Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : সোমবার, ১৭ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ১৬ অক্টোবর, ২০১৬ ২৩:৩১
হেলপার সোহেল রিমান্ডে
এবার অ্যাম্বুলেন্স চালকদের ধর্মঘট
নিজস্ব প্রতিবেদক

ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল চত্বরে অ্যাম্বুলেন্স চাপায় দুই নারী ও শিশুসহ চারজন নিহতের পর উল্টো অ্যাম্বুলেন্স ধর্মঘট ডেকেছে চালকরা। গতকাল তারা এ কর্মসূচি   পালন করে।

এদিকে এ ঘটনায় গত শনিবার রাতে শাহবাগ থানায় মামলা হয়েছে। মামলার বাদী হয়েছেন নিহত গুলেনুরের স্বামী ফেরদৌস মিয়া। এতে অ্যাম্বুলেন্স মালিক মাহফুজ, মূল চালক নাসির ও চালকের সহকারী সোহেলকে আসামি করা হয়েছে। এ ঘটনায় সোহেলকে গ্রেফতার করা হলেও অ্যাম্বুলেন্স মালিক মাহফুজ ও মূল চালক নাসির পলাতক। গতকাল ঢাকা মহানগর হাকিম সত্যব্রত শিকদার অ্যাম্বুলেন্স চালকের সহকারী সোহেলকে একদিন রিমান্ডে নেওয়ার অনুমতি দেন। এর আগে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আসামিকে ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করে সাত দিন রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করেন। এদিকে গতকাল ঢামেক হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ একজন উপ-পরিচালককে প্রধান করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। কমিটিকে আগামী পাঁচ দিনের মধ্যে তদন্ত রিপোর্ট দিতে বলা হয়েছে। অ্যাম্বুলেন্স মালিক ও হাসপাতালের ওয়ার্ড বয় মাহফুজকে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ কারণ দর্শানো নোটিসও করেছে।

পুলিশি অভিযান : গতকাল সকালে ঢামেক হাসপাতালের সামনের ফুটপাথ থেকে প্রায় অর্ধশতাধিক অবৈধ দোকানপাট উচ্ছেদ করেছে পুলিশ। একই সময় হাসপাতালের সামনে থেকে অবৈধভাবে গড়ে ওঠা অ্যাম্বুলেন্স স্ট্যান্ড উচ্ছেদ করা হয়। লাশ হস্তান্তর : গত শনিবার নিহত চারজনের লাশ ময়নাতদন্ত শেষে গতকাল সকালে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ লাশ বহন করতে নিহতদের পরিবারকে ২০ হাজার টাকা করে অনুদান দিয়েছে। নিহত গুলেনুরের স্বামী ফেরদৌস স্ত্রী ও সন্তান সাকিবের লাশ বুঝে নেওয়ার সময় কান্নায় ভেঙে পড়েন।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow