে এআর-১৫ টাইপের সেমি অটোমেটিক একটি রাইফেল আছে— এই তথ্যের ভিত্তিতে পুলিশ তার অ্যাপার্টমেন্টে তল্লাশি চালায়। অবশ্য তারা  সেটি খুঁজে পায়নি। ফাঁস হয়ে যাওয়া আইএসের গোপন নথি অনুযায়ী, ২০১৪ সালের জুলাই মাসে আবদুল মালিক নামে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত এক তরুণ আইএসে যোগ দেয়। আইএসের নিবন্ধন ফরমে তার যে ফোন নম্বর দেওয়া আছে সেটি কাদির আবদুলের বাড়ির ফোন নম্বরের সঙ্গে মিলে যায়। নম্বরটি কাদির আবদুলের বাবা মোহাম্মদ উদ্দিনের নামে নিবন্ধিত। ধারণা করা হচ্ছে মালিক সিরিয়ায় নিহত হয়েছে। উল্লেখ্য, কাদির আবদুলের সঙ্গে আটক হওয়া এভিলসও হুইটবিতে যে অ্যাপার্টমেন্টে থাকতেন, সেই অ্যাপার্টমেন্টের বাসিন্দা কেভিন ওমর মোহাম্মদ আইএসে যোগ দিতে গিয়ে গ্রেফতার হয়েছেন।

up-arrow