Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শুক্রবার, ১৪ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৩ অক্টোবর, ২০১৬ ২৩:১৫
দুই মেগা প্রকল্পের ভিত্তি উন্মোচন
রেজা মুজাম্মেল, চট্টগ্রাম

কর্ণফুলী নদীর তলদেশে টানেল এবং বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল নির্মাণের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হবে আজ। প্রায় ২৫ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিতব্য চট্টগ্রামের এ দুটি মেগা প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর ও নির্মাণকাজের ফলক ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যৌথভাবে উন্মোচন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও চীনা রাষ্ট্রপতি শি জিনপিং। ইতিমধ্যে আনোয়ারায় বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলে যাওয়ার সড়ক তৈরির কাজ শুরু হয়েছে। বসানো হচ্ছে কর্ণফুলী নদীতে টানেল নির্মাণের জন্য নেভাল একাডেমি পয়েন্টে উদ্বোধনী ফলক। বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষ (বেজা) সূত্রে জানা যায়, আনোয়ারার বেলচূড়া, হাজিগাঁও, বটতলী বৈরাগ ও গহিরা এলাকার ৭৭৪ একর ভূমিতে চায়না হারবার ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি এই অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তোলার উদ্যোগ নেয়। এর মধ্যে জেলা প্রশাসন ২৯০ একর খাসভূমি ইতিমধ্যে বেজার নামে নিবন্ধন করে দিয়েছে। বাকি ৪৮৪ একর ভূমি অধিগ্রহণের কাজ চলমান। তবে রাস্তা নির্মাণে প্রায় ৯ একর ভূমি এখনো অধিগ্রহণ করা হয়নি। প্রায় ১৬ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ের এই প্রকল্পে তৈরি পোশাক কারখানা, রাসায়নিক, ফার্মাসিউটিক্যালস, টেলিযোগাযোগ, কৃষিনির্ভর শিল্প-কারখানা, যন্ত্রপাতি, ইলেকট্রনিকস, টেলিভিশন, মনিটর, চিকিৎসা ও অপারেশনের যন্ত্র, প্লাস্টিক, আইটি ও আইটি সম্পর্কিত শিল্প, জাহাজ নির্মাণ শিল্প, ফার্নেস, সিমেন্টশিল্পসহ ৩৭১টি শিল্প-কারখানা গড়ে তোলা হবে। তবে প্রাধান্য দেওয়া হবে জাহাজ নির্মাণ শিল্প, ইলেকট্রনিকস, ফার্নেস ও সিমেন্টশিল্পকে। ২০১৭ সালে কাজ শুরু হয়ে শেষ হবে ২০২০ সালে। বেজার চেয়ারম্যান পবন চৌধুরী বলেন, আনোয়ারার বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠার কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক ভিত্তিপ্রস্তর আজ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হবে।

পক্ষান্তরে ‘কর্ণফুলী নদীর তলদেশ দিয়ে বহুলেন সড়ক টানেল নির্মাণ’ শীর্ষক প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে চট্টগ্রামের কর্ণফুলী নদীর পতেঙ্গা এলাকায়। ৮ হাজার ৪৪৬ কোটি ৬৩ লাখ টাকা (সম্ভাব্য) ব্যয়ের টানেলের অ্যালাইনমেন্ট হবে চট্টগ্রাম এয়ারপোর্ট থেকে কর্ণফুলী নদীর দুই কিলোমিটার ভাটির দিকে। টানেলের প্রবেশপথ হবে নেভি কলেজের কাছে, বহির্গমন পথ হবে কর্ণফুলী নদীর দক্ষিণ পাড়ের সিইউএফএল সার-কারখানা সংলগ্ন ঘাট। মোট ৯২৬৫ দশমিক ৯৭১ মিটার দৈর্ঘ্যের প্রকল্পটির মধ্যে টানেলের দৈর্ঘ্য ৩০০৫ মিটার (উভয় পাশের ৪৭৭ মিটার ওপেন কাট ছাড়া)। টানেলে থাকবে ৯২০ মিটার দৈর্ঘ্যের দুটি ফ্লাইওভার। এর মধ্যে শহর প্রান্তের ‘এট গ্রেড সেকশন’ হবে ৪৬০ মিটারের আর দক্ষিণ প্রান্তের ‘এট গ্রেড সেকশন’ হবে ৪৪০৩ দশমিক ৯৭১ মিটারের। দেশের প্রথম এই টানেলটি হবে ‘ডুয়েল টু লেন’ টাইপের। টানেলটি নির্মাণ করা হবে শিল্ড ড্রাইভেন মেথডে।

কর্ণফুলীর তলদেশ দিয়ে বহুলেন সড়ক টানেল নির্মাণ প্রকল্পের পরিচালক প্রকৌশলী ইফতেখার কবির বলেন, কর্ণফুলী টানেল নির্মাণের প্রাথমিক পর্যায়ের সব কাজ শেষ। আজ এর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হবে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow