Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ২০ নভেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, সোমবার, ২০ নভেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:১৯
আ-মরি বাংলা ভাষা
নতুন প্রজন্ম বাংলা পড়তে চায় না
শাহনাজ মুন্নী
নতুন প্রজন্ম বাংলা পড়তে চায় না

‘বাংলা ভাষা উচ্চারিত হলে নিকানো উঠোনে ঝরে রোদ/বারান্দায় লাগে জ্যোত্স্নার চন্দন। বাংলা ভাষা উচ্চারিত হলে অন্ধ বাউলের একতারা বাজে উদার গৈরিক মাঠে, খোলা পথে, উত্তাল নদীর বাঁকে বাঁকে, নদীও নর্তকী হয়।

কবি শামসুর রাহমানের এ লাইনগুলো বাংলা ভাষার প্রতি আমাদের অপরিসীম ভালোবাসা আর আবেগের বহিঃপ্রকাশ। বাংলা তো শুধু আমাদের মুখের ভাষাই নয়, হৃদয়ের ভাষাও। ভাষার প্রসঙ্গ এলেই আমাদের সামনে এসে দাঁড়ায় ১৯৫২। জ্বলজ্বল করে ২১ ফেব্রুয়ারি। মনে হয়, শহীদের রক্ত যেন মিশে আছে বাংলা ভাষা ও বাংলা বর্ণমালার সঙ্গে। ফলে বাংলা আমাদের মায়ের ভাষা, প্রাণের ভাষা— এমন উচ্ছ্বাসে ফেব্রুয়ারি এলে আমরা মেতে উঠি, ভেসে যাই। কিন্তু এসব আবেগী ভাবনার বাইরে এসে বাস্তবকেও তো অস্বীকার করতে পারি না। কেননা ভাষা নিয়ে সারা বছর সর্বত্রই তো দেখি এক ধরনের উদাসীনতা, দেখি বাংলা ব্যবহারে অসচেতনতা, দেখি নতুন প্রজন্ম বাংলা পড়তে চায় না, দেখি বাংলা ভাষায় অনায়াসে অনুপ্রবেশ ঘটছে বিস্তর উদ্ভট ও বিদেশি শব্দের। পৃথিবীর সব ভাষাতেই অন্য ভাষার মিশ্রণ আছে।

এ রকমও বলা হয় যে, ভাষায় নতুন নতুন শব্দ আসা যেমন স্বাভাবিক, তেমনি তা ভাষাকে সমৃদ্ধও করে। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে তাই ভাষার বাঁক বদলও অস্বাভাবিক নয়। কিন্তু কী হবে সেই নতুন শব্দ, আর কেমন হবে সেই বাঁক বদল, তা নিয়ে বিতর্ক আছে, আছে আশঙ্কাও। এটা ঠিক, ভাষা পোশাকের মতোই আমাদের জড়িয়ে থাকে, জড়িয়ে রাখে। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে পোশাকের ধরন আর স্টাইল যেমন বদলায়, ভাষাও তেমনি বদলায়, পরিবর্তিত হয়। ১০০ বা ৫০ বছর আগে যেভাবে আমরা বাংলা লিখতাম বা বলতাম, এখন কি আর সেভাবে বাংলা লিখি বা বলি? পণ্ডিতরাও বলেন, ভাষা নিয়ত পরিবর্তনশীল। বহতা নদীর মতো প্রবহমান। এটি কখনই এক জায়গায় দাঁড়িয়ে থাকে না। ভাষার পরিবর্তন অবশ্যম্ভাবী এবং তা রোধ করা যায় না। মানুষের মুখে মুখে, কবি-লেখকদের কলমের ডগায় ধীরে ধীরে ভাষার রূপান্তর ঘটে। ভাষার রূপান্তরকে মেনে নিতেই হবে। তবে রূপান্তরের বর্তমান ধারা দেখে মাঝে মাঝে মনে হয়, একবার টাইম মেশিনে চড়ে ২২১৭ সালে ঘুরে আসি। শুনে আসি বাংলা ভাষা। দেখি এই শতাব্দীর জানা-বোঝা দিয়ে সেই শতাব্দীর বাংলাকে বুঝতে পারি কিনা। কে জানে, তখন হয়তো বাংলা ভাষা অনেক বেশি সাংকেতিক বা ধ্বনিময় হয়ে যাবে। হয়তো তখন আমাদের অতি চেনা বাংলা ভাষাকে নতুন করে আবিষ্কার করতে হবে। খুঁজে নিতে হবে তার পরিবর্তিত রূপকে। লেখক : কথাশিল্পী।

up-arrow