Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২৩:৪১
শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে হারল টাইগাররা
মেজবাহ্-উল-হক

একসময় বোলিংয়ে স্পিন ছিল টাইগারদের প্রধান অস্ত্র। বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরাও স্পিনের বিরুদ্ধে ছিলেন দুর্দান্ত।

কিন্তু গতকাল মিরপুরে সেই স্পিনেই দিশাহারা হয়ে গেল বাংলাদেশ। আফগানিস্তানের কাছে ২ উইকেটে হেরে গেল টাইগাররা। সিরিজে এখন ১-১ সমতা।

গতকাল যেন দুই দলের স্পিনারদের একটা পরীক্ষাই হয়ে গেল। সেখানেও পিছিয়ে বাংলাদেশের স্পিনাররা। সাকিব ৪ উইকেট নিলেও দিয়েছেন ৪৭ রান। তাইজুল কোনো উইকেট পাননি, দিয়েছেন ৩৮ রান। ৫০ ওভারের মধ্যে কাল ৩২ ওভারই করেছেন স্পিনাররা। রান দিয়েছেন ১১৯। অথচ আফগানিস্তানের তিন স্পিনার মোহাম্মদ নবী, রশিদ খান ও রহমত মিলে ২৮ ওভারে দিয়েছেন মাত্র ৮১ রান। বাংলাদেশ কাল হেরে যায় মূলত প্রথম ইনিংসেই। আফগান বোলিংয়ের বিরুদ্ধে কিনা মাত্র ২০৮ রানেই অলআউট! এই স্কোরও হতো না, যদি না ৭ নম্বরে ব্যাট করতে নেমে মোসাদ্দেক হোসেন ৪৫ বলে ৪৫ রানের হার না মানা ইনিংস খেলতেন। ব্যাটসম্যানদের আত্মাহুতির দিনে একাই লড়াই করেছেন অভিষিক্ত এই ক্রিকেটার। বল হাতেও দারুণ সফল মোসাদ্দেক। ১০ ওভারে মাত্র ৩০ রান দিয়ে নিয়েছেন ২ উইকেট। তবে মোসাদ্দেকের স্বপ্নিল অভিষেকের দিনেও হারের বেদনায় জর্জরিত হলো বাংলাদেশ। ব্যাটসম্যানদের আত্মাহুতির পর্ব শুরু হয়েছিল তামিমকে দিয়েই। আফগান বোলার দৌলতের স্লোয়ার বুঝতে না পেরে ২০ রানে থার্ডম্যানে সহজ ক্যাচ তুলে দেন। ২০ রান করে ফিরে যান আরেক ওপেনার সৌম্যও। কাভারে ক্যাচ তুলে দেন। তৃতীয় উইকেটে মুশফিক ও মাহমুদুল্লাহ মিলে ৬১ রানের জুটি গড়লেও দুজনই বাজেভাবে আউট হয়ে যান। সাকিবের উইকেট নিয়ে কিছুটা বিতর্ক থাকলেও উইকেট বিলিয়ে দিয়ে এসেছেন সাব্বির রহমানও। তবে ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতার পরও বোলারদের দৃঢ়তায় ম্যাচে রুদ্ধশ্বাস পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল। কিন্তু ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতার সঙ্গে যোগ হলো ফিল্ডিংয়ের ব্যর্থতা। ক্যাচ মিস ও স্টাম্পিং মিসের কারণে হেরে গেল বাংলাদেশ।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow