Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ৬ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৫ অক্টোবর, ২০১৬ ২৩:১৩
ভারতে ফের বড় হামলার ছক
প্রতিদিন ডেস্ক
ভারতে ফের বড় হামলার ছক

পাকিস্তান অধিকৃত কাশ্মীরে ভারত গত সপ্তাহে যে ‘সার্জিক্যাল স্ট্রাইক’ চালিয়েছিল, তার সব ভিডিও, মানচিত্র, গোটা অভিযানের চিত্র গতকাল কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার বৈঠকে জমা দিয়েছে ভারতীয় সেনাবাহিনী। আর ভারতসহ গোটা বিশ্বের মানুষের কৌতূহল মেটাতে সেসব ভিডিও দেখানো হবে কিনা, তার দায়িত্ব মন্ত্রিসভার ওপরই ছেড়ে দিয়েছে সেনাবাহিনী।

এদিকে আসছে কনকনে শীতের আগে দুই দেশের মধ্যকার সড়কপথগুলো তুষারে ঢেকে যাওয়ার আগেই পাকিস্তানের সেনাবাহিনী বা পাকিস্তান মদদপুষ্ট জঙ্গিরা আবার ভারতে ঢোকার চেষ্টা করতে পারে বা বড়সড় হামলা চালাতে পারে বলে মন্ত্রিসভার এ দিনের বৈঠকে জানিয়েছেন সেনা কর্মকর্তা। মন্ত্রিসভা সূত্রে জানানো হয়েছে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সভাপতিত্বে এ দিনের বৈঠকে পাঞ্জাব, রাজস্থান ও জম্মু-কাশ্মীরের আন্তর্জাতিক সীমান্ত ও নিয়ন্ত্রণরেখার সাম্প্রতিক পরিস্থিতি এবং আইনশৃঙ্খলার হালও সেনাবাহিনীর তরফে তুলে ধরা হয়। ‘সার্জিক্যাল স্ট্রাইক’-এর ‘বিশ্বাসযোগ্যতা’ নিয়ে ভারতের রাজনৈতিক মহলের একাংশে যে সন্দেহের সৃষ্টি হয়েছে, তা দূর করতে ওই ভিডিওগুলো এখনই প্রকাশ্যে আনা উচিত হবে কিনা, তা নিয়ে দীর্ঘক্ষণ আলাপ-আলোচনা হয় এ দিনের বৈঠকে। বৈঠকে পক্ষে ও বিপক্ষে দুই রকম মতই উঠে আসে। কেউ মত দিয়েছেন, ওই ভিডিওগুলো এখনই প্রকাশ্যে এনে বিরোধী ও সমালোচকদের মুখ বন্ধ করে দেওয়া উচিত। আবার কেউ বলেছেন, ওই ভিডিওগুলো প্রকাশ্যে আনলে ভারতীয় সেনাবাহিনীর অভিযানের কৌশল শত্রুরাও জেনে ফেলবে। গতকালই একটি সর্বভারতীয় দৈনিকে প্রকাশিত রিপোর্টে প্রত্যক্ষদর্শীদের বিবরণ দিয়ে দেখিয়ে দেওয়া হয়েছে, ২৮ সেপ্টেম্বরের রাত থেকে ২৯ সেপ্টেম্বরের ভোর পর্যন্ত ভারত কীভাবে ‘সার্জিক্যাল স্ট্রাইক’ চালিয়েছিল। উরির ভারতীয় সেনাছাউনিতে জঙ্গি হামলার ১০ দিন পর ভারতীয় সেনাবাহিনীর চালানো ওই ‘সার্জিক্যাল স্ট্রাইকে’ কম করে ৫০ জন জঙ্গির মৃত্যু হয় পাকিস্তান অধিকৃত কাশ্মীরে।

পাকিস্তান আগ্রাসী নীতি অবলম্বন করে না— নওয়াজ শরিফ : পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ দাবি করেছেন, পাকিস্তান কোনো দেশের প্রতিই আক্রমণাত্মক নীতি অবলম্বন করে না। মঙ্গলবার সামরিক ও বেসামরিক নেতাদের সঙ্গে আলোচনায় তিনি এসব কথা বলেন। ওইদিন ভারতের সঙ্গে পাকিস্তানের সীমান্তে নিয়ন্ত্রণরেখা ও কাশ্মীরের বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে ন্যাশনাল অ্যাকশন প্ল্যান (এনএপি) এবং ন্যাশনাল সিকিউরিটি কাউন্সিলের দুটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয় প্রধানমন্ত্রীর দফতরে। এসব বৈঠকে নওয়াজ বলেন, ‘পাকিস্তান কোনো দেশ বা জাতির সঙ্গে আক্রমণাত্মক নীতিতে বিশ্বাসী নয়। আমরা শান্তি ও সামষ্টিক উন্নতিতে বিশ্বাসী। ’

উত্তেজনার মধ্যেই দিল্লি-ওয়াশিংটন প্রতিরক্ষা চুক্তির তোড়জোড় : মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা ক্ষমতায় আছেন আর মাস দুয়েক। বর্তমান মার্কিন সরকারের সঙ্গে ভারতের সম্পর্ক যথেষ্ট ভালো। আসছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের পর সে দেশের পররাষ্ট্রনীতি কেমন দাঁড়াবে, তা নিয়ে নিশ্চিত নয় দিল্লি। ওবামা ক্ষমতায় থাকার মধ্যেই দ্রুত প্রতিরক্ষা চুক্তি স্বাক্ষর করতে চাইছে ভারত। এএফপি, বিবিসি, টাইমস অব ইন্ডিয়া, ডন।

up-arrow