Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ১৬ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, বুধবার, ১৬ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:২২
দলীয় সরকারে সুষ্ঠু ভোট হবে না : মোশাররফ
নিজস্ব প্রতিবেদক

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, দলীয় সরকারের অধীন সুষ্ঠু নির্বাচন হতে পারে না। এর প্রমাণ শেখ হাসিনা সরকার দিয়েছে।

নতুন যাকে সিইসি নিয়োগ দেওয়া হয়েছে তিনি আওয়ামী লীগের দলীয় লোক। আওয়ামী লীগের বিগত নির্বাচনে তিনি সমন্বয়কের দায়িত্ব পালন করেছেন। এ পদটিতে বিএনপির দাবি ছিল দলনিরপেক্ষ লোক বসানোর। যে লক্ষ্য নিয়ে দেশ স্বাধীন করা হয়েছে, তা বাকশাল কায়েমের মাধ্যমে ভূলুণ্ঠিত করা হয়েছিল। তখন সব দল নিষিদ্ধ করে বাকশাল চালানো হয়েছিল। এখন তারই নতুন সংস্করণ হলো শেখ হাসিনার সরকার। গতকাল ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি (ডিআরইউ) মিলনায়তনে ২০ দলের শরিক জাগপার আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন। ‘পিলখানা ট্র্যাজেডি— কেন এই সেনা হত্যা ও কার স্বার্থে’ শীর্ষক এ আলোচনা সভার আয়োজন করে দলটি। এতে সভাপতিত্ব করেন জাগপা সভাপতি শফিউল আলম প্রধান।

ড. মোশাররফ বলেন, আওয়ামী লীগ নির্বাচিত হওয়ার পরই পিলখানা ট্র্যাজেডির সৃষ্টি হয়। সে সময় একসঙ্গে ৫৭ জন চৌকস সেনা অফিসারকে হত্যা করা হয়েছিল। অথচ তা আধা ঘণ্টার মধ্যে নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব ছিল। কার স্বার্থে এ হত্যাকাণ্ড ঘটানো হয়েছিল? বিদেশি কোনো ষড়যন্ত্রের কারণে তা করা হয়েছিল। বিডিআর যেভাবে সীমান্ত পাহারায় ছিল, তা তারা মেনে নিতে পারেনি। তাই বিডিআরের অস্তিত্ব মুছে দিতে পিলখানা ট্র্যাজেডির পর নাম পরিবর্তন করে বিজিবি রাখা হয়েছে। তিনি বলেন, আজকে ভোট-গণতন্ত্রকে বাক্সবন্দী করে রাখা হয়েছে। সরকার বিরোধী মত সহ্য করতে পারে না। কোনো সভা-সমাবেশ করতে দেওয়া হয় না। ফখরুদ্দীন-মইনের আমলে মাইনাস ফর্মুলায় খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মামলা দেওয়া হয়েছিল। একই সময়ে শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে করা মামলাগুলো প্রত্যাহার হলেও খালেদা জিয়ার মামলাগুলো চলমান রাখা হয়েছে। যে আইনে শেখ হাসিনার মামলা প্রত্যাহার করা হয়েছে ঠিক একই আইনে খালেদা জিয়ার মামলাগুলো প্রত্যাহার করা হবে না কেন? যে দুর্নীতির অভিযোগ আনা হয়েছে, কোনো সাক্ষী তার প্রমাণ দিতে পারেননি।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow