Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:১৮
পরিবেশ ঠিক না হলে গার্মেন্ট সাসপেন্ড
নিজস্ব প্রতিবেদক
পরিবেশ ঠিক না হলে গার্মেন্ট সাসপেন্ড

সংস্কার কাজে ব্যর্থ হওয়ায় বাংলাদেশের ১২৮টি কারখানার সঙ্গে সম্পর্ক বিচ্ছিন্ন করেছে পোশাক শিল্পের আন্তর্জাতিক ক্রেতাদের যৌথ সংগঠন অ্যালায়ান্স। গতকাল বিকালে রাজধানীর লেকশোর হোটেলে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান অ্যালায়ান্সের কান্ট্রি ডিরেক্টর ও বাংলাদেশে নিয়োজিত আমেরিকার সাবেক রাষ্ট্রদূত জেমস এফ মরিয়ার্টি।

তিনি বলেন, আমরা ২০১৮ সালের মধ্যে সব কারখানায় মেরামত কাজ সম্পন্ন করার চেষ্টা করছি। যে সব কারখানা নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে মেরামত কার্যক্রম বাস্তবায়ন করতে পারবে না তাদের সাসপেন্ড করা হবে। ইতিমধ্যে আমরা ১২৮টি কারখানার সঙ্গে সম্পর্ক বিচ্ছিন্ন করেছি। এ নিয়ে কোনো আপস করব না।

অন্যদিকে মেয়াদ শেষ হওয়ার পর অ্যালায়ান্স কর্তৃক নেওয়া পদক্ষেপসমূহ যাতে চলমান থাকে সে বিষয়েও পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

মরিয়ার্টি বলেন, আমরা কারখানার নানা সমস্যার জন্য হেল্প লাইনের ব্যবস্থা করেছিলাম। ইতিমধ্যে ১ লাখ ১৬ হাজার কল রিসিভ করেছি। সুতরাং এ ব্যবস্থা যাতে আমাদের মেয়াদকাল শেষ হলেও চালু থাকে সে বিষয়ে কাজ করা হবে।

এ যাবৎ ৯৪৭টি কারখানার ১ দশমিক ৩ মিলিয়ন শ্রমিককে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে। তাছাড়া ২৪ হাজার সিকিউরিটি গার্ডকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে বলে জানান জেমস এফ মরিয়ার্টি।

তবে মূলবৃদ্ধির প্রসঙ্গে অ্যালায়ান্সের কান্ট্রি ডিরেক্টর বলেন, এখন পোশাক শিল্পের বাজারে অনেক প্রতিযোগিতা রয়েছে। ভারতসহ অন্যান্য দেশ মান বজায় রেখে কাজ করলে বাংলাদেশকেও করতে হবে। তাছাড়া টিপিপি বাস্তবায়ন না হওয়ায় এ বাজারে বাংলাদেশের নতুন সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। এ সময় সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যদের মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন অ্যালায়ান্সের ডেপুটি ডিরেক্টর পল রিগবি, কাজী ওয়াহিদুল হক ও কামরুন্নেসা বাবলি।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow