Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ২০ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, রবিবার, ২০ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : রবিবার, ৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:০৭
নতুন ইসির জন্য অপেক্ষা
মেয়াদ শেষ ৮ ফেব্রুয়ারি, কাল সার্চ কমিটির বৈঠক
মাহমুদ আজহার
নতুন ইসির জন্য অপেক্ষা

আর মাত্র তিন দিন পর প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি)সহ অনধিক পাঁচ সদস্যের নির্বাচন কমিশন (ইসি) পাচ্ছে বাংলাদেশ। তাই নির্বাচন কমিশন নিয়ে নানা আলোচনা সর্বত্র।

কে হচ্ছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার, কমিশনার হয়ে আসছেন কারা— তা নিয়ে জল্পনা-কল্পনার শেষ নেই। সবাই নতুন ইসির অপেক্ষায়। কমিশনার পদে যারাই আসুন, এবার ইসিতে একজন নারী সদস্য থাকছেন— তা অনেকটাই নিশ্চিত। কমিশন কত সদস্যের হতে পারে নিশ্চিত না হলেও পাঁচ সদস্যের অধিক হওয়ার সুযোগ নেই। তবে রাষ্ট্রপতি চাইলে এর কমও করতে পারেন। বর্তমান নির্বাচন কমিশনের মেয়াদ শেষ হচ্ছে ৮ ফেব্রুয়ারি।

৩১ জানুয়ারি রাজনৈতিক দলগুলো অনুসন্ধান কমিটির কাছে পাঁচটি করে নাম প্রস্তাব করে। এতে কমিটির হাতে ২৫টি দলের অন্তত ১২৫ জনের নাম আসে। একই নাম আসে একাধিক রাজনৈতিক দলের তালিকা থেকে। চূড়ান্ত তালিকা এখনো প্রকাশ করেনি সার্চ কমিটি। আগেরবার অবশ্য নামের তালিকা প্রকাশ করা হয়েছিল। রাজনৈতিক দলগুলো থেকে পাওয়া শতাধিক নাম থেকে ২০ জনের একটি সংক্ষিপ্ত তালিকা করেছে সার্চ কমিটি। সেখান থেকে ১০ জনে নামিয়ে আনা হবে। এ নিয়ে আগামীকাল বৈঠকে বসবে সার্চ কমিটি। মঙ্গলবারের মধ্যেই তা পাঠানো হবে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের কাছে। সেখান থেকে চূড়ান্তভাবে নিয়োগ দেবেন রাষ্ট্রপতি। অবশ্য রাজনৈতিক দলগুলোর মতামতের বাইরেও নামের সুপারিশ করতে পারে সার্চ কমিটি।

সূত্রমতে, সার্চ কমিটির করা ২০ জনের তালিকার প্রত্যেকের জীবনবৃত্তান্ত সংগ্রহ করার জন্য সংশ্লিষ্টদের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। আগামীকালের বৈঠকের আগেই তাদের পারিবারিক তথ্য, শিক্ষাজীবন, কর্মজীবন এবং অবসর-পরবর্তী কর্মকাণ্ড বিষয়ে বিস্তারিত সংগ্রহ করা হবে। এগুলো পর্যালোচনা করে নাম চূড়ান্ত করবে কমিটি। এ ছাড়া সার্চ কমিটি ১৬ বিশিষ্ট নাগরিকের মতামতের ভিত্তিতে নতুন নির্বাচন কমিশনের জন্য একটি পরামর্শ বা প্রস্তাব দিতে পারে। বিশিষ্ট নাগরিকদের এই মতামতের চুম্বক অংশ মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হবে। ৭ ফেব্রুয়ারি বর্তমান সিইসি কাজী রকিবউদ্দীন আহমদ রাষ্ট্রপতির সঙ্গে বিদায়ী সাক্ষাৎ করবেন। বিকাল সাড়ে ৩টায় এ সাক্ষাৎ হবে। পরদিন বর্তমান কমিশনকে বিদায় সংবর্ধনা জানানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে নির্বাচন কমিশন সচিবালয়। ৮ ফেব্রুয়ারি সংবর্ধনা শেষে কাজী রকিবউদ্দীন সংবাদ সম্মেলনও করতে পারেন।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন ও বিধি) আবদুল ওয়াদুদ বলেন, ‘রাজনৈতিক দলগুলোর কাছ থেকে পাওয়া নাম থেকে বাছাই করে ২০ জনের যে সংক্ষিপ্ত তালিকা করা হয়েছিল, সেগুলো আরও পর্যালোচনা করেছে সার্চ কমিটি। এ তালিকা থেকে ১০ জন চূড়ান্ত করা হবে। এজন?্য তাদের বিষয়ে আরও খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে। তথ?্য-উপাত্ত সংগ্রহ করা হচ্ছে। ’ সার্চ কমিটির একজন সদস্য নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, রাজনৈতিক দলগুলোর কাছ থেকে তারা প্রত্যাশিত মানদণ্ডের ব্যক্তি পেয়েছেন। এখন নামগুলো নিয়ে চলছে যাচাই-বাছাই। ১০ জনের নামের তালিকা চূড়ান্ত করে তা রাষ্ট্রপতির কাছে পাঠানো হবে। বাকি দায়িত্ব রাষ্ট্রপতির। তালিকা প্রকাশ করা হবে কিনা— জানতে চাইলে তিনি বলেন, এটাও কমিটির পরবর্তী বৈঠকেই ঠিক হবে। রাজনৈতিক দলগুলোর দেওয়া তালিকা থেকে ইসি গঠন বিষয়ে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, রাজনৈতিক দলগুলো যে নামের তালিকা দিয়েছে, তার মধ্য থেকেই ইসি গঠন করা উচিত। এর বাইরে যাওয়া ঠিক হবে না। সার্চ কমিটি যদি নিজেদের মতামতই দেয়, তাহলে রাজনৈতিক দলগুলোর মতামত নেওয়ার প্রয়োজন ছিল না। এখানে অনেক কমন নাম এসেছে, সেখান থেকেই নির্বাচন কমিশন নিয়োগ করা যেতে পারে।

up-arrow