Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : রবিবার, ১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২৩:৪২
পাশের ভবনেও দাউ দাউ আগুন
নিজস্ব প্রতিবেদক

টানা ১৬ ঘণ্টায়ও নিয়ন্ত্রণে আনা যায়নি টঙ্গী বিসিক শিল্পনগরীর ট্যাম্পাকো ফয়েলস কারখানায় বয়লার বিস্ফোরণের আগুন। গতকাল রাত সোয়া ৮টার দিকে কারখানার পাশের ভবনে আগুনের লেলিহান শিখা ছড়িয়ে পড়ে তা দাউ দাউ করে জ্বলতে থাকে।

ভোর ৬টার দিকে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটলেও রাতে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা যায়নি বলে জানায় ফায়ার সার্ভিস। প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী, রাত সোয়া ৮টার দিকে ট্যাম্পাকো কারখানার পাশের ভবনে আগুনের লেলিহান শিখা ছড়িয়ে পড়ে। এতে কারখানার পাশে থাকা অন্তত অর্ধশতাধিক বাসা-বাড়ি হুমকিতে পড়ে। ফায়ার সার্ভিস জানায়, আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে কাজ করছেন ফায়ার সার্ভিসের ২৫টি দল। তারা রীতিমতো হিমশিম খাচ্ছেন।

গতকাল সকালে কারখানার বয়লার বিস্ফোরণে পুরো কারখানায় আগুন ছড়িয়ে পড়ে। সকাল থেকেই টঙ্গী, জয়দেবপুর, ঢাকার কুর্মিটোলা, মীরপুর ও আশুলিয়া ফায়ার সার্ভিসের ২৫টি ইউনিট চেষ্টা চালিয়ে যায়। কিন্তু বিকালের দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসলেও সন্ধ্যার পর আবার এর তিব্রতা বেড়ে যায়। রাত সোয়া ৮টার দিকে কারখানার ভিতর হঠাৎ আগুনের লেলিহান শিখা দাউ দাউ করে জ্বলতে শুরু করে। এ সময় পাশের একটি দোতলা ভবন ও একতলা বাসা-বাড়িতে  সে আগুন ছড়িয়ে যায়। ফলে আশপাশে বসবাসকারীদের দুর্ভোগ বেড়ে যায়। এ সময় দিগ্বিদিগ ছুটাছুটি করতে থাকেন বাড়ির লোকজন। কারখানার ঠিক পূর্বপাশের ভবনে রয়েছে সরকারি একটি ব্যাংকের শাখা। আগুনের লেলিহান শিখা কারখানা ছাপিয়ে আশপাশের বাসাবাড়ি, গোডাউন ও কারখানার ব্যাপক ক্ষতি সাধন করে। তাত্ক্ষণিক উপস্থিত গাজীপুরের এমপি জাহিদ আহসান রাসেল এ সময় উত্তেজিত সাধারণকে থামানোর চেষ্টা করেন।

প্রত্যক্ষদর্শী মো. আপন বলেন, সকালে বয়লার বিস্ফোরণের শব্দ পেয়ে ছুটে আসি। আমরা ১০-১২জন মিলে ৭টি মৃতদেহ উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছি। পরে দুপুর দেড়টার দিকে আরও একজনের মরদেহ উদ্ধার করেছি। কারখানা সংলগ্ন বাসিন্দা মরিয়ম আক্তার রিমা বলেন, ঘুমন্ত অবস্থায় হঠাৎ বিকট শব্দ শুনে ভূমিকম্প হয়েছে ভেবে দৌড়ে ঘর থেকে বের হই।

up-arrow