Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৪ অক্টোবর, ২০১৭

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৪ অক্টোবর, ২০১৭
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:২০
খালেদাকে জেলে পাঠালে নির্বাচন হবে না
নিজস্ব প্রতিবেদক
খালেদাকে জেলে পাঠালে নির্বাচন হবে না

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে ‘মিথ্যা মামলায়’ সাজা দিয়ে জেলে পাঠানো হলে দেশে কোনো নির্বাচন হবে না বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। খালেদা জিয়াকে সাজা দিয়ে নির্বাচন দেওয়া হলে দেশের মানুষ সে নির্বাচনে অংশ নেবে না।

নতুন সিইসির বিষয়ে তিনি বলেন, নুরুল হুদা ছাত্রজীবনে ছাত্ররাজনীতি করেছেন। পরে রাজনৈতিক সংশ্লিষ্টতার কারণে সরকারি চাকরি হারিয়েছেন। ২০০৮ সালে নির্বাচনে তাকে আওয়ামী লীগের প্রচারের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল। এ সবের সব প্রমাণ আছে বলেও দাবি করেন মির্জা ফখরুল।

গতকাল বিকালে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি মিলনায়তনে এক আলোচনা সভায় মির্জা ফখরুল এ হুঁশিয়ারি দেন। ২০ দলীয় জোটের শরিক দল ন্যাশনাল পিপলস পার্টি (এনপিপি) সহায়ক সরকারের অধীনে জাতীয় নির্বাচনের দাবিতে ওই আলোচনা সভার আয়োজন করে। এনপিপির সভাপতি ড. ফরিদুজ্জামান ফরহাদের সভাপতিত্বে এতে বক্তব্য দেন জাগপা সভাপতি শফিউল আলম প্রধান, জাতীয় পার্টির মহাসচিব (কাজী জাফর) মোস্তফা জামাল হায়দার, লেবার পার্টির চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান ইরান প্রমুখ।  

মির্জা ফখরুল বলেন, সুশীল সমাজের অনেকে বলছেন- সরকার নিরপেক্ষ না হলে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয়। এমনকি সাবেক সিইসি ড. শামসুল হুদাও এ কথা বলেছেন।

বিএনপি নির্বাচনে যেতে চায়। তবে সে নির্বাচন হতে হবে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে। যেখানে সবার অংশগ্রহণ থাকবে এবং সবার কাছে গ্রহণযোগ্য হবে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, আসুন লেভেল প্লেইং ফিল্ড তৈরি করে নির্বাচনে যাই। বেগম খালেদা জিয়া যেভাবে ক্ষমতার বাইরে আছেন সেভাবে আপনিও বাইরে এসে নির্বাচনে অংশ নিন। কথায় কথায় বলেন নির্বাচন কমিশনের অধীনে সব কিছু থাকে, তারা নির্বাচনের সব আয়োজন করে। কিন্তু জেলা প্রশাসক থেকে শুরু করে আরও যারা আছেন, তারাও নির্বাচনের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট।  

নোবেল বিজয়ী ড. মুহম্মদ ইউনূসের বিরুদ্ধে বিষোদগারের সমালোচনা করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ড. ইউনূস আমাদের গর্ব। তাকে বিভিন্ন রাষ্ট্র সম্মান করে। এমনকি ভারতেও তাকে বিভিন্নভাবে সম্মানিত করা হচ্ছে।

এদিকে, দুপুরে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক দোয়া মাহফিলে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী দাবি করেন, সরকার ‘ভূতের’ মতো এক ব্যক্তিকে রেখে ৫ জানুয়ারির মতো নির্বাচন করে আবার ক্ষমতায় থাকতে চায়। এ জন্য তারা বহু নাটক, তামাশা করে নুরুল হুদাকে নিয়ে এসেছে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow