Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ২০ নভেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, সোমবার, ২০ নভেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : রবিবার, ৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:১২
নিয়ম মেনে ঋণ দিলে দুদককে ভয় পেতে হবে না
নিজস্ব প্রতিবেদক
নিয়ম মেনে ঋণ দিলে দুদককে ভয় পেতে হবে না

বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির বলেছেন, ব্যাংকিং খাতের জন্য সুশাসন ও অভ্যন্তরীণ নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা শক্তিশালী হওয়া জরুরি। ব্যাংকগুলোর মূল কাজ ঋণ বিতরণের মাধ্যমে ব্যবসা করা।

নিয়ম মেনে ব্যবসা করতে হবে। তাহলে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) বা অন্য কোনো কর্তৃপক্ষকে ভয় পেতে হবে না। গতকাল রাজধানীর খামারবাড়ীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউটে রূপালী ব্যাংকের বার্ষিক ব্যবসায়িক সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। গভর্নর বলেন, দেশের ব্যাংকিং খাতে রাষ্ট্রায়ত্ত চার ব্যাংক ২৬ শতাংশ আমানত ও ১৭ শতাংশ ঋণ নিয়ন্ত্রণ করছে। তাদের শাখা রয়েছে তিন হাজার ৬০৩টি। এই বিশাল নেটওয়ার্ক সরকারের অগ্রাধিকার খাতে লেন্ডিং সুবিধা নিশ্চিত করাসহ সব সেফটিনেট প্রোগ্রাম বাস্তবায়ন করছে। ব্যাংকিং খাতের মোট খেলাপি ঋণের বড় অংশ এই চার ব্যাংকের। গভর্নর বলেন, বিষয়টিকে নিবিড়ভাবে দেখতে হবে। আইনের মধ্যে থেকে যা যা করা দরকার তা করতে হবে। ঋণ বিতরণে এসএমই খাতের প্রতি ফোকাস থাকতে হবে। বিশেষ করে ম্যানুফ্যাকচারিং ফোকাস এসএমই ঋণ দিতে হবে। এখানেই কর্মসংস্থান সবচেয়ে বেশি হয়। ফজলে কবির বলেন, সুশাসন প্রতিষ্ঠা করা যে কোনো প্রতিষ্ঠানের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। করপোরেট সুশাসনের বিষয়টি ব্যাংকিং খাতের জন্য বেশি প্রযোজ্য। এটি নিশ্চিত করতে ব্যাংকগুলোতে ইন্টারন্যাল কন্ট্রোল অ্যান্ড কমপ্লায়েন্স পরিপালন জরুরি। সব ব্যাংকেই এই পলিসি রয়েছে। এটি পরিপালন করতে হবে। ব্যাংকের এমডি অ্যান্ড সিইও আতাউর রহমান প্রধান বলেন, ‘২০১৭ সাল হবে রূপালী ব্যাংকের ঘুরে দাঁড়ানোর বছর। ঋণের প্রবাহ বৃদ্ধি করার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। মোট বিতরণকৃত ঋণের ৪০-৪৫% এসএমই খাতে দেওয়া হবে। রূপালী ব্যাংক সবার শীর্ষে অবস্থান করবে। রূপালী ব্যাংকে আগে খেলাপি ঋণ নিয়মিত দেখিয়ে এবং খেলাপি ঋণের বিপরীতে প্রভিশনিং না করে মুনাফা দেখানো হয়েছে। এখন আমরা সঠিক হিসাব করে পদক্ষেপ নিয়েছি। ’ অনুষ্ঠানে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সচিব ইউনুসুর রহমান, অতিরিক্ত সচিব অরিজিৎ চৌধুরী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। সম্মেলনে স্বাগত বক্তব্য রাখেন রূপালী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) আতাউর রহমান প্রধান। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ব্যাংকের চেয়ারম্যান মনজুর হোসেন, পরিচালক আবদুল বাসেত খান, ড. মো. হাসিবুর রশীদ প্রমুখ।

up-arrow