Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শনিবার, ১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২৩:০৮
রহস্যজনক মৃত্যু রাবি শিক্ষিকার
নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী
রহস্যজনক মৃত্যু রাবি শিক্ষিকার

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষক আকতার জাহান জলির (৪০) লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল বিকাল ৫টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের জুবেরি ভবনের ৩০৩ নম্বর কক্ষ থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। আকতার জাহান এ কক্ষেই থাকতেন। পুলিশ জানায়, সেখানে একটি সুইসাইড নোট পাওয়া গেছে। এতে লেখা আছে, ‘আমার মৃত্যুর     জন্য কেউ দায়ী নয়। শারীরিক, মানসিক চাপের কারণে আত্মহত্যা করলাম।’ পুলিশ এটা যাচাই করে দেখছে। রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের জরুরি বিভাগে কর্তব্যরত চিকিৎসক মাহিরুল ইসলাম জানান, বিকাল সোয়া ৫টার সময় মতিহার থানা পুলিশ শিক্ষক আকতার জাহানের লাশ জরুরি বিভাগে নিয়ে আসে। এরপর লাশটি ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগে পাঠানো হয়। এটি হত্যা না আত্মহত্যা তা ময়নাতদন্তের পরই জানা যাবে বলে জানান এ চিকিৎসক। রাবির গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সভাপতি শাতিল সিরাজ জানান, দুই দিন ধরে আকতার জাহান বিভাগে যাচ্ছিলেন না। তার মোবাইল ফোনে বহুবার ফোন দেওয়া হলেও সেটি রিসিভ হয়নি। জুবেরি ভবনে তার কক্ষটিও ভিতর থেকে লাগানো ছিল। এ নিয়ে সন্দেহ দেখা দিলে মতিহার থানায় খবর দেওয়া হয়। পরে পুলিশ গিয়ে তার লাশ উদ্ধার করে। রাবির প্রত্যক্ষদর্শী একজন শিক্ষক জানান, আকতার জাহানের লাশ বিছানার ওপর ছিল। তার মুখে জখম রয়েছে। বিষয়টি রহস্যজনক। গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষক মশিহুর রহমান জানান, আকতার জাহানের ছেলে সুহাজ দুপুরে ফোন করে গোলাম সাব্বির সাত্তার নামে ভূতত্ত্ব ও খনিবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপককে জানান, দুই দিন তার মা ফোন রিসিভ করছেন না। ওই শিক্ষক তাকে জানানোর পর বিকালে খোঁজ নিতে গিয়ে দেখেন আকতার জাহানের কক্ষটি ভিতর থেকে লাগানো। পরে পুলিশকে খবর দেওয়া হলে ভিতরে ঢুকে দেখতে পায় বিছানায় লাশ পড়ে আছে। নগরীর মতিহার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হুমায়ুন কবীর বলেন, লাশের ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন ছাড়া বলা যাবে না কীভাবে তার মৃত্যু হয়েছে। এদিকে হাসপাতালে নিহত শিক্ষকের সহকর্মীরা জানান, প্রায় এক বছর আগে স্বামী তানভীর আহমেদের সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদ হয় আকতার জাহানের। তার সাবেক স্বামী তানভীর আহমেদও গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষক। বিভাগের সাবেক সভাপতি তানভীর আহমেদ দ্বিতীয় বিয়ে করে আলাদা একটি কোয়ার্টারে থাকেন। অন্যদিকে জুবেরি ভবনে একাই থাকতেন সহযোগী অধ্যাপক আকতার জাহান। স্বামীর সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদের পর তিনি আর বিয়ে করেননি।

up-arrow