Bangladesh Pratidin

ঢাকা, রবিবার, ১৯ নভেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, রবিবার, ১৯ নভেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : শুক্রবার, ১০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:১৮
কারাগারে রাজউকের সাবেক চেয়ারম্যান ও পারটেক্স পরিচালক
নিজস্ব প্রতিবেদক

প্লট বরাদ্দে অনিয়মের মামলায় রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (রাজউক) সাবেক চেয়ারম্যান ইকবাল উদ্দিন চৌধুরী এবং আম্বার গ্রুপের চেয়ারম্যান ও পারটেক্স গ্রুপের পরিচালক শওকত আজিজ রাসেলকে গ্রেফতার করা হয়েছে। দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) একটি দল রাজধানী থেকে গতকাল ভোরে তাদের গ্রেফতার করে।

ইকবাল উদ্দিন চৌধুরী সাবেক সচিব। শওকত আজিজ রাসেল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) পরিচালকও।

দুদক সূত্র জানায়, গতকাল ভোরে পরীবাগের বাসা থেকে ইকবাল উদ্দিন চৌধুরীকে এবং গুলশানের বাসা থেকে শওকত আজিজ রাসেলকে গ্রেফতার করা হয়।

প্লট বরাদ্দে অনিয়মের অভিযোগে মতিঝিল থানায় দায়ের করা মামলায় ইকবাল ও শওকতকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ওই মামলায় ইকবাল উদ্দিন চৌধুরীসহ রাজউকের তৎকালীন বোর্ডের ছয়জন এবং দুই ভাই শওকত আজিজ রাসেল ও আশফাক আজিজ রুবেলকে আসামি করা হয়। দুদক কর্মকর্তারা রুবেল আজিজকে গ্রেফতারের জন্য অভিযান চালালেও তাকে পাওয়া যায়নি। মামলায় বলা হয়, ক্ষমতার অপব্যবহার করে ও অবৈধ প্রভাব খাটিয়ে রাজউকের তৎকালীন চেয়ারম্যান ইকবাল উদ্দিন চৌধুরী দুই ভাই শওকত আজিজ রাসেল ও আশফাক আজিজ রুবেলের নামে পূর্বাচলে ২০ কাঠা জমি বরাদ্দ করেন। যদিও তারা জমির জন্য আবেদন করেননি। গত বুধবার ইকবাল উদ্দিন চৌধুরী ও রাসেল, রুবেলসহ আটজনকে আসামি করে মতিঝিল থানায় একটি মামলা করেন দুদকের উপসহকারী পরিচালক সিলভিয়া ফেরদৌস।

এরপর গতকাল দুজনকে গ্রেফতার করেন দুদক কর্মকর্তারা। মামলার বাকি পাঁচ আসামি এস ডি ফয়েজ, এ কে এম ওয়াহেদুল ইসলাম, এস এম জাফরুল্লাহ, এইচ এম জহিরুল হক ও রেজাউল করিম তরফদার একসময় রাজউক বোর্ডের সদস?্য ছিলেন। গতকাল দুপুরে ইকবাল চৌধুরী এবং রাসেল আজিজকে মহানগর হাকিম সত?্যব্রত শিকদারের আদালতে সোপর্দ করা হলে আদালত তাদের জামিন আবেদন নাকচ করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। দুদক তাদের সাত দিনের রিমান্ডের আবেদন জানালে আদালত রিমান্ড আবেদন নামঞ্জুর করে আগামী পাঁচ কার্যদিবসের মধ্যে যে কোনো দুই দিন তদন্ত কর্মকর্তা জেলগেটে আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদ করতে পারবেন বলে আদেশ দেয়।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow