Bangladesh Pratidin

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : বুধবার, ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:৫৯
বিনম্র শ্রদ্ধায় ভাষা শহীদদের স্মরণ
নিজস্ব প্রতিবেদক
বিনম্র শ্রদ্ধায় ভাষা শহীদদের স্মরণ
একুশের প্রথম প্রহরে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে দলীয় নেতা-কর্মীদের নিয়ে শ্রদ্ধার্ঘ্য নিবেদন করেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা —বাংলাদেশ প্রতিদিন

জাতিসংঘের দাফতরিক ভাষা হিসেবে স্বীকৃতির দাবি, উচ্চ আদালতে বাংলার ব্যবহার, সর্বস্তরে বাংলা ভাষার প্রচলন ও ভাষার বিকৃতি রোধের অঙ্গীকার নিয়ে জাতি গতকাল ভাষাশহীদদের বিনম্র শ্রদ্ধায় স্মরণ করেছে। রাজধানীসহ সারা দেশে দলমত, ধর্মবর্ণ, সম্প্রদায়নির্বিশেষে লাখো মানুষ মাতৃভাষার মর্যাদা রক্ষার অকুতোভয় শহীদদের ফুলেল শ্রদ্ধা জানায়।

শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে গতকাল ছিল সরকারি ছুটির দিন। শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে এদিন জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখা হয়।

 

 

অমর একুশের প্রথম প্রহরে রাজধানীর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধাঞ্জলির মধ্য দিয়ে দিনের কর্মসূচি শুরু হয়। দিনভর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতা-কর্মী ভাষা আন্দোলনের      শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধার্ঘ্য অর্পণ করেন। তারা জঙ্গিবাদমুক্ত গণতান্ত্রিক বাংলাদেশ বিনির্মাণের দৃঢ়প্রত্যয় ঘোষণা করেন। দেশের বাইরে দূতাবাসগুলোতেও শোক ও শ্রদ্ধায় পালন করা হয়েছে অমর একুশে। লাখো মানুষ ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি, আমি কি ভুলিতে পারি...’ সংগীতের সুর মূর্ছনার মধ্য দিয়ে প্রভাতফেরি করে শহীদ মিনারে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করে। শিশু, নারী ও তরুণদের পদচারণে সোমবার মধ্যরাত থেকে গতকাল দিনভর মুখর ছিল কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণ। হাতে ফাগুনের ফুল আর নগ্নপদ প্রভাতফেরিতে যেন রাজধানীর সব পথ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে এসে মিশেছিল। এ ছাড়া আজিমপুর কবরস্থানে শহীদ বরকতের কবরেও পুষ্পস্তবক অর্পণ ও ফাতিহা পাঠ করে অগণিত মানুষ। এদিন কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার, বাংলা একাডেমির গ্রন্থমেলাসহ একুশের প্রতিটি অনুষ্ঠানে তিল ধারণের ঠাঁই ছিল না।

অমর একুশে ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের এ প্রথম প্রহরে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতির পক্ষ থেকে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে মহান ভাষা আন্দেলনের শহীদদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। রাত ১২টা ১ মিনিটে প্রথমে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এবং এর পরপরই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। এর পরই আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা মন্ত্রিপরিষদ ও দলের সিনিয়র নেতাদের নিয়ে দলের পক্ষ থেকে শহীদ মিনারে পুনরায় পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। মন্ত্রিসভার সদস্য, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা, এমপি, তিন বাহিনীর প্রধান, কূটনীতিক, আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতৃবৃন্দ এবং উচ্চপদস্থ বেসামরিক ও সামরিক কর্মকর্তারা এ সময় উপস্থিত ছিলেন। পরে জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী ও ডেপুটি স্পিকার অ্যাডভোকেট ফজলে রাব্বি মিয়া কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। এর পরই বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ দলীয় নেতাদের নিয়ে শহীদ মিনারে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করেন। বিরোধীদলীয় নেতার পর কূটনীতিকবৃন্দ, তিন বাহিনীর প্রধান ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য ভাষাশহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান। রাত দেড়টার দিকে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া দলের সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে নিয়ে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

এরপরই বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, সহযোগী সংগঠন, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, ছাত্র, যুব, শ্রমিক, কৃষক সংগঠনের নেতা-কর্মীসহ সর্বস্তরের মানুষ একে একে শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে ভাষাশহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে শুরু করেন। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও সংগঠনের পক্ষ থেকে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ফুলেল শ্রদ্ধা নিবেদন করেন দিলীপ বড়ুয়ার নেতৃত্বে ১৪ দল, কূটনীতিক কোরের সদস্য, সশস্ত্র বাহিনীর সদস্য, বাংলাদেশ পুলিশ, যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা, সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম, উপাচার্যের নেতৃত্বে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি, র‍্যাব, বিজিবি, হাসানুল হক ইনুর নেতৃত্বে জাসদ, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, গণসংহতি আন্দোলন, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, মেয়র সাঈদ খোকন ও আনিসুল হকের নেতৃত্বে ঢাকা দক্ষিণ ও উত্তর সিটি করপোরেশন, রওশন এরশাদের নেতৃত্বে জাতীয় পার্টি, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, বাসদ, সাম্যবাদী দল, বাংলা একাডেমি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন হল, বঙ্গবন্ধু পরিষদ, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট, বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতি, আইন ও সালিশ কেন্দ্র, জাতীয় শ্রমিক লীগ, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট, আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান, কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন, বিএফডিসি, উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী, আইন কমিশন, নির্বাচন কমিশন, পাসপোর্ট অধিদফতর, রেলপথ মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি, ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সাইফুল আলম ও সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিনের নেতৃত্বে জাতীয় প্রেস ক্লাব, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে), ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন (ডিইউজে), ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি, বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন, অফিসার্স ক্লাব, পুলিশ নারী কল্যাণ সমিতি, জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি—জাগপা, লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি—এলডিপি, দুর্নীতি দমন কমিশন—দুদক, জাতীয় জনতা পার্টি, আওয়ামী মোটরচালক লীগ, বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশন, ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ—ড্যাব, বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি, বারডেম হাসপাতাল, প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার নেতৃত্বে বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়, রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ—রাজউক, টিআইবি, বিসিআইসি, স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদ, বিজিএমইএ, স্বাধীনতা চিকিত্সক পরিষদ, বিএনপি, যুবদল ঢাকা উত্তর, কর্মজীবী নারী, জাতীয়তাবাদী মহিলা দল, কেন্দ্রীয় খেলাঘর আসর, বাংলাদেশ ওয়ার্কার্স পার্টি, গণফোরাম, বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিল, যুব মহিলা লীগ, ছায়ানট, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, মহিলা আওয়ামী লীগ, বাংলাদেশ অর্থনীতি সমিতি, মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগ, জেএসডি, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণের মধ্য দিয়ে বায়ান্নর ভাষাশহীদদের স্মরণ করে।

বায়তুল মোকাররমে দোয়া : ভাষা আন্দোলনের সব শহীদের রুহের শান্তি কামনা করে গতকাল সকালে বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে দোয়া ও মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়। ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে মোনাজাতের আগে সকালে কোরআনখানি, মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন জাতীয় মসজিদের সিনিয়র পেশ ইমাম মাওলানা মুহাম্মদ মিজানুর রহমান। এ ছাড়া মোনাজাতে দেশ ও জাতির শান্তি-সমৃদ্ধি ও কল্যাণ কামনা এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট শাহাদাতবরণকারী বঙ্গবন্ধু পরিবারের সব সদস্যের রুহের মাগফিরাত কামনা করে দোয়া করা হয়।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow