Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শুক্রবার, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২৩:৪২
ফুটপাথে বেপরোয়া প্রাইভেট কার দম্পতি নিহত
নিজস্ব প্রতিবেদক

রাজধানীতে বেপরোয়া প্রাইভেট কারের ধাক্কায় আতাউর রহমান (৭০) ও রওশন আরা (৬০) দম্পতির মৃত্যু হয়েছে। বুধবার ভোরে শেওড়াপাড়া বাসস্ট্যান্ড-সংলগ্ন হাজী আশরাফ আলী মার্কেটের সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

পুলিশ বলছে, এ ঘটনায় গাড়িতে থাকা যুবকরা পালিয়েছে। প্রাইভেট কারের ভিতরে মদের বোতল পাওয়া গেছে। ধারণা করা হচ্ছে, যুবকরা মদ্যপ অবস্থায় ছিল। এ ঘটনায় আবেদ আলী নামে এক পান দোকানদারও আহত হন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, গাড়িটি কাজীপাড়ার দিক থেকে আসছিল। ওই গাড়িতে তিন যুবক ছিল। তারা মদ্যপ অবস্থায় ছিল। গাড়িটি ফুটপাথে থাকা আতাউর রহমান ও রওশন আরাকে ধাক্কা দেয়। এ সময় গাড়ির গতি এতটাই বেশি ছিল যে রওশন আরাকে ধাক্কা মেরে প্রায় ২০ হাত দূরে ছিটকে ফেলে দেয়।

কাফরুল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সিকদার মুহাম্মদ শামীম হোসেন জানান, কৃষি মন্ত্রণালয়ের সাবেক কর্মকর্তা আতাউর রহমান পূর্ব শেওড়াপাড়ার ৯২১ নম্বর বাসায় থাকতেন। কোরবানির মাংস নিয়ে মোহাম্মদপুরে মেয়ের বাসায় যাওয়ার জন্য তারা বের হন। এ সময় দ্রুতগতির প্রাইভেট কার (ঢাকা মেট্রো গ-২১-৮৫৭১) ধাক্কা দিলে ঘটনাস্থলেই তাদের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় জড়িত ব্যক্তিদের নাম প্রকাশ করছে না পুলিশ। তবে ওসি বলছেন, ‘আমরা সব কিছুরই সন্ধান পেয়েছি। এখন ধরার অপেক্ষায়। তদন্তের স্বার্থে এর চেয়ে বেশি কিছু বলা যাবে না। ’

সূত্র বলছে, ওই প্রাইভেট কারের মালিক আশিকুর রহমান খান পেশায় একজন ঠিকাদার। তার পরিচয়পত্রটি প্রাইভেট কারের ভিতর পাওয়া গেছে। ঘটনার সময় গাড়িতে ছিলেন তার ছেলে নাসিফ খান ওরফে অনি। এ সময় গাড়িতে নাসিফের সঙ্গে তার কয়েকজন বন্ধু ছিলেন। গাড়ির ভিতর থেকে মদের বোতলও উদ্ধার করা হয়। গাড়িটি দুমড়ে-মুচড়ে যাওয়ার পর নাসিফ তার শাহীনবাগের বাসায় ফেরেন। ঘণ্টা দুয়েক পর মা-বাবার সঙ্গে তিনি সিএনজিচালিত অটোরিকশায় বাসা থেকে বেরিয়ে যান। জানা গেছে, কোরবানির ঈদের দিন রাত দেড়টার দিকে নাসিফ তার এক বন্ধুর সঙ্গে গাড়িটি নিয়ে বের হন। মৃত ওই দম্পতির ছেলে মোহাম্মদ রায়হান বলেন, ঘটনার দিন দুপুরে ময়নাতদন্ত ছাড়াই শেওড়াপাড়া কবরস্থানে মা-বাবাকে দাফন করা হয়েছে। ঘটনার সঙ্গে কারা জড়িত, এ ব্যাপারে পুলিশ কিছু জানায়নি।

স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ : মঙ্গলবার রাতে দক্ষিণখানের দক্ষিণগাঁওয়ের ২৮৬ নম্বর বাড়ি থেকে গৃহবধূ নাসিমা আক্তার পলির (২৬) লাশ উদ্ধার হয়েছে। পুলিশ বলছে, পলি ও তার স্বামী জাহাঙ্গীর আলম ওই বাসায় ভাড়া থাকতেন। ধারণা করা হচ্ছে, পলিকে তার স্বামী হত্যা করেছেন। জানা গেছে, উত্তরা আজমপুরের জামতলার স্থানীয় বাসিন্দা নিহাত উদ্দিনের মেয়ে পলি। এ ঘটনায় দক্ষিণখান থানায় হত্যা মামলা হয়েছে।

বাড়ির মালিক বিল্লাল হোসেন জানান, মঙ্গলবার সকালে জাহাঙ্গীর পলিকে কোরবানির মাংস দিতে বলে যান। রাতে তাদের মাংস দিতে গেলে ঘর বাইরে থেকে বন্ধ পান। পাশের ঘরের ভাড়াটিয়া চান বানু দরজা খুলে পলিকে খাটের ওপর মৃত অবস্থায় দেখতে পান।

দক্ষিণখান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ লুত্ফর রহমান জানান, এক বছর আগে জাহাঙ্গীরের সঙ্গে পলির বিয়ে হয়। ধারণা করা হচ্ছে পলিকে বালিশচাপা দিয়ে হত্যা করা হয়েছে। তার নাক-মুখ থেকে রক্ত বের হওয়ার চিহ্ন রয়েছে। ঘটনার পর থেকে জাহাঙ্গীর পলাতক। তাকে ধরতে অভিযান চলছে।

বাসের ধাক্কায় আরেক মৃত্যু : মঙ্গলবার বিকালে রামপুরা টিভি সেন্টারের সামনে সুপ্রভাত পরিবহনের একটি বাসের ধাক্কায় পিন্টু শেখ নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। সূত্র বলছে, রাস্তা পারাপারের সময় যাত্রীবাহী বাসটি পিন্টুকে ধাক্কা দেয়। এতে তিনি মারাত্মক আহত হন। পরে তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। তার বাবার নাম আবদুল হামিদ শেখ। তাদের গ্রামের বাড়ি বাগেরহাট। রামপুরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রলয় কুমার সাহা জানান, বাসটি আটক করা হলেও এর চালক পলাতক রয়েছেন। তাকে ধরতে অভিযান চলছে।

up-arrow