Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২৩:৩১
টাম্পাকো ট্র্যাজেডি
বিসিকের অচলাবস্থা এখনো কাটেনি
আফজাল হোসেন, টঙ্গী

গাজীপুরের টঙ্গী বিসিক শিল্প এলাকার টাম্পাকো ফয়েলস অ্যান্ড প্যাকেজিং কারখানায় ঘটে যাওয়া  ভয়াবহ অগ্নি দুর্ঘটনার পর কিছু অদূরদর্শী সিদ্ধান্তে বিসিকে অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। বিসিকে প্রবেশের মূল সড়কটি সকাল থেকে রাত দশটা পর্যন্ত বন্ধ করে রাখা হয়। এতে স্কুলগামী শিক্ষার্থী, কারখানা শ্রমিক-কর্মচারী এমনকি মালবাহী গাড়ি চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হচ্ছে। এদিকে দুর্ঘটনায় হতাহত শ্রমিকদের পরিবারকে আর্থিক সহযোগিতা দেওয়ার পদক্ষেপ নিয়েছে বিসিকের কারখানা মালিকরা।

 বিসিকের গার্মেন্ট মালিকরা বলেন, বিসিকের মেইন সড়কটি বন্ধ করে দেওয়ায় এখানকার বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শ্রমিক-কর্মচারী, যানবাহন চলাচল করতে পারছে না। বর্তমানে বিসিকের বিভিন্ন কারখানার মালবাহী গাড়ি মধুমিতা সড়ক দিয়ে চলাচলের কারণে এই সড়কে যানজট সার্বক্ষণিকভাবে লেগেই থাকে। ফলে মধুমিতা থেকে বিসিক পর্যন্ত যেতে সময় লাগে এক থেকে দেড় ঘণ্টা। এতে বিভিন্ন কারখানার মালামাল পরিবহনে মারাত্মক অচলাবস্থার সৃষ্টি হচ্ছে। তাছাড়া এই দুর্ঘটনার খবরে বিদেশি ক্রেতারা বিসিকে প্রবেশ করছেন না। স্থানীয় কাউন্সিলর আবুল হোসেন বলেন, ঘটনার পর পর টাম্পাকো কারখানার পূর্ব পাশ দিয়ে বিসিকে প্রবেশের মেইন সড়ক এবং পশ্চিম পাশের সড়কটি বন্ধ করে দেয় পুলিশ। এ অবস্থা এখনো বিরাজমান। ফলে বিসিকের মালামাল পরিবহনের গাড়িগুলো মধুমিতা সড়কটি ব্যবহার করতে গিয়ে যানজটে পড়ে। বিসিক কারখানা মালিক সমিতির সেক্রেটারি মো. মহিউদ্দিন বলেন, হতাহতদের পাশে দাঁড়ানোর উদ্যোগ নিয়েছি। টাকা উঠানোর কার্যক্রম চলছে। এ পর্যন্ত ৮/৯ লাখ টাকা উঠানো হয়েছে। উত্তোলিত অর্থ স্থানীয় এমপির উপস্থিতিতে হতাহতদের মাঝে বিতরণ করা হবে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow