Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : মঙ্গলবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২২:৫০
এসিডে ঝলসানো পুলিশের লাশ উদ্ধার
শেরপুর প্রতিনিধি

শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন ও এসিডে দগ্ধ পুলিশ কনস্টেবল রকিবুল হাসানের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। রকিবুল শেরপুর পুলিশ লাইনে কর্মরত ছিলেন। গতকাল সকাল ১০টার দিকে পুলিশ লাইন সংলগ্ন পূর্বশেরী এলাকার রাস্তার পাশে একটি বৈদ্যুতিক খুঁটির নিচ থেকে লাশটি উদ্ধার করে শেরপুর সদর থানা পুলিশ। পুলিশ জানায়, নিহত পুলিশ কনস্টেবল টাঙ্গাইল জেলার দেলদুয়ার উপজেলার শৈলকুড়িয়া গ্রামের শাহজাহান মিয়ার ছেলে। তিনি ২০১৫ সালে ১৫ নভেম্বর চাকরিতে যোগদান করে শেরপুর পুলিশ লাইনে কর্মরত ছিলেন। প্রাথমিকভাবে লাশের বিভিন্ন স্থানে ধারালো অস্ত্রের আঘাত এবং শরীরের কিছু অংশ এসিডে দগ্ধের চিহ্ন পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় জড়িত থাকতে পারে সন্দেহে পুলিশ শেরপুরের আলোচিত মক্ষীরানী মিনু বেগম ওরফে নীলার মাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে। মিনুর বাড়ি পুলিশ লাইন সংলগ্ন। এই মক্ষীরানীর বাড়িতে অনেকেই যাতায়াত করত। সে এলাকায় নারী ব্যবসার সরদারনী বলে পরিচিত। রকিবুলের লাশ পাওয়ার স্থান মিনুর বাড়ি সংলগ্ন। সে কিছু জানতে পারে বা হত্যার সঙ্গে জড়িত থাকতে পারে এমন সন্দেহে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মিনুকে গ্রেফতার করেছে বলে জানিয়েছে জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাজাহান সিকদার। তিনি আরও জানান, বিকালে রকিবুলের লাশ ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের লোকজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা যায় এটি একটি হত্যাকাণ্ড। এ ব্যাপারে পুলিশ হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছে বলেও তিনি জানান। এ ব্যাপারে পুলিশের অপর একটি সূত্র জানিয়েছে, পুলিশ লাইনে রবিবার রাত ৮টার রুল কলে রকিবুল উপস্থিত ছিলেন। রাত ১০টার দিকেও তাকে পুলিশ লাইনে দেখা গেছে। এরপর কখন কীভাবে রকিবুল বাইরে গেল তা কেউ বলতে পারছে না। পুলিশ সুপার মেহেদুল করিম জানিয়েছেন মাথায় আঘাতজনিত কারণে রকিবুলের মৃত্যু হয়েছে। এটা পরিষ্কার একটি হত্যাকাণ্ড।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow