Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : রবিবার, ৯ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ৮ অক্টোবর, ২০১৬ ২৩:৩৫
ফের বাগ্‌যুদ্ধ আজ
বেফাঁস মন্তব্যে চাপে ট্রাম্প, উচ্ছ্বসিত হিলারি
প্রতিদিন ডেস্ক
ফের বাগ্‌যুদ্ধ আজ

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনকে সামনে রেখে বেফাঁস মন্তব্য করে ভালো রকম চাপে পড়েছেন রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প। তবে তার মন্তব্যের কারণে দারুণ উচ্ছ্বসিত অবস্থানে আছেন ডেমোক্রেটিক পার্টির হিলারি ক্লিনটন।

এমন প্রেক্ষাপটে  আজ দুই প্রার্থীই দ্বিতীয় দফায় বাগ্যুদ্ধে লিপ্ত হচ্ছেন। এ বাগযুদ্ধ হবে ওয়াশিংটনের সেন্ট লুইস ইউনিভার্সিটিতে। দুজনই এর জন্য পুরো প্রস্তুতি নিয়েছেন। এর আগের বাগযুদ্ধে পরাজিত হয়েছিলেন ট্রাম্প। বেফাঁস মন্তব্য তাকে এখন আরও কোণঠাসা করে রেখেছে। তবে এ দফায় তিনি নিজের অবস্থার কতটুকু উত্তরণ ঘটাতে পারেন—তার ওপর নির্ভর করছে ভবিষ্যৎ।

ট্রাম্পের বেফাঁস মন্তব্য : ‘তারকা হলে পুরুষ নারীদের নিয়ে যা ইচ্ছা তা-ই করতে পারে’—এমন মন্তব্য ছিল মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পের। শুধু তা-ই নয়, ২০০৫ সালের একটি ভিডিও টেপে তিনি সগর্বে এক বিবাহিত নারীর সঙ্গে যৌন সম্পর্ক স্থাপন চেষ্টার বর্ণনাও দিয়েছেন। সুন্দরী নারী দেখলেই তিনি চুমু খাওয়ার চেষ্টা করেন বলে উল্লেখ করেন। নারী নিয়ে ট্রাম্পের এমন বেফাঁস মন্তব্য ফাঁস হয়ে গেছে। গত শুক্রবার ওয়াশিংটনে পোস্টে প্রচার করা হয়েছে ওই ভিডিও। এমন মন্তব্যের জন্য খোদ রিপাবলিকান পার্টিতেই কঠোর সমালোচনার মুখে পড়েছেন ট্রাম্প। পার্টির জ্যেষ্ঠ নেতারা তাকে নিয়ে বিব্রত ও লজ্জিত। তবে এক বিবৃতিতে পরিস্থিতি সামলানোর চেষ্টা করে ট্রাম্প বলেছেন, বহু বছর আগে ব্যক্তিগত আলাপচারিতার সময় তিনি ঠাট্টার ছলে এসব কথা বলেছেন। এ জন্য কেউ মনঃক্ষুণ্ন হলে তিনি ক্ষমা প্রার্থী। তিনি দাবি করেন, বিল ক্লিনটন এর চেয়েও অশ্লীল কথা বলেন। বিবিসি, এএফপি ও রয়টার্সের খবরে জানানো হয়, ‘অ্যাকসেস হলিউড’ নামের এক অনুষ্ঠানের জন্য এনবিসি টিভির উপস্থাপক বিলি বুশের সঙ্গে এক ভিডিওতে ট্রাম্পকে কথা বলতে দেখা গেছে। অ্যাকসেস হলিউড নিশ্চিত করেছে, ওই ভিডিও টেপটি তাদের প্রতিবেদনের জন্য নেওয়া হয়েছিল। সংরক্ষণাগারে তারা তা খুঁজে পেয়েছেন। ওই ভিডিওতে বিলি বুশের উদ্দেশে ট্রাম্পকে বলতে দেখা গেছে, ‘তারকা হলে তুমি নারীর সঙ্গে যা ইচ্ছা তাই করতে পার। ’ সেখানে কোনো একজন বিবাহিত নারীর বিষয়ে ট্রাম্পকে বলতে শোনা যায়, ‘আমি তার সঙ্গে যৌন সম্পর্ক স্থাপনের চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছি। সে বিবাহিত ছিল। ’ এরপর ট্রাম্প ওই নারীর সঙ্গে কীভাবে যৌন সম্পর্ক স্থাপনের চেষ্টা করেছিলেন, এ নিয়ে আরও কিছু আপত্তিকর বর্ণনা দেন। তিনি বলেন, সুন্দর নারী দেখলেই তিনি আকৃষ্ট হন। অপেক্ষা না করে তাদের চুম্বনের চেষ্টা করেন। ট্রাম্পকে আরও বলতে শোনা যায়, তারকা পুরুষদের এমন আচরণ নারীরা মেনে নেন। তারকা হলে নারীদের সঙ্গে যা ইচ্ছা তা-ই করা যায়। টিভি উপস্থাপক বিলি বুশকে ট্রাম্প বলেন, ‘নারীদের ...খপ করে ধরো। তারপর যা ইচ্ছা করো। ’ এমন ফুটেজ ফাঁস হওয়ায় বিব্রত টিভি উপস্থাপক বিলি বুশও। তিনি বলেন, ভিডিওর এই বিষয়বস্তুর জন্য তিনি অস্বস্তি ও লজ্জাবোধ করছেন। এর কোনো অজুহাত হয় না। ১১ বছর আগে তার বয়স আরও কম ছিল। তিনি অপরিণত ছিলেন। পুরো বিষয়টির জন্য তিনি দুঃখিত। এ ধরনের মন্তব্যের জন্য রিপাবলিকান পার্টির জ্যেষ্ঠ নেতারা ট্রাম্পের কঠোর সমালোচনা করেছেন। হাউস স্পিকার পল রায়ান বলেন, ট্রাম্পের এমন কথা শুনে তিনি অসুস্থবোধ করছেন। সিনেট নেতা মিচ ম্যাককনেল বলেন, নারী নিয়ে ট্রাম্পের মন্তব্য আপত্তিকর। এ ধরনের মন্তব্যের জন্য ট্রাম্পের সরাসরি সব নারীদের কাছে ক্ষমা চাওয়া উচিত। আরেক জ্যেষ্ঠ রিপাবলিক নেতা জন ম্যাককেইন বলেন, এ ধরনের অশোভন ও হীন মন্তব্যের জন্য ট্রাম্পের কোনো অজুহাত দেওয়া উচিত নয়। ডেমোক্রেট প্রার্থী হিলারি ক্লিনটনের সঙ্গে দ্বিতীয় বিতর্কে অংশ নেওয়ার দুদিন আগে ট্রাম্পের এই ভিডিও প্রকাশ্যে আনা হলো। এর প্রতিক্রিয়ায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে দেওয়া এক বার্তায় হিলারি ক্লিনটন বলেন, ‘ট্রাম্পের বক্তব্য ভয়ঙ্কর। এই ব্যক্তিকে আমরা প্রেসিডেন্ট হতে দিতে পারি না। ’

up-arrow