Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২৩:৪৫
কল্যাণপুরের সেই ৯ জঙ্গির লাশও বেওয়ারিশ দাফন
নিজস্ব প্রতিবেদক

রাজধানীর কল্যাণপুরে জাহাজ বিল্ডিংয়ে (তাজ মঞ্জিল) পুলিশের অভিযানে নিহত নয় জঙ্গির লাশ জুরাইন কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। গতকাল বেলা সোয়া ১১টার দিকে আঞ্জুমানে মুফিদুল ইসলামের কাছে লাশগুলো হস্তান্তর করে ঢাকা মেডিকেল কলেজের ফরেনসিক বিভাগ। পরে তারা লাশগুলো দাফনের ব্যবস্থা করে। জানতে চাইলে ফরেনসিক বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. সোহেল মাহমুদ বলেন, গত ২৬ জুলাই কল্যাণপুরে পুলিশের অভিযানে নিহতদের লাশ ময়নাতদন্তের পর ফ্রিজেই ছিল। বুধবার সকালে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম এসে লাশগুলো বুঝে নিতে চান। এ সময় তিনি বলেন, লাশগুলো তারা আঞ্জুমানের কাছে হস্তান্তর করবেন। পরে লাশগুলো তার কাছে হস্তান্তর করি। তার মাধ্যমেই আঞ্জুমানে মুফিদুল ইসলামের কাছে দেওয়া হয়েছে। তবে মর্গের ফ্রিজে এখনো নারায়ণগঞ্জের নিহত তিন, রূপনগর ও আজিমপুরের অভিযানে নিহত দুই জঙ্গির লাশ রাখা হয়েছে। আঞ্জুমানে মুফিদুল ইসলামের নির্বাহী পরিচালক ইলিয়াস আহমেদ বলেন, পুলিশ আমাদের বেওয়ারিশ হিসেবে লাশগুলো হস্তান্তর করে। দুপুরের দিকে জুরাইন কবরস্থানে সেগুলোর দাফন সম্পন্ন করা হয়েছে। এর আগে নিহত নয় জঙ্গির মধ্যে আটজনের আঙ্গুলের ছাপ নিয়ে জাতীয় পরিচয়পত্রের (এনআইডি) সঙ্গে মিলিয়ে পরিচয় নিশ্চিত করে পুলিশ। নিহত জঙ্গিরা হলো— দিনাজপুরের আবদুল্লাহ, টাঙ্গাইলের আবু হাকিম নাইম, ধানমন্ডির তাজ-উল-হক রাশিক, সাতক্ষীরার মতিয়ার রহমান, গুলশানের আকিফুজ্জামান খান, ভাটারা এলাকার সেজাদ রউফ অর্ক, নোয়াখালীর জোবায়ের হোসেন ও রংপুরের রায়হান কবির। বাকি একজনের পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি। এ বিষয়ে অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (মিডিয়া) ইউসুফ আলী বলেন, নিহতদের পরিবার লাশ নেওয়ার ব্যাপারে কোনো যোগাযোগ বা আবেদন করেননি। তাই লাশগুলো আঞ্জুমানে মুফিদুল ইসলামের কাছে হস্তান্তর করি। একইভাবে গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্তোরাঁয় কমান্ডো অভিযানে নিহত পাঁচ জঙ্গিসহ মোট ছয়জনের লাশ গত ২২ সেপ্টেম্বর জুরাইনে দাফন করা হয়।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow