Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২৩:০৮
পাল্টা হামলা আতঙ্কে পাকিস্তান
প্রতিদিন ডেস্ক

কিছুদিন ধরে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে যাচ্ছেতাই সম্পর্ক যাচ্ছে। এর মধ্যে গত রবিবার কাশ্মীরে জঙ্গিদের হামলায় ১৭ ভারতীয় সেনা নিহত হওয়ার পর দুই দেশের সম্পর্ক এখন ভেঙে  যাওয়ার উপক্রম। এ অবস্থায় ভারত পাকিস্তানে হামলা চালাতে পারে সেখানে এমন আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। পাকিস্তানে গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ করছে ভারতের সেনাবাহিনী পাকিস্তানের সীমান্তের কাছাকাছি এলাকায় ক্রমেই সরে আসছে। ভারত পাকিস্তানে যে কোনো মুহূর্তে হামলা চালাতে পারে এমন একটি আশঙ্কাও তৈরি হয়েছে সেখানে। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেল রাহিল শরিফের সঙ্গে দফায় দফায় আলাপ করেছেন বলে খবর পাওয়া যাচ্ছে। পাকিস্তানের উত্তরাঞ্চলে এনিয়ে বেশ সতর্ক অবস্থা অবলম্বন করা হচ্ছে।

পাকিস্তানের রাষ্ট্রীয় বিমান সংস্থা পিআইএ’র একজন মুখপাত্র জানিয়েছেন, সকাল থেকে গিলগিট, স্কার্দু ও চিত্রাল এলাকায় ‘বিমান পথ বন্ধ করে দিয়েছে দেশটির বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ। বিবিসি জানায়, ভারত পাকিস্তানকে আক্রমণ করতে পারে এমন আশঙ্কায় এসব ফ্লাইট বন্ধ রাখা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ইসলামাবাদ ও পেশোয়ারের মধ্যকার মূল মহাসড়কের কিছু অংশও বন্ধ রাখা হয়েছে।

ভারত শাসিত কাশ্মীরের উরিতে জঙ্গিদের হামলায় ১৭ জন সৈন্য নিহত হওয়ার পর ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং পাকিস্তানকে একটি সন্ত্রাসী রাষ্ট্র বলে আখ্যায়িত করেছেন। রবিবারের এই হামলার পেছনে পাকিস্তানের পরোক্ষ বা প্রত্যক্ষ ভূমিকা ছিল বলে মনে করছেন ভারতের অনেক সেনা কর্মকর্তা বা নিরাপত্তা বিশ্লেষক। ভারত কীভাবে এর জবাব দেবে তা ঠিক করার জন্য দিল্লিতে সিনিয়র মন্ত্রীদের সঙ্গে এক বৈঠক করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ভারত তার প্রাথমিক প্রতিক্রিয়ায় বলেছে, পাকিস্তান-ভিত্তিক জয়েশ-এ-মুহম্মদ নামের একটি জঙ্গি গোষ্ঠী এ ঘটনা ঘটিয়েছে। তবে এ ঘটনায় জড়িত থাকার কথা জোরালোভাবে অস্বীকার করেছে পাকিস্তান। কিন্তু বিষয়টিকে কেন্দ্র করে দুই দেশের মধ্যে নতুন করে আবারও উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। এদিকে, ভারতের প্রধানমন্ত্রী মোদি গতকাল সন্ধ্যায় মন্ত্রিসভার এক বৈঠকে কাশ্মীর নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেছেন। সেখানে বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। কাশ্মীর উপত্যকা আজ ৭৪তম দিনের মতো গতকালও অচল ছিল। বিবিসি

এই পাতার আরো খবর
up-arrow