Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শুক্রবার, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২৩:৪৩
শ্রীলঙ্কা-বাংলাদেশ
হঠাৎ পাল্টাপাল্টি বন্ধ অন-অ্যারাইভাল ভিসা, ভোগান্তি
কূটনৈতিক প্রতিবেদক

পাল্টাপাল্টি অবস্থান নিয়ে পরস্পরের নাগরিকদের জন্য ‘অন অ্যারাইভাল’ ভিসা সার্ভিস বন্ধ করে দিয়েছে শ্রীলঙ্কা ও বাংলাদেশ। শ্রীলঙ্কা গত ৭ সেপ্টেম্বর থেকে কলম্বো পৌঁছানো বাংলাদেশিদের অন-অ্যারাইভাল ভিসা দিচ্ছে না। অথচ এ বিষয়ে দুদেশের মধ্যে চুক্তি রয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে বাংলাদেশি নাগরিকদের ভোগান্তির পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকায়ও শ্রীলঙ্কার নাগরিকদের জন্য গত ১১ সেপ্টেম্বর থেকে অন-অ্যারাইভাল ভিসা বন্ধ রাখা হয়েছে। ইতিমধ্যে ঢাকায় দায়িত্বরত শ্রীলঙ্কান হাইকমিশনারকে তলব করে কারণও জানতে চেয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। কিন্তু শ্রীলঙ্কার স্পষ্ট কোনো জবাব নেই। তবে শুরুতে স্বীকার করলেও এখন ভিসা বন্ধ থাকার বিষয়টি অস্বীকার করছে শ্রীলঙ্কা। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, শনিবার বাংলাদেশের যাত্রীরা কলম্বো বিমানবন্দরে নেমে আটকা পড়ার পর অন-অ্যারাইভাল ভিসা বন্ধের বিষয়টি জানাজানি হয়। কিন্তু কলম্বো থেকে ঢাকায় অফিসিয়ালি কিছু জানানো হয়নি। কলম্বো ওই পদক্ষেপ নেওয়ার পর ঢাকায় তাদের হাইকমিশনার ইয়াসোজা গুনাসাকেরাকে ঈদের ছুটির মধ্যে গত রবিবার তলব করা হয়েছিল। অতিরিক্ত পররাষ্ট্র সচিব কামরুল হাসান কারণ জানতে চান। জবাবে হাইকমিশনার বলেন, কলম্বোতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে ভিসা সুবিধা বন্ধের যথাযথ কারণ জেনে তা বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে জানানো হবে। কিন্তু গতকাল পর্যন্ত এ বিষয়ে বাংলাদেশের সঙ্গে আর কোনো ধরনের যোগাযোগ করেনি শ্রীলঙ্কা। পরে ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের ইমিগ্রেশন পুলিশের ওসি আবদুল্লাহ আল মামুন জানিয়েছেন, কিছু না জানিয়েই শ্রীলঙ্কা অন অ্যারাইভাল ভিসা বন্ধ করে দেওয়ায় বাংলাদেশও শ্রীলঙ্কান যাত্রীদের ওই সুবিধা দেওয়া বন্ধ রেখেছে।

শ্রীলঙ্কার গণমাধ্যম হিরু নিউজ শ্রীলঙ্কা ইমিগ্রেশন দফতরের ভিসা ও সীমান্ত ব্যবস্থাপনা দফতরের নিয়ন্ত্রক মাদুমা বান্দারাকে উদ্ধৃত করে একটি প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছে, ‘আইএস জঙ্গিদের প্রবেশ ঠেকাতে’ কলম্বো কয়েকটি দেশের নাগরিকদের অন অ্যারাইভাল ভিসা দেওয়ার ক্ষেত্রে কড়াকড়ি আরোপ করেছে, যার মধ্যে বাংলাদেশও রয়েছে। মাদক চোরাচালান ঠেকানোও এই পদক্ষেপের একটি উদ্দেশ্য। আবার একই সময়ে শ্রীলঙ্কার ইমিগ্রেশন ও বহির্গমন বিভাগের কম্পট্রোলার জেনারেল এম এন রানাসিংহ দাবি করেছেন, এ বিষয়ে শ্রীলঙ্কা সরকার নীতিগত পরিবর্তন আনার কোনো সিদ্ধান্ত নেয়নি। আগের মতোই বাংলাদেশের নাগরিকেরা অনলাইন অথবা অন অ্যারাইভাল; দু্ই প্রক্রিয়াতেই ভিসার আবেদন জানাতে পারবেন।

অপরদিকে, শ্রীলঙ্কার এমন সিদ্ধান্তের পরও দেশটির বিমান সংস্থা মিহিন লঙ্কা ঢাকা থেকে যাত্রী নিয়ে কলম্বো গিয়েছে। সেখানে বিমানবন্দরে যাওয়ার পর আর ঢুকতে দেওয়া হয়নি বাংলাদেশিদের। ফলে বিমানবন্দরেই রাত কাটাতে হয়েছে বাংলাদেশিদের। এখন ঢাকায় থাকা শ্রীলঙ্কার বড় সংখ্যক নাগরিকও বিমানবন্দরে রাত কাটানোর মতো ভোগান্তিতে পড়তে বাধ্য হচ্ছেন। তবে ঢাকার কর্মকর্তারা বলছেন, শ্রীলঙ্কা যত দ্রুত আনুষ্ঠানিক আলোচনায় আসবে তত দ্রুতই সমস্যার সমাধান হবে।

up-arrow