Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২৩:৩৬
টাইগারদের সামনে আজ দুই মাইলফলক
মেজবাহ্-উল-হক

‘ছোট’ দলের বিরুদ্ধে খেলা হচ্ছে ‘থ্যাঙ্কসলেস জব’। জিতলে মনে হবে সেটা তো প্রাপ্যই ছিল। কিন্তু হারলে ‘ব্যবচ্ছেদ’ করা হবে নানাভাবে। বিভিন্ন ‘অ্যাঙ্গেল’ খুঁজে খুঁজে করা হবে সমালোচনা। ভাগ্যিস প্রথম ম্যাচটা জিতে গিয়েছে বাংলাদেশ! তবে আফগানদের বিরুদ্ধে মাত্র ৭ রানের জয়ে যে কারও মন ভরেনি তা সহজেই অনুমেয়। তবে আজ দ্বিতীয় ম্যাচে ভালোভাবে জিতেই দর্শকের প্রত্যাশা পূরণ করতে চান টাইগাররা।

 আজ বাংলাদেশের সামনে অপেক্ষা করছে দুটি মাইলফলক। একটি, শততম ওয়ানডে জয়ের হাতছানি। আরেকটি ঘরের মাঠে টানা ষষ্ঠ ওয়ানডে সিরিজ জয়ের অনন্য এক রেকর্ড। এর আগে বাংলাদেশ ঘরের মাঠে পাকিস্তান, ভারত, দক্ষিণ আফ্রিকা ও জিম্বাবুয়ের বিরুদ্ধে দুটি ওয়ানডে সিরিজ জিতেছে। আজ আফগানিস্তানকে হারিয়েই মাইলফলক স্পর্শ করতে চান অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। তিনি বলেন, ‘এটা বাংলাদেশের জন্য বড় অর্জন হবে। আমরা চেষ্টা করব দ্বিতীয় ম্যাচেই যেন সেটা হয়। এজন্য আমাদেরকে ভালো ক্রিকেট খেলতে হবে।’ ক্রিকেটে আফগানিস্তানের চেয়ে বাংলাদেশ এখন যোজন যোজন এগিয়ে। কিন্তু খুব ধারালো অস্ত্রটা যদি অব্যবহূত অবস্থায় খুব সযতনেও রাখা হয় তবে তাতে মরিচা না ধরলেও তার স্বাভাবিক কার্য ক্ষমতা ফিরে পেতে সময় লাগে। আবার মরিচা ধরা অস্ত্রও নিয়মিত ব্যবহারের কারণে তারা ধারালো হয়ে যায়। টাইগাররা গত ওয়ানডে ম্যাচটা খেলেছে দীর্ঘ ১১ মাস পর, আর এই সময়ের মধ্যে ১১টি ওয়ানডে খেলেছে আফগানরা। তাই প্রথম ম্যাচে জয় পাওয়াটাই ছিল বাংলাদেশের জন্য একটা চ্যালেঞ্জ। তবে দুই দলের শক্তিমত্তার আসল পার্থক্যটা বোঝা যাবে দ্বিতীয় ও তৃতীয় ম্যাচেই। প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশ দলকে দেখে মনে হয়েছে যেন তারা ফিল্ডিংও ভুলে গেছে। স্ট্যাম্পিং মিস হচ্ছে। হাত থেকে ক্যাচ ফসকে যাচ্ছে। এক রানের জায়গায় হয়ে যাচ্ছে দুই রান। ব্যাটিং সময় বাংলাদেশ দলকে বেশ নার্ভাসই মনে হয়েছে। বিগ শট করতে গিয়ে থেমে যাচ্ছিলেন ব্যাটসম্যানরা। সেট হওয়ার পর আউট হয়ে যাচ্ছেন। অনেক সমস্যা ছিল গত ম্যাচে। বোলিংয়েও ছিল অনেক সমস্যা। কিন্তু আজ পূর্ণ আত্মবিশ্বাসই নিয়েই মাঠে নামছে বাংলাদেশ। অনেক দিন পরে ওয়ানডে খেলার কারণে প্রথম ম্যাচে ক্রিকেটারদের মধ্যে একটা জড়তা কাজ করলেও দ্বিতীয় ম্যাচে সেটা আর থাকবে না। তা ছাড়া যেকোনো দলের বিরুদ্ধে সিরিজের প্রথম ম্যাচটা সবচেয়ে কঠিন। টাইগার ক্যাপ্টেন বলেন, ‘প্রথম ম্যাচে বের হয়ে যেতে পারলে অনেক ফ্রি থাকা যায়। আফগানিস্তানের সঙ্গে প্রথম ম্যাচে বড় কিছু না হলেও একটা কঠিন পার্ট চলে গেছে। আশা করি সামনের ম্যাচে মানসিকভাবে ভালো অবস্থানে থাকব আমরা।’

এই পাতার আরো খবর
up-arrow