Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : রবিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২৩:৩৮
সড়কে মৃত্যুর মিছিল
ঝরল আরও ২৩ প্রাণ, ভয়ঙ্কর হয়ে উঠেছে টাঙ্গাইল মহাসড়ক
প্রতিদিন ডেস্ক
সড়কে মৃত্যুর মিছিল

ঈদের পর গতকাল বিভিন্ন সড়কে আরও ২৩ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। আমাদের নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর—

টাঙ্গাইল : ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের মির্জাপুর ইছাইলে যাত্রীবাহী বাস ও ইটভর্তি ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে নারী-শিশুসহ পাঁচজন নিহত হয়েছেন।

আহত হয়েছেন কমপক্ষে ২০ যাত্রী। ঈদের আগে থেকেই ভয়ঙ্কর হয়ে উঠেছে এ মহাসড়কটি। গতকাল সকাল ৭টার দিকে কুড়িগ্রাম থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী যাত্রীবাহী বাস ও টাঙ্গাইলগামী ইটভর্তি ট্রাকের মধ্যে এ সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলে এক শিশু ও নারী নিহত হন। খবর পেয়ে মির্জাপুর থানা ও হাইওয়ে পুলিশ এবং ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা গিয়ে আহতদের উদ্ধার করে কুমুদিনী হাসপাতালে পাঠান। হাসপাতালে নেওয়ার পর আরও তিনজন মারা যান। নিহতদের মধ্যে সালমা আক্তার (২৫) নামে একজনের পরিচয় জানা গেছে। টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসক মাহবুব হোসেন দুর্ঘটনায় নিহতদের লাশ পরিবারের কাছে পৌঁছানো বাবদ ২০ হাজার ও আহতদের চিকিৎসার জন্য ১০ হাজার করে টাকা তাত্ক্ষণিক অনুদান ঘোষণা করেন। এদিকে বঙ্গবন্ধু সেতু সংযোগ সড়কের কালিহাতী উপজেলার আনালিয়াবাড়ী নামক স্থানে সকাল ৯টার দিকে প্রাইভেট কারের ধাক্কায় মোটরসাইকেলের চালকসহ দুজন নিহত হয়েছেন।

মধুপুর : টাঙ্গাইল-ময়মনসিংহ সড়কের মধুপুর উপজেলার মালাউড়ি নামক স্থানে যাত্রীবাহী বাস ও ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে ৪ জন নিহত ও অন্তত ৩০ জন আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে ৪ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। গতকাল সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতের মধ্যে একজনের পরিচয় পাওয়া গেছে, তিনি হলেন মধুপুরের পোদ্দারবাড়ী গ্রামের লিটন (৩০)। মধুপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. শফিকুল ইসলাম জানান, টাঙ্গাইল থেকে ময়মনসিংহগামী ‘প্রান্তিক পরিবহন’-এর একটি যাত্রীবাহী বাস মধুপুরের মালাউড়ি নামক স্থানে পৌঁছালে বিপরীত থেকে আসা অন্য একটি ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই এক নারীসহ ৪ জন নিহত ও অনন্ত ৩০ জন আহত হন। দুর্ঘটনার পরপরই মধুপুর থানা পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থল থেকে আহতদের উদ্ধার করে মধুপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এবং ময়মনসিংহ ও টাঙ্গাইল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠান।

সিলেট : সিলেটের গোলাপগঞ্জে যাত্রীবাহী বাস খাদে পড়ে দুই বোনের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন অন্তত ১৫ জন। গতকাল সকালে সিলেট-বিয়ানীবাজার-জকিগঞ্জ সড়কের ফুলবাড়ী এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন গোলাপগঞ্জের গোয়াসপুর গ্রামের কয়েছ মিয়ার মেয়ে শুভা (১১) ও তাম্মি (৬)। শুভা স্থানীয় একটি স্কুলের ষষ্ঠ শ্রেণি ও তাম্মি নার্সারিতে পড়ালেখা করত। গোলাপগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মীর মো. আবু নাসের জানান, সকাল সাড়ে ১০টার দিকে সিলেট থেকে বড়লেখাগামী একটি যাত্রীবাহী মিনিবাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশে খাদে পড়ে উল্টে যায়। এ সময় অন্তত ১৫ জন আহত হন। শুরুতর আহত অবস্থায় শুভা ও তাম্মিকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলে সেখানে তাদের মৃত্যু হয়। পুলিশ বাসটি আটক করেছে। তবে চালক পালিয়ে গেছেন।

গোপালগঞ্জ : গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে বাস ও মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে সোহেল মোল্লা (২২) নামে এক যুবক নিহত হয়েছেন। গতকাল সকাল সাড়ে ১০টার দিকে কাশিয়ানী উপজেলার রাজপাট-মুকসুদপুর সড়কের শালবরাত নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতের বাড়ি কোটালীপাড়া উপজেলা সদরে। তার বাবার নাম জালাল মোল্লা।

ফরিদপুর : ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের ফরিদপুর অংশের মল্লিকপুরে গতকাল দুপুরে বাসচাপায় জয়নাল শেখ নামে এক পথচারী নিহত হয়েছেন। স্থানীয়রা জানান, ঢাকা থেকে কুষ্টিয়াগামী এম এম পরিবহনের যাত্রীবাহী একটি বাস পথচারী জয়নাল শেখকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। ট্রাফিক সার্জেন্ট ওয়াহিদুল ইসলাম জানান, বাসটি আটক করা গেলেও চালক পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়েছেন।

রাজশাহী : রাজশাহী মহানগরীতে অটোরিকশা উল্টে এক শিশু শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। গতকাল দুপুর ১টার দিকে নগরীর সপুরা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত শিশুর নাম হাসান আলী (১২)। সে নগরীর খ্রিস্টানপাড়া মালদা কলোনি এলাকার শহিদুল ইসলামের ছেলে। বোয়ালিয়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সেলিম বাদশা জানান, হাসান আলী সপুরায় কামাল হোসেন নামে এক ব্যক্তির অটোরিকশা গ্যারেজে কাজ করত। দুপুরে গ্যারেজের সামনে একটি অটোরিকশা চালিয়ে দেখছিল। এ সময় নিয়ন্ত্রণ হারালে অটোরিকশাটি উল্টে যায়। তার নিচেই চাপা পড়ে সে গুরুতর আহত হয়। রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

নোয়াখালী : নোয়াখালীতে বরযাত্রীবাহী মিনিবাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খালে পড়ে গিয়ে ১০ জন আহত হয়েছেন। গুরুতর অবস্থায় ৭ জনকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালসহ বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটে গতকাল বিকাল ৩টায় জেলার সোনাইমুড়ী উপজেলার নদনা ব্রিজের কাছে।

জানা গেছে, শুক্রবার সোনাইমুড়ীর শাকতলা দাখিল মাদ্রাসার ভারপ্রাপ্ত সুপার হাফেজ উল্লার মেয়ের বিয়ে সম্পন্ন হয়। গতকাল বেগমগঞ্জ উপজেলায় বৌভাত অনুষ্ঠানে বরযাত্রীরা অংশ নেওয়ার জন্য একটি মিনিবাসযোগে যাওয়ার সময় দুর্ঘটনায় পতিত হয়।

ঝালকাঠি : ঝালকাঠি-পিরোজপুর আঞ্চলিক মহাসড়কের রাজাপুরের পিংড়ি এলাকায় সড়ক দুর্ঘটনায় সজীব ও খলিল নামে দুই মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও একজন। গতকাল বিকাল সাড়ে ৪টায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত সজীব রাজাপুরের আলগী গ্রামের সেলিম হাওলাদার ও খলিল পটুয়াখালীর তাফালবাড়ী গ্রামের রুহুল আমিনের ছেলে। পুলিশ জানায়, জেলার পিংড়ি এলাকায় ঝালকাঠিগামী একটি মোটরসাইকেলের সঙ্গে বিপরীত থেকে আসা একটি বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হলে দুই মোটরসাইকেল আরোহী ঘটনাস্থলেই মারা যান। এ সময় শারমিন আক্তার নামে অন্য মোটরসাইকেল আরোহী গুরুতর আহত হন। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে রাজাপুর স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করেছেন। রাজাপুর থানা পুলিশ বাসটি আটক করলেও চালক পলাতক রয়েছেন।

কুমিল্লা : কুমিল্লায় প্রাইভেট কারের ধাক্কায় আবদুল বারেক (৩৫) নামে এক মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হয়েছেন। গতকাল সন্ধ্যায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লা বুড়িচং উপজেলার কালাকচুয়ায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত আবদুল বারেক কুমিল্লা নগরীর নানুয়ার দিঘির পাড় এলাকার মো. সোলাইমানের ছেলে। পুলিশ সূত্র জানায়, সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় আবদুল বারেক কালাকচুয়ায় মদিনা তেলের পাম্প থেকে মোটরসাইকেলে তেল নিয়ে যাওয়ার সময় তাকে চট্টগ্রামগামী একটি প্রাইভেট কার ধাক্কা দিয়ে পালিয়ে যায়। পরে নিহত বারেককে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে কুমিল্লা ময়নামতি ক্লিনিকে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

ভোলা : গতকাল ভোলায় পৃথক দুর্ঘটনায় ৩ জন নিহত হয়েছেন। বিকালে তজুমদ্দিন উপজেলার বাংলাবাজার ব্রিজ থেকে নামার সময় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে অটোরিকশা উল্টে পড়ে গিয়ে মাহবুবুর রহমান (৩৫) নামে এক যাত্রীিনহত হন। একই সময় তজুমদ্দিনের শিবপুর গ্রামের আবদুল মান্নান (২২) বিদ্যুত্স্পৃষ্টে মারা যান। এ ছাড়া সকালে ভোলা সদর উপজেলার পূর্ব ইলিশা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনের সড়কে বাসের ধাক্কায় গুরুতর আহত হন ওই স্কুলের শিক্ষক খবির উদ্দিন খান। তাকে প্রথমে ভোলা সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়, সেখান থেকে বরিশাল নেওয়ার পথে বিকালে মারা যান।

শ্রীমঙ্গল (মৌলভীবাজার) : মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল উপজেলার হবিগঞ্জ সড়কের শাহজিবাজার এলাকায় গতকাল বিকালে সিএনজিচালিত অটোরিকশার সঙ্গে মোটরসাইকেলের সংঘর্ষে মোটরসাইকেল চালক ভানু রায় নিহত হয়েছেন। তিনি শহরতলির রূপসপুর এলাকার বসন্ত রায়ের ছেলে।

পীরগঞ্জ : ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে মাইক্রোবাসের ধাক্কায় সন্তোষ নামে এক যুবক নিহত হয়েছেন। গতকাল বিকালে দুর্গাপুর নামক এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, রাণীশংকৈল উপজেলার গোপীনাথপুর গ্রামের তারাকিশোর রায়ের ছেলে সন্তোষ রায় (২৫) মোটরসাইকেল নিয়ে পীরগঞ্জ থেকে বাড়ি ফেরার পথে একটি মাইক্রোবাসের সঙ্গে ধাক্কা খান। এতে তিনি গুরুতর আহত হন। পীরগঞ্জ হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

up-arrow