Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : শুক্রবার, ৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:১৮
প্রধানমন্ত্রীকে ছাত্রের চিঠি, নির্মিত হচ্ছে স্কুল ভবন
নিজস্ব প্রতিবেদক

বিদ্যালয়ের জীর্ণদশার কথা জানিয়ে এক ছাত্র প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে চিঠি দেওয়ার পর দোতলা ভবন কাম সাইক্লোন শেল্টার পাচ্ছে বরগুনার বেতাগীর ৩৪ নম্বর জলিশাহাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। ওই বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র মো. মাইনুল ইসলাম স্কুলের দশা তুলে ধরে গত ২৯ ডিসেম্বর প্রাথমিক শিক্ষা সপ্তাহের অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর হাতে একটি লিখিত আবেদন তুলে দেয়। উপস্থিত বক্তৃৃতায় জাতীয় পর্যায়ের তৃতীয় পুরস্কার প্রধানমন্ত্রীর হাত থেকে নিতে ঢাকা এসেছিল মাইনুল। খবর বিডিনিউজের। প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার জানান, বর্ষার সময় স্কুলে পানি ওঠার কথা জানিয়ে প্রাথমিক শিক্ষা সপ্তাহের অনুষ্ঠানে ওই শিক্ষার্থী প্রধানমন্ত্রীকে একটি কাগজ দিয়েছিল। বিদ্যালয়টি বেড়িবাঁধের বাইরে ব্যারের ডোন নদীর তীরে অবস্থিত হওয়ায় প্রতি বছর জোয়ারের পানিতে প্লাবিত হয়। যার ফলে আমাদের দৈনন্দিন লেখাপড়া ও খেলাধুলা করতে কষ্ট হয়। ‘আপনার কাছে আমার বিনীত প্রার্থনা, যাতে আমরা অতি শিগগিরই একটি দ্বিতল ভবন কাম সাইক্লোন শেল্টার পেয়ে উন্নত পরিবেশে লেখাপড়া করতে পারি তার বিহীত বিধানে মর্জি হন। ’ এই চিঠির সঙ্গে শ্রেণিকক্ষে ঢুকে যাওয়া পানির মধ্যে বেঞ্চে বসে শিক্ষার্থীদের ক্লাস করার একটি ছবি এবং বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে পানিতে শিক্ষার্থীদের বই নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকার আরও তিনটি ছবিও জুড়ে দেয় মাইনুল। মাইনুলের চিঠি পেয়ে প্রধানমন্ত্রী জলিশাহাট স্কুলের জন্য জরুরি ভিত্তিতে ‘দ্বিতল ভবন কাম সাইক্লোন শেল্টার’ নির্মাণের ব্যবস্থা নিতে বলেছেন জানিয়ে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা সচিবকে চিঠি দেয় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়। ওই চিঠি পেয়ে ভবন নির্মাণের নির্দেশনা দিয়ে গত ১ ফেব্রুয়ারি প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালককে চিঠি দেয় গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। গণশিক্ষামন্ত্রী ফিজার বলেন, ‘আমাদের তাত্ক্ষণিকভাবে দ্বিতল ভবন কাম সাইক্লোন শেল্টার নির্মাণের সুযোগ আছে। সেখানে (ওই বিদ্যালয়ে) যা যা করার করব, শুষ্ক মৌসুমেই কাজ শেষ করা হবে। ’

এই পাতার আরো খবর
up-arrow