Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:২৬
প্রধানমন্ত্রীকে সহায়ক সরকারের প্রস্তাব দেব
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রধানমন্ত্রীকে সহায়ক সরকারের প্রস্তাব দেব

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘নির্বাচনকালীন একটি নিরপেক্ষ সরকার ছাড়া সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয়। প্রধানমন্ত্রীর কাছে নির্বাচনকালীন সহায়ক সরকারের  প্রস্তাব দেব।

এটি নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গেই আলোচনা চাই। শিগগিরই সহায়ক সরকারের প্রস্তাব দেওয়া হবে। সরকার আলোচনার উদ্যোগ না নিলে দায় তাদেরই নিতে হবে। ’ গতকাল দুপুরে নয়াপল্টনে  দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে যৌথ সভা শেষে এক সংবাদ সম্মেলনে মির্জা ফখরুল এসব কথা বলেন। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘নবগঠিত নির্বাচন কমিশনে যাকে প্রধান নিযুক্ত করা হয়েছে তিনি প্রধান কমিশনার হওয়ার মতো যোগ্য ব্যক্তি নন। এই নির্বাচন কমিশনের অধীনে জাতীয় নির্বাচনে বিএনপি যাবে কিনা, তা অনেক পরের ব্যাপার। তবে স্থানীয় সরকার নির্বাচনে বিএনপি অংশ নিয়ে আসছে, সামনেও অংশ নেবে। ’

আরেক প্রশ্নের জবাবে বিএনপি মুখপাত্র বলেন, ‘মানুষ খুব ভালোভাবেই উপলব্ধি করে, নির্বাচনের সময় নিরপেক্ষ সরকার না থাকলে কারও পক্ষেই সুষ্ঠু নির্বাচন করা সম্ভব নয়। নিরপেক্ষ নির্বাচন পরিচালনায় সহায়ক সরকার দরকার। বিএনপি সহায়ক সরকারের প্রস্তাব দেবে। কারণ রাষ্ট্রপতিকে বলার কাজ শেষ হয়ে গেছে। তিনি যা করার তা করে ফেলেছেন। এখন বিএনপি প্রধানমন্ত্রীকেই সহায়ক সরকারের প্রস্তাব দেবে। সরকারকে আলোচনায় আসতে হবে, না হলে সব দায়ভার সরকারকেই বহন করতে হবে। ’ পদ্মা সেতু প্রকল্পে দুর্নীতির অভিযোগের বিষয়ে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘কোথায় নেই দুর্নীতি? শুধু পদ্মা সেতুই নয়, সবখানেই দুর্নীতি হচ্ছে। পদ্মা সেতু নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগ থেকে বিশ্বব্যাংক এখনো সরে আসেনি। দুর্নীতি যে হয়নি, তা তারা বলেনি। ’ এদিকে গতকাল দুপুরে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে এক আলোচনা সভায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় দাবি করেন, ‘বিএনপি আগামী নির্বাচনে না গেলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্বাচন করতে পারবেন না। কিন্তু শেখ হাসিনার অধীনে বিএনপি নির্বাচনে যাবেন না। দলীয় সরকারের অধীনে কখনই নির্বাচন নিরাপদ নয়। ’

up-arrow