Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২৩:৫০
বাসে চড়ে অফিসে গেলেন মন্ত্রী
নিজস্ব প্রতিবেদক
বাসে চড়ে অফিসে গেলেন মন্ত্রী

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের গতকাল দুই দফায় পাবলিক বাসে যাতায়াত করেছেন। গতকাল সকালে সংসদ ভবনের বাসা থেকে বের হয়ে যাত্রীবাহী বাসে চড়ে সচিবালয়ে নিজ দফতরে গিয়েছেন।

শুধু তাই নয়, সাধারণ যাত্রীদের মতো টিকিট কেটে লাইনে দাঁড়িয়ে তিনি বিআরটিসির বাসে উঠেছেন। বিকালে আবারও তিনি ফার্মগেট থেকে বিআরটিসির এসি বাসে করে আবদুল্লাহপুর পর্যন্ত গিয়েছেন। এ সময় মন্ত্রীর গানম্যান ও এপিএসসহ একাধিক কর্মকর্তা তার সঙ্গে ছিলেন। মন্ত্রীর এই বাসযাত্রা তার ফেসবুক পেজে প্রকাশ করা হয়েছে। বাসে চড়ে মন্ত্রী যাত্রীদের কাছ থেকে নানা অভিযোগ শুনেছেন। তাত্ক্ষণিভাবে বিআরটিসির মতিঝিল ডিপোর ব্যবস্থাপক ও পরিচালককে শোকজও করেছেন। মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, ওবায়দুল কাদের গতকাল সকাল ৯টা ৫০ মিনিটে আসাদগেট বাসস্ট্যান্ড থেকে বিআরটিসি বাসের টিকিট কেটে লাইনে দাঁড়ান। এরপর একটি দোতলা বাসে উঠে সকাল ১০টা ৪০ মিনিটে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে নামেন। তারপর সেখান থেকে সচিবালয়ে যান। মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, আসাদগেট থেকে বাসে উঠে মন্ত্রী যাত্রীদের চমকে দেন। তারা মন্ত্রীকে বাসে চড়তে দেখে ভীষণ খুশিও হন। যাত্রীদের একজন মন্ত্রীর বসার জন্য নিজের আসন ছেড়ে দেন। কিন্তু মন্ত্রী সেই আসনে বসেননি। পরে একটি আসনে বসলেও একপর্যায়ে মন্ত্রী দোতলা বাসের উভয় তলার যাত্রীদের সঙ্গে কথা বলেন, তাদের অভিযোগ শোনেন। মন্ত্রীকে কাছে পেয়ে একজন যাত্রী বলেন, বিআরটিসি বাসের সেবার মান খুবই খারাপ। বাসের চালক ও হেল্পার-কন্ডাক্টররা অনেক সময় যাত্রীদের সঙ্গে খারাপ আচরণ করেন। সরকারি বাসের বেশিরভাগ ফ্যানই নষ্ট থাকে। এ কথা শুনে যাত্রীদের সঙ্গে নিয়ে মন্ত্রী নিজেই দেখেন ওই বাসের ১২টি ফ্যানের মধ্যে ১১টিই নষ্ট। এ চিত্র দেখে মন্ত্রী সঙ্গে সঙ্গে বিআরটিসির মতিঝিল ডিপোর ব্যবস্থাপক ও পরিচালককে শোকজ করেন। ওই বাসে থাকা কয়েকজন শিক্ষার্থী সরকারি বাসে ‘হাফ ভাড়া’ না নেওয়ায় মন্ত্রীর কাছে ক্ষোভ প্রকাশ করেন। নারী যাত্রীরা অভিযোগ করেন, অধিকাংশ সময়ই নারীদের জন্য বরাদ্দকৃত আসনে পুরুষরা বসে থাকেন। বলার পরও উঠতে চান না। এসব অভিযোগ শুনে করণীয় ঠিক করবেন ও সিদ্ধান্ত নেবেন বলে যাত্রীদের আশ্বস্ত করেন মন্ত্রী। এ ছাড়া যাত্রীরা মন্ত্রীর কাছে অভিযোগ করে বলেন, আসাদগেট থেকে ফার্মগেট হয়ে যেসব গাড়ি মতিঝিল-গুলিস্তানে চলাচল করে, অফিস সময়ে এসব গাড়ি ফার্মগেট সিগন্যালে দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করতে হয়। জবাবে মন্ত্রী এ সমস্যা সমাধানের পথ খোঁজা হবে বলেও যাত্রীদের আশ্বস্ত করেন। বিকালে মন্ত্রী সচিবালয়ের দফতর থেকে বের হয়ে নিজের গাড়িতে করে প্রথমে ফার্মগেট যান। সেখান থেকে তিনি মতিঝিল-আবদুল্লাহপুর রোডে চলাচলকারী বিআরটিসির এসি বাসে চড়ে আবদুল্লাহপুর পর্যন্ত যান। তবে বিকালের যাত্রায় মন্ত্রী যাত্রীদের কাছ থেকে খুব একটা অভিযোগ পাননি। সড়ক বিভাগের সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা আবু নাসের বাংলাদেশ প্রতিদিনকে জানান, মতিঝিল-আবদুল্লাহপুর রোডে চলাচলকারী এসি বাসে এর আগে একবার অভিযান চালিয়েছিলেন মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। ওই সময় বাসের ভাঙাচুরা অবস্থা দেখে অসন্তোষ প্রকাশ করেছিলেন এবং দ্রুত এগুলো মেরামতের নির্দেশ দিয়েছিলেন।   মন্ত্রীর দফতর সূত্রে জানা গেছে, মন্ত্রী মাঝে মধ্যেই এভাবে পাবলিক বাসে চড়ে অফিসে যাতায়াত করবেন। ঝটিকা অভিযান চালাবেন।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow